৯ মাঘ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৯ মাঘ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ক্রমশ রাতের কলকাতা নয়, রাতের বেঙ্গালুরুও মেয়েদের জন্য নিরাপদ নয়। দিন কয়েক আগে এক মডেল রাতে বিমানবন্দর যাওয়ার জন্য ওলা ক্যাব বুক করেছিলেন। কিন্তু গন্তব্যে পৌঁছনোর আগেই তিনি খুন হন। এরপর ওই মডেলের ফোন থেকেই তাঁর স্বামীকে ফোন করে টাকা চায় ওই ক্যাব চালক। ওই ক্যাব ড্রাইভারকে গ্রেপ্তার করেছে বেঙ্গালুরু পুলিশ।

[ আরও পড়ুন: ছিলেন বিজেপির ক্রাইসিস ম্যানেজার, নিজেকে প্রণবের ‘ফ্যান’ বলতেন অরুণ জেটলি ]

অভিযুক্ত ওই গাড়ি চালকের নাম নাগেশ। ৩১ জুলাই পূজা সিং দে নামে কলকাতার এক মডেল গাড়ি বুক করেন। তাঁর বয়স ৩২ বছর। মডেলিংয়ের পাশাপাশি ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের কাজও করতেন তিনি। সেই সূত্রেই তিনি বেঙ্গালুরু এসেছিলেন ৩০ জুলাই। সেদিন বিমানবন্দরে আসার জন্য ওলা ক্যাব বুক করেছিলেন তিনি। সেখান থেকে কলকাতাগামী বিমান ধরার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু গাড়ি চালক তাঁকে বিমানবন্দরে না নিয়ে গিয়ে একটি শুনশান জায়গায় নিয়ে যায়। গয়না, নগদ টাকাকড়ি ও অন্যান্য মূল্যবান জিনিস লুট করার জন্য পূজাকে আঘাত করে সে। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আঘাত একটু জোরেই হয়ে যায়। ফলে ঘটনাস্থলেই মারা যান পূজা। এরপর পূজার কাছে যা জিনিসপত্র ছিল, তা লুট করে সে। এখানেই শেষ নয়। এরপর পূজার স্বামীকে পূজারই ফোন থেকে টেক্সট মেসেজ করে ক্যাব চালক নাগেশ। তাঁর কাছে থেকে ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়। কিন্তু ততক্ষণে মারা গিয়েছেন পূজা।

[ আরও পড়ুন: একইসঙ্গে তিনটি সরকারি চাকরি! ৩০ বছর পর ফাঁস কর্মচারীর জারিজুরি ]

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পূজাকে একাধিকবার আঘাত করে নাগেশ। তাঁর মাথায় গুরুতর ক্ষত পাওয়া গিয়েছে। পুলিশ আরও জানিয়েছে, পূজার স্বামী কলকাতার একটি থানায় অভিযোগ জানিয়েছিলেন। কলকাতা পুলিশই বেঙ্গালুরু পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে। তারপরই সন্ধান শুরু হয় পূজার। এদিকে বিমানবন্দরের কাছে একটি গ্রাম থেকে পূজার দেহ উদ্ধার করে বেঙ্গালুরু পুলিশ। মৃতদেহের হাতে ঘড়ি ছিল। তা দেখেই দেহটি পূজার বলে শনাক্ত করা হয়। এরপর গ্রেপ্তার করা হয় নাগেশকে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং