BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভারতের করোনা প্যাকেজ পাকিস্তানের জিডিপির সমান, ইমরানকে কটাক্ষ বিদেশমন্ত্রকের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: June 12, 2020 11:41 am|    Updated: June 12, 2020 11:41 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার মারে বেহাল পাকিস্তান। ঋণের ভারে কার্যত নুয়ে পড়েছে ইসলামাবাদ। এহেন পরিস্থিতিতেও ভারতের বিরুদ্ধে তোপ দাগতে ব্যস্ত পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সম্প্রতি করোনা মোকাবিলায় ‘নগদ হস্তান্তর’ করে ভারতকে মদত করার প্রস্তাবের নামে কটাক্ষ করেন তিনি। এর জবাবে ভারত সাফ জানিয়েছে, শুধু করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্র যে প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সেটাই পাকিস্তানের জিডিপি’র সমান।

[আরও পড়ুন: পঙ্গপালের হাত থেকে বাঁচতে পাকিস্তানের ভরসা ‘মুরগি বাহিনী’]

বৃহস্পতিবার নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে ভরিতের আর্থিক অবস্থা নিয়ে কটাক্ষ করেন ইমরান। মোদি সরকারের পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার ক্ষমতায় প্রশ্ন তুলে আর্থিক মদতের আশ্বাসও দেন তিনি। পালটা ভারতের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেন, ” বিদেশের ব্যাংক অ্যাকউন্টে টাকা জমা করার জন্য পাকিস্তান বিশেষভাবে পরিচিত। তারা নিজেদের মানুষকে কখনও টাকা দেয় না। এটা স্পষ্ট যে ইমরানের খানের উচিত উপদেষ্টাদের পালটে আরও তথ্য সংগ্রহ করা।” উল্লেখ্য, দেশের জনতা খাবার না পেলেও বিদেশি জঙ্গি সংগঠন তথা জেহাদিদের নিয়মিত অর্থ জুগিয়ে যায় পাকিস্তান। এর ফলে ফাইনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স-এর রোষেও পড়তে হয়েছে ইসলামাবাদকে।

উল্লেখ্য, মে মাসে পাকিস্তানের অর্থনীতির দুরবস্থা দেখিয়ে দিয়েছেন প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার জাভেদ মিয়াঁদাদ। মিয়াঁদাদ জানিয়েছিলেন, তাঁর দেশের উপর আবার ঋণের বোঝা চাপতে পারে। আর এবার আইএমএফ-এর (IMF) মতো সংগঠনের থেকে ঋণ চাইতে গেলে পাকিস্তানের পরমাণু বোমা বন্ধক রাখতে হবে। নাহলে আর কোনও আন্তর্জাতিক সংস্থা ঋণ দেবে না। তাই তিনি পাকিস্তানের পরমাণু অস্ত্র বাঁচাতে মাঠে নামেন। একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলেছেন জাভেদ। তাতে অর্থ দান করার জন্য দেশবাসীর কাছে আরজি জানিয়েছেন তিনি। যদিও এর আগেই আন্তর্জাতিক অর্থভাণ্ডার বা IMF থেকে ১৪০ কোটি মার্কিন ডলারের লোন নিয়েছে ইমরান খানের সরকার। সব মিলিয়ে বাড়িতে খবর না থাকলে মুখে বুলির কমতি নেই পাক প্রধানমন্ত্রীর।

[আরও পড়ুন: ‘বিজয় মালিয়াকে আর আশ্রয় দেবেন না’, ব্রিটেনকে অনুরোধ বিদেশমন্ত্রকের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement