BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আর্থিক দুর্নীতি মামলায় চিদম্বরমের বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি, আদালতকে জানাল CBI

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: August 14, 2020 8:06 pm|    Updated: August 14, 2020 8:12 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমের বিরুদ্ধে থাকা অভিযোগের স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। বম্বে হাই কোর্টে ৬৩ মুনস টেকনোলজিস সংস্থার দায়ের করা একটি মামলার শুনানিতে একথা জানাল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই (CBI) । শুধু তাই নয়, এই মামলায় অভিযুক্ত অন্য দুই কেন্দ্রীয় আমলার বিরুদ্ধেও কোনও প্রমাণ মেলেনি বলে জানানো হয়েছে তাদের তরফে।

বৃহস্পতিবার বম্বে হাই কোর্টের বিচারপতি সাধনা যাদব ও বিচারপতি এন জে জমাদারের ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি ছিল। সেখানে সওয়াল করতে উঠে সিবিআইয়ের আইনজীবী হিতেন ভেনেগাভকর জানান, প্রাক্তন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী পি চিদম্বরম ও অন্য দুই কেন্দ্রীয় আমলার নামে ৬৩ মুনস টেকনোলজিস (63 moons technologies) সংস্থাটি যে দুর্নীতির অভিযোগ এনেছিল তার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। অভিযোগকারীও কোনও প্রমাণ দিতে পারেনি। তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখার পাশাপাশি ওই সংস্থার দায়ের করা অভিযোগটি ইকোনমিক অ্যাফেয়ার্স ডিপার্টমেন্টের চিফ ভিজিল্যান্স অফিসারের কাছেও পাঠিয়েছে।

[আরও পড়ুন: রাষ্ট্রপতির নিশানায় চিন, স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে জাতির উদ্দেশে ভাষণে নাম না করে কড়া বার্তা ]

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১২-১৩ আর্থিক বর্ষে ন্যাশনাল স্পট এক্সচেঞ্জ লিমিটেডের (NSEL)-এর পেমেন্ট নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। এরপর ২০১৯ সালে সিবিআইয়ের কাছে তৎকালীন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম ও ফরওয়ার্ড মার্কেটস কমিশনের চেয়ারম্যান থাকা রমেশ অভিষেক ও অর্থমন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব পি কৃষ্ণনের নামে একটি অভিযোগ দায়ের করে ৬৩ মুন টেকনোলজি। ২০১২-১৩ সালে দেশের অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন পি চিদম্বরম ওই দুই আমলার সাহায্যে পদের অপব্যবহার করে তাদের আর্থিক ক্ষতি করেছিলেন বলে দাবি জানায়।

পরে বম্বে হাই কোর্টে সিবিআই অভিযুক্তদের জেরা করতে দেরি করছে বলেও একটি মামলা দায়ের করা হয় ওই কোম্পানির তরফে। বৃহস্পতিবার তার শুনানির সময় সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে পরিষ্কার জানিয়ে দেওয়া হল, এই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করলেও পি চিদম্বরম (P Chidambaram) -এর বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ পায়নি তারা।

[আরও পড়ুন: তেরঙ্গায় লুকিয়ে নানা অজানা কাহিনি, দেশের জাতীয় পতাকা সম্পর্কে জেনে নিন ১০টি তথ্য]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement