৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সোমনাথ রায়, নয়াদিল্লি: অর্থনীতি নিয়ে মুখ খোলার ফলেই বিজেপি সরকারের রোষের মুখে পড়তে হয়েছে চিদম্বরমকে। রাজনৈতিক এবং ব্যক্তিগত প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করিয়েছে মোদি সরকার। কংগ্রেস দপ্তরে বসে কথাগুলি বললেন দলের প্রধান মুখপাত্র রণদীপ সিং সূরজেওয়ালা। এবং সেই সঙ্গে তিনি বুঝিয়ে দিলেন, চিদম্বরমের বিরুদ্ধে যে অভিযোগই থাক, দল তাঁর পাশেই আছে।

[আরও পড়ুন: ৯ বছর আগে গ্রেপ্তার করিয়েছিলেন চিদম্বরম, এবার বদলা নিলেন শাহ!]

গতকাল রাত আটটা নাগাদ সাংবাদিক বৈঠক করে নিজেই চিদম্বরম দাবি করছিলেন, তিনি প্রতিহিংসার শিকার হচ্ছেন, তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগের কোনও প্রমাণ সিবিআইয়ের কাছে নেই। এমনকী, তাঁর বিরুদ্ধে চার্জশিটও পেশ করা হয়নি। তারপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয় প্রচার। অনেকে বলতে শুরু করেন, অমিত শাহকে ২০১০ সালে গ্রেপ্তার করিয়েছিলেন, তার বদলা নিতেই চিদম্বরমকে গ্রেপ্তার করালেন শাহ। বৃহস্পতিবার কংগ্রেসের সাংবাদিক বৈঠকেও এই সুরই প্রতিধ্বনিত হল। কংগ্রেস মুখপাত্র বললেন, ব্যক্তিগত প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই চিদম্বরমকে জেলে পাঠিয়েছে সরকার। অমিত শাহর নাম না করলেও কংগ্রেস যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকেই তোপ দাগল তা বলার অপেক্ষা রাখল না।

কংগ্রেসের অভিযোগ, “চিদম্বরমের দোষ, উনি অর্থনীতির খারাপ দিকগুলি তুলে ধরেছেন। যে আওয়াজ তুলবে তাঁরই গলা টিপে দেওয়া হবে। মমতা,আবদুল্লা, মায়াবতী, অখিলেশ-সহ সব বিরোধীদের বিরুদ্ধে এফআইআর করা হচ্ছে। আবার যারা বিজেপিতে যাচ্ছেন, অমনি ক্লিনচিট পেয়ে যাচ্ছেন। বিচারবিভাগেও কলকাঠি নাড়া হচ্ছে। সংবিধান আমাদের দেশের সত্ত্বা। একে হাতিয়ার করেই আমরা লড়ব। ক্ষমতার নেশায় বুঁদ অনেকেই সংবিধান ভুলে যাচ্ছে।” চিদম্বরমের ছেলে কার্তি আবার বলছেন, “৩৭০ ধারা বিলোপের ঘটনা থেকে নজর ঘোরাতেই এই গ্রেপ্তারি। গোটা কংগ্রেস দলকে আক্রমণ করা হচ্ছে। আমি যন্তরমন্তরে যাব এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখাতে।” কংগ্রেস যতই অভিযোগ করুক বিজেপির সাফ দাবি, এর পিছনে কোনও প্রতিহিংসা নেই, নিজের কৃতকর্মের ফল পাচ্ছেন চিদম্বরম।

[আরও পড়ুন: পাক সাংবাদিকের সঙ্গে ‘কেচ্ছা’ ফাঁস, সুনন্দা পুষ্কর মামলায় আরও বিপাকে থারুর]

এদিকে, সোমবার রাতেই সিবিআই চিদম্বরমকে এক ডজন প্রশ্ন করেছিল বলে সূত্রের খবর। প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর জন্য সাজানো হয়েছে একগুচ্ছ প্রশ্নমালা। মোট ১০০টি প্রশ্ন দফায় দফায় করা হতে তাঁকে। আজ দুপুর ২টোয় তাঁকে সিবিআই আদালতে তোলা হতে পারে। সূত্রের খবর, চিদম্বরমকে ১৪ দিনের হেফাজতে চাইবে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং