BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  রবিবার ২৯ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘মহিলারা সব দেখছেন’, মেয়েদের বিয়ের ন্যূনতম বয়স প্রসঙ্গে বিরোধীদের বিঁধলেন মোদি

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: December 21, 2021 7:57 pm|    Updated: December 21, 2021 7:57 pm

On Raising Marriage Age Of Women PM Modi Swipe Akhilesh Yadav's Party | Sangbad Pratidin

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মেয়েদের বিয়ের ন্যূনতম বয়সসীমা (Minimum Age of Marriage for Women) হতে চলেছে ২১ বছর। ইতিমধ্যে এই সংক্রান্ত প্রস্তাবে ছাড়পত্র দিয়ে দিয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা (Union Cabinet)। এদিন সেই প্রস্তাব সামনে রেখে নারী কল্যাণে তাঁর সরকারের অবদানের প্রসঙ্গ টেনে উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) একটি সরকারি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। অভিযোগ করলেন, মেয়েদের বিয়ের ন্যূনতম বয়সসীমা বাড়ানো হোক চায় না বিরোধীরা। যদিও মোদিকে পালটা খোঁচা দিলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বঢরা (Priyanka Gandhi Vadra)। তাঁর প্রশ্ন, উত্তরপ্রদেশে ভোটের আগেই এই প্রস্তাবের কথা মনে পড়ল কেন?   

মঙ্গলবার উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজে একটি সরকারি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। যেখানে দর্শকাসনে উপস্থিত ছিলেন দুই লক্ষের বেশি মহিলা। তাঁদের উদ্দেশে মোদি বলেন, “কেন্দ্র একটি উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নিয়েছে। এতদিন মেয়েদের বিয়ের বয়সসীমা ছিল ১৮। কিন্তু মেয়েদের শিক্ষিত হওয়ার জন্য আরও বেশি সময়ের প্রয়োজন। সেই কারণেই বিয়ের বয়সসীমা ২১ বছর করতে চাইছি আমরা।”

এরপর সরাসরি কোনও দলের নাম না করে বিরোধীদের কটাক্ষ করেন মোদি। বলেন, “যাদের কেন্দ্রীয় সরকারের এই পদক্ষেপ নিয়ে সমস্যা হচ্ছে, তাঁদের নজরে রাখছেন মহিলারা।”

[আরও পড়ুন: ‘প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে আমরা গর্বিত’, টিকার শংসাপত্রের মোদির ছবি সরানোর আর্জি খারিজ কেরল হাই কোর্টে ]

উল্লেখ্য, সমাজবাদী পার্টির (SP) বিধায়করা ছাড়াও কংগ্রেস (Congress), সিপিএম-সহ (CPM) বেশকিছু দলের নেতারা সংসদে মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়সসীমা বাড়ানোর বিলের বিরোধিতা করবেন বলে জানিয়েছেন। উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির অন্যতম প্রতিপক্ষ সমাজবাদী পার্টি। দলের নেতা অখলেশ যাদব এই বিষয়ে এখনও কোনও মন্তব্য করেননি। সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন, তারা একটি “প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল”।

প্রয়াগরাজ পূর্ব উত্তরপ্রদেশের গেটওয়ে। এই অঞ্চলকে অখিলেশ যাদবের সমাজবাদী পার্টি ও বহুজন সমাজবাদী পার্টির ভোটব্যাঙ্ক বলে মনে করা হয়। পাশাপাশি কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বঢরারও প্রভাব রয়েছে এই এলাকায়। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, এদিন নাম না করে অখিলেশ যাদবকেই কটাক্ষ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি রাজ্যের মহিলা ভোটারদের মন পাওয়াই ছিল কৌশল।

[আরও পড়ুন: ১৮ নয়, মেয়েদের বিয়ের ন্যূনতম বয়স হতে চলেছে ২১ বছর, প্রস্তাব পাশ কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়]

এদিকে টুইটারে মোদিকে কটাক্ষ করেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বঢরা। লেখেন, “কেন আমি উত্তরপ্রদেশের মেয়েদের শক্তির কথা বলি? প্রধানমন্ত্রী মোদিকেও তাদের সামনে নত হতে হল।” প্রিয়াঙ্কা প্রশ্ন তোলেন, “গত পাঁচ বছরে এই ঘোষণা করেননি কেন? ভোটের সময়ই কেন? মেয়েরা এখন সচেতন আমাদের ‘লরকি হু, লড় সকতি হু’ স্লোগানে।” 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে