৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দীর্ঘ রোগভোগের পর শনিবার চিরবিদায় নিলেন দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। মনোহর পারিক্কর, সুষমা স্বরাজের পর আর এবার অরুণ জেটলি। চলতি বছর গেরুয়া শিবিরের তিন নক্ষত্রের পতন ঘটল। অরুণ জেটলির প্রয়াণে আরও একবার শোকস্তব্ধ গোটা দেশ। দল-রং নির্বিশেষে সকলেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শোকপ্রকাশ করেছেন।

এদিন হায়দরাবাদ সফর কাটছাঁট করে দিল্লি যাচ্ছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তিনি বলেন, “অরুণ জেটলির প্রয়াণে গভীরভাবে শোকাহত। এটা যেন ব্যক্তিগত ক্ষতি হয়ে গেল। দলের একজন সিনিয়র নেতাই শুধু নয়, পরিবারের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্যকে হারালাম। যিনি সবসময় আমাকে আগলে রাখতেন।”

[আরও পড়ুন: প্রয়াত প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি, রাজনৈতিক মহলে শোকের ছায়া]

 

আরব আমিরশাহীতে বসেই দুঃসংবাদ পেয়ে শোকস্তব্ধ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। টুইট করেন, “দারুণ হাস্যরস বোধ ছিল তাঁর। সমাজের প্রত্যেক স্তরের মানুষের থেকে সম্মান পেয়েছেন তিনি। ভারতের ইতিহাস, ভারতীয় সংবিধান, সরকার, প্রশাসন নিয়ে গভীর জ্ঞান ছিল। বড় মাপের রাজনীতিবিদ ছিলেন তিনি। নেতা হিসেবে দেশের প্রতি তাঁর অনেক অবদান রয়েছে। তাঁর চলে যাওয়া অত্যন্ত দুঃখজনক। তাঁর স্ত্রী সঙ্গীতাজি এবং ছেলে রোহনের সঙ্গে কথা বলেছি। সহানুভূতি জানিয়েছি। ওম শান্তি।”

টুইটারে শোকবার্তা পাঠিয়েছেন এরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। লেখেন, “অরুণ জেটলিজির প্রয়াণে শোকস্তব্ধ। দীর্ঘ লড়াই চালিয়েছেন তিনি। দুর্দান্ত একজন সাংসদ এবং অসাধারণ আইনজীবী ছিলেন। ভারতীয় রাজনীতিতে তাঁর অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। তাঁর স্ত্রী, সন্তান, বন্ধুবান্ধব এবং পরিজনদের আমার সহানুভূতি।”

[আরও পড়ুন: নিষেধাজ্ঞা অমান্য করেই কাশ্মীর যাচ্ছেন রাহুল, সঙ্গে তৃণমূল-সহ ৯ বিরোধী দলের প্রতিনিধি]

টুইট করে শোকপ্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ কংগ্রেস নেতা শশী থারুর, ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক, মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিং, কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং-সহ রাজনৈতিক জগতের নেতা-নেত্রীরা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং