BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিক্রি ১৬ কোটি টাকার টিকিট, বিশেষ ট্রেনে সফর করবেন আশি হাজার মানুষ

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: May 12, 2020 2:14 pm|    Updated: May 12, 2020 4:37 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে রেলের বিশেষ যাত্রীবাহী ট্রেন পরিষেবা। রেলমন্ত্রকের এই সিদ্ধান্তে স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে থাকা লক্ষ লক্ষ মানুষ। রেল সূত্রে খবর, এখনও বিশেষ ট্রেনগুলির জন্য এখনও পর্যন্ত ১৬ কোটির টাকার টিকিট বিক্রি হয়ছে। ট্রেনগুলিত সফর করবেন প্রায় ৮০ হাজার যাত্রী।

[আরও পড়ুন: কর্মীর দেহে করোনা সংক্রমণ, বন্ধ করে দেওয়া হল এয়ার ইন্ডিয়ার হেডকোয়ার্টার]

দীর্ঘদিনের লকডাউনের জেরে গণপরিবহণ বন্ধ থাকার পর আজ নয়াদিল্লি থেকে মধ্যপ্রদেশের বিলাসপুর পর্যন্ত প্রথম যাত্রীবাহী ট্রেন চলবে। গতকাল বা সোমবার, এই ট্রেনগুলির জন্য অনলাইনে টিকিট বুকিং শুরু হয়। মঙ্গলবার রেল জানিয়েছে, আগামী সাতদিনে ১৫টি ট্রেনে ৪৫ হাজার ৫৩৩টি PNR নম্বরের বিপরীতে ৮২ হাজার ৩১৭ জন যাত্রী দেশের বিভিন্ন প্রান্তে গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা দেবেন। তবে করোনা সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে সফরের জন্য বেশ কিছু নির্দেশিকা জারি করেছে রেল। নির্দিষ্ট স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার ৯০ মিনিট আগে যাত্রীদের স্বাস্থ্যপরীক্ষার জন্য হাজির থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, যাত্রীদের খাবার ও চাদর-কম্বল ইত্যাদি নিয়ে আসার কথা বলা হয়েছে। একই সঙ্গে সব যাত্রীর মোবাইল ফোনে আরোগ্য সেতু অ্যাপ থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

আজ সব মিলিয়ে আটটি যাত্রীবাহী বিশেষ ট্রেন যাত্রা শুরু করবে। এর মধ্যে তিনটি ট্রেন নয়াদিল্লি থেকে শুরু করে অসমের ডিব্রুগড়, মধ্যপ্রদেশের বিলাসপুর ও কর্ণাটকের বেঙ্গালুরু স্টেশন পর্যন্ত যাবে। এদিকে, হাওড়া, রাজেন্দ্রনগর (পাটনা), বেঙ্গালুরু, মুম্বই সেন্ট্রাল ও আহমেদাবাদ থেকে একটি করে ট্রেন নয়াদিল্লি পর্যন্ত যাবে।

রেল জানিয়েছে, শুধুমাত্র কনফার্ম ই-টিকিট থাকলে এবং স্বাস্থ্যপরীক্ষায় উতরে গেলে তবেই যাত্রীদের ট্রেনে সওয়ার হওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে। ট্রেনগুলিতে শুধুমাত্র শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কামড়া থাকবে। উল্লেখ্য, দেশজুড়ে লকডাউনের মাঝে মঙ্গলবার থেকেই ট্রেন পরিষেবা চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলমন্ত্রক। যার জন্য সোমবার বিকেল ঠিক চারটে থেকে অনলাইনে টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছিল। জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, শুধুমাত্র আইআরসিটিসির (IRCTC) সাইট থেকেই কাটতে হবে টিকিট। স্টেশনের কাউন্টার খোলা থাকবে না। প্রত্যাশিতভাবে ৪টে বাজতেই হুড়মুড়িয়ে সাইটে লোক ঢুকে পড়ে। যে কারণে সাইট খুলতেই তা ক্র্যাশ করে যায়। ফলে বন্ধ করে দিতে হয় পরিষেবা। তারপর ফের বিকাল ৬টা থেকে শুরু হয় টিকিট বুকিং।

দেখুন ভিডিও:

[আরও পড়ুন: তিন মাস বেতন নেই, প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ দিল্লির পুর হাসপাতালের ডাক্তাররা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement