BREAKING NEWS

৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ক্যানসার ঐশ্বরিক ন্যায়বিচার, অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মন্তব্যে বিতর্ক তুঙ্গে

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 23, 2017 4:05 am|    Updated: September 22, 2019 7:12 pm

People have cancer because of their sins, this is divine justice: Assam health minister

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  ধূমপান ক্যানসারের কারণ। সিগারেটের প্যাকেটে বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ। কিন্তু, তা বলে যাঁরা ধূমপান করেন না, তাদের ক্যানসার হবে না, একথা কিন্তু হলফ করে বলা যায় না। বরং জীবনের কোনওদিন ধূমপান করেননি, এমন মানুষকেও ক্যানসারে আক্রান্ত হতে দেখা যায়। চিকিৎসকরা বলছেন, ধূমপান ছাড়া আরও নানা কারণে শরীরে বাসা বাধতে পারে এই মারণ রোগ। তবে সেসব যুক্তি অবশ্য একেবারেই মানতে রাজি নন খোদ অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। ক্যানসারকে ‘ঐশ্বরিক ন্যায়বিচার’ বলে উল্লেখ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, ‘অনেক সময় দেখা যায়, যুবকরা ক্যানসারে আক্রান্ত হচ্ছেন কিংবা দুর্ঘটনার কবলে পড়ছেন। আপনি যদি তাঁদের অতীতটা খতিয়ে দেখেন, তাহলে বুঝতে পারবেন় এগুলি ঈশ্বরের ন্যায়বিচার ছাড়া আর কিছুই নয়।’

[টুকলি করতে গিয়ে ধরা পড়ে আত্মঘাতী ছাত্রী, রণক্ষেত্র চেন্নাইয়ের বিশ্ববিদ্যালয়]

গোটা দেশে যেভাবে ক্যানসারে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, তা রীতিমতো উদ্বিগ্ন চিকিৎসকরা। তাঁদের আশঙ্কা, ২০২২ সালের মধ্যে এদেশে ক্যানসার মহামারির আকার নেবে। কর্কটরোগের বাড়বাড়ন্তে যেমন ধূমপান বা মদ্যপান একটা বড় কারণ, তেমনি পরিবেশ দূষণ-সহ বিভিন্ন শারীরবৃত্তীয় কারণেও যে কেউ এই মারণ রোগে আক্রান্ত হতে পারেন। এমনটাই মত চিকিৎসকদের। যদিও অল্প বয়সে ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার একটি ভিন্ন ব্যাখ্যা দিয়েছেন খোদ অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। আর তা নিয়ে বিতর্কে জমে উঠেছে উত্তর-পূর্ব ভারতের বিজেপিশাসিত এই রাজ্যে। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মন্তব্যের বিরোধিতার আসরে নেমেছে কংগ্রেস-সহ অসমের সবকটি বিরোধী দল। তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে ক্যানসার আক্রান্তদের মধ্যেও।

[বিজেপি নেতাদের হত্যা করতে জঙ্গিদের স্পেশ্যাল স্কোয়াড বানাচ্ছে জইশ, লস্কর]

কিন্তু, ক্যানসার নিয়ে ঠিক কী বলেছেন হিমন্ত? মঙ্গলবার গুয়াহাটিতে সরকারি স্কুলের শিক্ষকদের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দেওয়ার অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তিনি। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, যাঁরা পাপ করেন, তাঁদেরই নাকি ক্যানসার হয়। এই মারণরোগ ‘ঐশ্বরিক ন্যায়বিচার’ ছা়ড়া আর কিছুই নয়। তাঁর যুক্তি, ‘ অল্প বয়সী যুবকটি হয়ত কিছু করেননি। কিন্তু, তাঁর বাবা হয়ত কোনও ভুল কাজ করেছেন। গীতা বা বাইবেলে মানুষের কর্মফলের কথা বলা হয়েছে। তাই দুঃথ পাওয়ার কিছু নেই। প্রত্যেককেই এ জীবনে নিজের কর্মের ফল ভোগ করতে হবে।’

[বিমানবন্দরে মহিলা যাত্রীর ক্ষোভের মুখে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, ভিডিও ভাইরাল]

একবিংশ শতকে দাঁড়িয়ে খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর এ হেন যুক্তিতে শোরগোল পড়েছে রাজনৈতিক মহলে। অসমের কংগ্রেস নেতা দেবব্রত সৈকিয়া বলেন, ‘এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক, যে ক্যানসার আক্রান্তদের নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এই ধরণের মন্তব্য করেছেন। এতে ক্যানসার আক্রান্তদের ভাবাবেগে আঘাত লেগেছে। তিনি যেহেতু জনসমক্ষে এই মন্তব্য করেছেন, তাই সবার সামনেই তাঁকে ক্ষমা চাইতে হবে।’  AIUDF  নেতা আমিনূল ইসলামের অভিযোগ, ক্যানসার প্রতিরোধে সরকারের ব্যর্থতা ঢাকতে এমন মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। যদিও ক্যানসার নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মন্তব্যে আমল দিতে নারাজ অসম সরকার পরিচালিত ক্যানসার হাসপাতালের সুপার বি বি বোর ঠাকুর। তাঁর সাফাই, ‘ আমার মনে হয় না, মন্ত্রীর বক্তব্যের কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি আছে। এই মন্তব্যটিকে সামাজিক প্রেক্ষাপটেই বিচার করা উচিত। অযথা বিতর্ক তৈরি করার কোনও প্রয়োজন নেই।

[প্রকাশ্যে শৌচকর্মের ছবি তুলতে হবে শিক্ষকদের, প্রশাসনের সিদ্ধান্তে শোরগোল

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে