BREAKING NEWS

১৩ মাঘ  ১৪২৭  বুধবার ২৭ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

সেনার পেনশন সংক্রান্ত সমস্যা দু’মাসে মেটানোর আশ্বাস পারিক্করের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 5, 2016 4:51 pm|    Updated: January 11, 2021 5:59 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘এক পদ এক পেনশন’ সংক্রান্ত যাবতীয় সমস্যার সমাধান আগামী দু’মাসের মধ্যে হয়ে যাবে বলে শনিবার আশা প্রকাশ করলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিক্কর৷ তিনি বলেন, ইতিমধ্যেই ৯৫ শতাংশ প্রাক্তন সেনাকর্মী ‘এক পদ এক পেনশন’-এর সুবিধা পাচ্ছেন৷ যাঁদের এখনও কোনও অভিযোগ রয়েছে, তাঁদের সব অভিযোগের সুরাহা আগামী দু’মাসের মধ্যে হয়ে যাবে৷ এদিনই বিজেপি প্রেসিডেন্ট অমিত শাহ প্রাক্তন সেনাকর্মী রাম কিষেন গ্রেওয়ালের মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করায় কংগ্রেসের তীব্র নিন্দা করেছেন৷ শাহ বলেন, “একজন সেনা জওয়ান আত্মহত্যা করছেন৷ আর তাই নিয়ে কিছু মানুষ রাজনীতি করছেন৷ এর চেয়ে দুর্ভাগ্যজনক আর কী হতে পারে?”

প্রতিরক্ষামন্ত্রী পারিক্কর জানিয়েছেন, ‘এক পদ এক পেনশন’ চালুর দাবি আজকের নয়, ৪৩ বছরের পুরনো৷ ইউপিএ জমানায় প্রাক্তন সেনাকর্মীদের এই দাবিকে কোনও গুরুত্বই দেওয়া হয়নি৷ কিন্তু নরেন্দ্র মোদি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর প্রতি বছর প্রায় ১১ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে ‘এক পদ এক পেনশন’-এর জন্য৷ নয়া পেনশন ব্যবস্থা ১০০ শতাংশ কার্যকর করতে বিচারপতি রেড্ডির নেতৃত্বাধীন রেড্ডি কমিটিও তৈরি করা হয়েছে৷ পারিক্কর স্পষ্ট করেন, ১৯৬২-র যুদ্ধের সেনানী, যাঁদের পেনশনের নথিপত্র খুবই পুরনো, শুধুমাত্র তাঁদের ক্ষেত্রেই কিছু সমস্যা হচ্ছে৷ শতাংশের হিসাবে তাঁদের সংখ্যা মাত্র ৪-৫৷ আগামী দু’মাসের মধ্যে কেন্দ্র সমস্ত অসম্পূর্ণ নথির কাজ সম্পূর্ণ করে ফেলবে বলেও জানান পারিক্কর৷

অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিও রাম কিষান গ্রেওয়ালের মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করার অভিযোগ তুলেছেন কংগ্রেসের বিরুদ্ধে৷ জেটলি বলেন, “ভোটের আগে ফায়দা তুলতে কংগ্রেস রাম কিষানের মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করছে৷” রাহুল গান্ধীর নাম না করে জেটলি বলেন, “জাতীয় স্তরের নেতাদের মধ্যে কারও কারও দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণ করা উচিত নয়৷ কেন্দ্রীয় সরকার দেশের প্রাক্তন সেনানীদের প্রতি দায়বদ্ধ ও সহানুভূতিশীল৷ তবে কারও ব্যক্তিগত ট্র্যাজেডিকে রাজনৈতিক কারণে ইস্যু হিসাবে তুলে ধরা ঠিক নয় বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী৷ তাঁর বক্তব্যকে সমর্থন করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী কিরেণ রিজিজু৷ মৃতের পরিবারের সঙ্গে পুলিশি দুর্ব্যবহারের অভিযোগ খন্ডন করে রিজিজু বলেন, তদন্তের স্বার্থে পুলিশ কোনও পদক্ষপে করলে সেখানে রাজনৈতিক নেতাদের ঢোকা উচিত নয়৷ অন্যদিকে, শনিবারই দিল্লি হাই কোর্টে দিল্লি সরকারের বিরুদ্ধে রাম কিষান গ্রেওয়ালকে ‘শহিদ’ তকমা দেওয়ার বিরুদ্ধে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement