১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

উপরাষ্ট্রপতির কাছে প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব বিরোধীদের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 20, 2018 5:11 pm|    Updated: November 12, 2018 5:21 pm

Opposition parties move Vice President seeking impeachment of CJI

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মামলা বন্টনে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখে খুলেছিলেন সুপ্রিম কোর্টের চারজন প্রবীণ বিচারপতি। আদালতের সাংবাদিক সম্মেলন করে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন তাঁরা। আর এবার দেশের প্রধান বিচারপতিকে ইমপিচ করার আবেদন জানিয়ে উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডুকে নোটিস দিল বিরোধীরা। নোটিস স্বাক্ষর করেছেন কংগ্রেস, সিপিএম, সিপিএম, সমাজবাদী পার্টি, বহুজন সমাজ পার্টি-সহ সাতটি রাজনৈতিক দলের ৬৪ জন সাংসদ।

বৃহস্পতিবার বিচারক বিএইচ লোয়ারের মৃত্যুর ঘটনায় সিবিআই তদন্তে আরজি খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের ডিভিশন বেঞ্চে রায়, বিচারক লোয়ারের মৃত্যুতে কোনও অস্বাভাবিকতা নেই। তাই সিবিআই তদন্ত নিষ্প্রয়োজন। গুজরাটে শেখ সোহরাবুদ্দিন হত্যা মামলার বিচারক ছিলেন বিএইচ লোয়ার। এই মামলা আবার অন্যতম বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। কিন্তু, ২০১৪ সালে ১ ডিসেম্বর মামলা চলাকালীন আচমকাই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বিচারক লোয়ার। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, বিচারক লোয়ারের মৃত্যুর অন্য এক বিচারকের এজলাসে শেখ সোহরাবুদ্দিন হত্যা মামলার শুনানি শেষ হয়। তিনি আবার বিজেপি সভাপতি অমিত শাহকে বেকসুর খালাস দিয়ে দেন। বিচারক লোয়ারের মৃত্যুকে নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়। সিবিআই তদন্তের দাবিতে একটি জনস্বার্থ মামলা হয় বম্বে হাই কোর্টে। যদিও এই ঘটনায় কোনও অস্বাভাবিকতা খুঁজে পায়নি আদালত। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মামলাকারী।

বিচারক লোয়ারের মৃত্যুতে সিবিআই সংক্রান্ত মামলায় যেদিন রায় ঘোষণা করল সুপ্রিম কোর্ট, ঠিক তার পরের দিন উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডুর কাছে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতিকেই ইমপিচ করার নোটিস দিল বিরোধীরা। নোটিসে স্বাক্ষর করলেন কংগ্রেস, সিপিএম, সিপিআই-সহ সাতটি বিরোধী দলের ৬৪ জন সাংসদ। শুক্রবার দিল্লিতে উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডুর সঙ্গে দেখা করে বিরোধী শিবিরের এক প্রতিনিধি দল। প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন কংগ্রেস সাংসদ গুলাম নবি আজাদ। কংগ্রেস নেতা ও প্রবীণ আইনজীবী কপিল সিবাল বলেন, বিচারব্যবস্থার বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে। বিষয়টি তদন্ত হওয়া দরকার। স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক দেশে এটা চলতে দেওয়া যায় না।

 

 

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে