BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ডাক্তার নেই, চলন্ত ট্রেনে প্রসব করালেন বৃহন্নলারাই

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 21, 2016 7:16 pm|    Updated: July 21, 2016 7:35 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাস্তাঘাটে তাঁদের টাকার দাবি নিয়ে তিতিবিরক্ত যাত্রীরা৷ অথচ তাঁরাই হয়ে যেন উঠলেন পরিত্রাতা৷ চলন্ত ট্রেনে এক প্রসূতির প্রসব করালেন এক বৃহন্নলা ও তাঁর সঙ্গীরাই৷

তিরুবনন্তপুরম-গুয়াহাটি এক্সপ্রেস তখন কোল্লাম ছাড়িয়েছে৷ আচমকাই প্রসব বেদনায় কাতর হয়ে পড়েন জনৈক জরিনা বেগম৷ স্বামী আলম মহম্মদের সঙ্গে গুয়াহাটিতেই যাচ্ছিলেন তিনি৷ মাঝরাস্তায় এই বিপদে যাত্রীরাও কী করবেন ভেবে উঠতে পারেননি৷ প্রথমে ঠিক করা হয়, চেন টেনে ট্রেন থামানো হবে৷ কিন্তু মাঝপথে ট্রেন থামালে চিকিৎসার কোনও সাহায্য মিলবে না৷ কী করা যায় যখন ভাবছেন তাঁরা, তখনই পরিত্রাতা হয়ে ওঠেন মালতী নামে এক বৃহন্নলা৷ তিনি ও তাঁর দুই সঙ্গীও ওই ট্রেনেই ছিলেন৷ খবর পেয়ে জরিনা বেগমের কামরায় উপস্থিত হন মালতী৷ বৃহন্নলা হলেও একসময় সন্তান প্রসবে বিশেষ প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন মালতী৷ এক সরকারি প্রকল্পের আওতায় নেওয়া তাঁর এই প্রশিক্ষণই একরকম প্রাণ বাঁচাল জরিনা বেগমের৷ চলন্ত ট্রেনেই সন্তান প্রসবে সাহায্য করেন তিনি৷ কাজে হাত লাগান অপর দুই বৃহন্নলাও৷ মালতীর সহায়তাতেই সন্তান প্রসব করেন জরিনা বেগম৷

পরের স্টেশনে ট্রেন থামলে জরিনা ও তাঁর সদ্যোজাতকে বিশেষ অ্যাম্বুল্যান্সে করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ জানা গিয়েছে, মা ও শিশু সুস্থই আছে৷ কিন্তু মালতীর কাছে এই দিনটি তাঁর জীবনের এক বিশেষ মুহূর্ত হয়ে থাকল৷ জরিনার স্বামী ও ট্রেনের অপর সহযাত্রীরা শুভেচ্ছা-কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন মালতীকে৷ আর তাতেই খুশি তিনি ও তাঁর সঙ্গীরা৷ আদালত তাঁদের যত স্বীকৃতিই দিক না কেন, চলতি সমাজ তাঁদের খানিকটা অবজ্ঞা ও তাচ্ছিল্যের চোখেই দেখে৷ কিন্তু তাঁরাও যে সমাজের প্রয়োজনে কাজে লাগতে পারেন, সে কথাই কাজে করে দেখিয়ে দিলেন মালতী৷

(ছবি-প্রতীকী)

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement