BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পরিকল্পিত আত্মসমপর্ণ না পুলিশের সাফল্য? বিকাশ দুবের নাটকীয় গ্রেপ্তারিতে উঠছে প্রশ্ন

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 9, 2020 1:52 pm|    Updated: July 9, 2020 1:59 pm

An Images

ঘটনাস্থলের ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বৃহস্পতিবার মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়িনী (Ujjain)’র মহাকাল মন্দির থেকে কানপুরের কুখ্যাত ডন বিকাশ দুবে (Vikas Dubey) -কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, একজন ফুল বিক্রেতার কাছ থেকে খবর পাওয়ার পরেই মন্দিরের নিরাপত্তারক্ষীরা পুলিশকে খবর দেন। তারপরই সেখানে এসে বিকাশকে গ্রেপ্তার করে মধ্যপ্রদেশের পুলিশ। তার গ্রেপ্তারির খবর পাওয়ার পরেই উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে ফোন করেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান। কানপুরের ডনের গ্রেপ্তারির খবর দিয়ে তাকে খুব তাড়াতাড়ি উত্তরপ্রদেশ পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হবে বলে জানান। শুরু হয়ে যায় একে অপরের পিঠ চাপড়ানোর খেলাও। কিন্তু, এর মাঝেই বিকাশের এই নাটকীয়ভাবে গ্রেপ্তারির পিছনে কোনও ঠান্ডা মাথার পরিকল্পনা রয়েছে কি না তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

কেউ কেউ বলছেন, গত ৩ জুলাই কানপুরের বিকরু গ্রামে হওয়া এনকাউন্টারের জায়গা থেকে পালিয়ে যাওয়ার পরে ৬ দিন ধরে নিখোঁজ ছিল বিকাশ। এর মাঝে তার একাধিক সঙ্গীকে এনকাউন্টার করা সম্ভব হলেও বিকাশ কী করে পালিয়ে গেল? তাকে মঙ্গলবার উত্তরপ্রদেশের ফরিদাবাদে দেখা গিয়েছে বলে জানা যায়। পরে খবর আসে সে হরিয়ানার একটি হোটেলে রয়েছে। কিন্তু, সেখানে গিয়েও তাকে ধরতে ব্যর্থ হয় পুলিশ। শুধু তাই নয়, এই সবের মাঝেই খবর ছড়ায় উত্তরপ্রদেশ ও দিল্লির সীমান্ত এলাকায় বিকাশ আত্মসমর্পণ করতে পারে। পুলিশ যাতে তাকে এনকাউন্টারে মারতে না পারে তাই নয়ডা এলাকায় থাকা সংবাদমাধ্যমের অফিসগুলিতেও এই খবর পৌঁছে দেওয়া হয়। উত্তরপ্রদেশের বারাইচ জেলার নেপাল সীমান্তেও তার খোঁজে চলছিল চিরুনি তল্লাশি। এর মাঝেই খবর আসে মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়িনীর মহাকাল মন্দির এলাকা থেকে কানপুরের ডনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: ‘সত্যের পথে চলি, ভয় পাই না’, গান্ধী পরিবারের বিরুদ্ধে তদন্ত নিয়ে কেন্দ্রকে পালটা রাহুলের]

এরপরই প্রশ্ন ওঠে বিকাশকে এনকাউন্টারের হাত থেকে বাঁচানোর জন্যই কি মহাকাল মন্দিরের মতো একটি ব্যস্ত এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হল? অনেকের দাবি, বিকাশই মহাকাল মন্দিরে যাওয়ার কথা পুলিশকে জানিয়েছিল। তার ভিত্তিতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। না হলে যে মানুষকে দেশের প্রায় সমস্ত রাজ্যের পুলিশ খুঁজছে। সে আচমকা দিনের আলোয় মহাকাল মন্দিরের মতো একটি ব্যস্ত এলাকায় কেন যাওয়ার ঝুঁকি নিল? কীভাবেই বা লকডাউন ও হাই অ্যালার্ট উপেক্ষা করে উত্তরপ্রদেশের সীমান্ত পেরিয়ে ফরিদাবাদ থেকে মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়িনীতে পৌঁছে গেল সে? এতটা রাস্তা কোনও রকম সমস্যা ছাড়াই মধ্যপ্রদেশে পৌঁছনো পুলিশ বা প্রশাসনের কোনও কর্তা ছাড়া কীভাবে সম্ভব হল? মহাকাল মন্দিরের চারিদিকে বিকাশের ফটো লাগানো পোস্টার মারা ছিল। এই ফটোগুলো ওখানে কে লাগাল? বিকাশকে ধরার ছবি বা ভিডিও যেভাবে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে। তাতে পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে যে স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে এই ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে বলে কোনও খবর ছিল। না হলে এত তাড়াতাড়ি তাঁরা কীভাবে সেখানে পৌঁছলেন? গত ৬ দিন ধরে বিকাশকে লুকিয়ে থাকতে সাহায্যই বা করল কে?

[আরও পড়ুন: কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ড পুনর্বিবেচনার বিষয় নিয়ে নাটক করছে পাকিস্তান, ইসলামাবাদকে তোপ দিল্লির]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement