Advertisement
Advertisement

সীমান্তে পাক অনুপ্রবেশের ছক বানচাল, সংঘর্ষে শহিদ ২ জওয়ান

এদিকে, পাক সেনাপ্রধানের কাছে প্রাণভিক্ষা চেয়ে আরজি কুলভূষণ যাদবের। এমনটাই দাবি পাকিস্তানের।

Pak BAT strikes again, 2 jawans martyred
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:June 22, 2017 2:24 pm
  • Updated:June 22, 2017 2:34 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের উত্তপ্ত জম্মু-কাশ্মীর সীমান্ত। বৃহস্পতিবার পুঞ্চ সেক্টর থেকে আবারও অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে পাক সেনার বর্ডার অ্যাকশন টিম বা ‘ব্যাট’-এর দুই সদস্য। কিন্তু সেই ছক বানচাল করে দেয় ভারতীয় সেনা। তবে গুলির লড়াইয়ে প্রাণ হারিয়েছেন দুই ভারতীয় জওয়ান। এছাড়া সেনার গুলিতে মারা গেছে ব্যাট-এর এক সদস্যও। তবে অপর এক সদস্য পাক সেনার সাহায্যে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে।

রথযাত্রার আগেই ভাঙল সুভদ্রার ‘দর্পদলন’-এর চাকা, ছড়াল চাঞ্চল্য ]

Advertisement

জানা গিয়েছে, এদিন দুপুর ২ টো নাগাদ সীমান্ত পেরিয়ে প্রায় ৬০০ মিটার ভিতরে চলে আসে ‘ব্যাট’-এর দু্ই সদস্য। ভারতীয় পোস্ট সেখান থেকে মাত্র ২০০ মিটার দূরত্বে ছিল। টহলদারি দলের ব্যাপারটি নজরে আসার পরেই দু’পক্ষের মধ্যে গুলির লড়াই শুরু হয়। ‘ব্যাট’-এর সদস্যদের সাহায্যে ভারতীয় সেনা ছাউনি লক্ষ্য করে গুলি চালাতে থাকে পাক সেনাও। এতেই প্রাণ হারান দুই ভারতীয় জওয়ান। সেনার পালটা গুলিতে মারা পড়ে এক অনুপ্রবেশকারীও। তবে পাক সেনার মদতে পালাতে সক্ষম হয় অপরজন। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, গুলির লড়াই এখনও চলছে। এই প্রসঙ্গে সেনার তরফ থেকে একটি বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, ‘দুই অনুপ্রবেশকারী পুঞ্চ সেক্টর থেকে সীমান্ত পেরিয়ে ভিতরে ঢোকে। ভারতীয় জওয়ানদের নজরে আসা মাত্র দু’পক্ষের মধ্যে গুলির লড়াই শুরু হয়। পাক সেনাও সীমান্তের ওপার থেকে লাগাতার মদত দেয়। এই গুলি বিনিময়তেই দুই জওয়ান শহিদ হয়েছে। একজন অনুপ্রবেশকারীও মারা গিয়েছে।’ এই নিয়ে গত একবছরে পুঞ্চ সেক্টরে তিনবার হামলা চালাল ‘ব্যাট’। এর আগে মে মাসেই সীমান্ত পেরিয়ে এসে দুই বিএসএফ জওয়ানকে মেরে তাঁদের মুণ্ডচ্ছেদ করেছিল পাক সেনার এই বিশেষ দল। যা নিয়ে গোটা দেশে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল। কেন্দ্রের কাছে যথাযথ শাস্তির দাবি তুলেছিল শহিদ জওয়ানদের পরিবার। এমনকী পালটা মারও দিয়েছিল ভারতীয় সেনা। হামলা চালিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় বেশ কয়েকটি পাক সেনাঘাঁটি।

Advertisement

অন্যের জমিতে শৌচ, ‘ট্যাক্স’ দিয়ে রেহাই দলিত মহিলাদের ]

এদিকে, ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত প্রাক্তন ভারতীয় নৌসেনা অফিসার কুলভূষণ যাদব নাকি পাক সেনাপ্রধানের কাছে প্রাণভিক্ষা করেছেন। যাতে তাঁর ফাঁসির সাজা মকুব করা হয়। বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের পক্ষ থেকে এক বিবৃতি প্রকাশ করে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। পাক সেনার দাবি, কুলভূষণ যাদব নাকি প্রাণভিক্ষা চেয়ে কামার বাজওয়ার উদ্দেশে লেখা চিঠিতে বলেছেন, তিনি সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে যুক্ত ছিলেন। তাঁর কৃতকর্মের জন্য বহু নিরাপরাধ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। এজন্য তিনি ক্ষমাপ্রার্থী। তাঁর মৃত্যুদণ্ডের সাজা যেন রদ করে দেওয়া হয়। এর আগে ফ্রেব্রুয়ারি মাসে চরবৃত্তির অভিযোগে কুলভূষণ যাদবকে ফাঁসির সাজা শুনিয়েছিল পাক সেনা আদালত। যদিও ভারতের পক্ষ থেকে আবেদন করার পর, সেই সাজায় স্থগিতাদেশ দিয়েছিল আন্তর্জাতিক আদালত। অাগষ্টে পরবর্তী শুনানির আগে পর্যন্ত ফাঁসি দেওয়া যাবে না কুলভূষণ যাদবকে। এর মধ্যেই পাক সেনার নতুন দাবি বিতর্কের ঝড় তুলেছে। যদিও পাক সেনাপ্রধান এই আবেদন মঞ্জুর না করলেও পাক রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইতে পারেন কুলভূষণ যাদব।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ