০৯  আষাঢ়  ১৪২৯  রবিবার ২৬ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মোদির চেয়ে মনমোহনই বিদেশে গিয়েছেন বেশি, আজব সাফাই অমিত শাহর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 2, 2017 3:28 am|    Updated: July 2, 2017 3:52 am

PM Modi visited fewer countries than Manmohan Singh, claimed Amit Shah

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তাঁর বিদেশ সফর নিয়ে মুখরোচক আলোচনার শেষ নেই। বিরোধীরা বিদ্রুপ করে বলেন দেশের বাইরে থাকতেই বেশি পছন্দ করেন প্রধানমন্ত্রী। নরেন্দ্র মোদির বিদেশ সফর নিয়ে বিরোধীদের লাগাতার নিন্দা আর সহ্য হল না বিজেপি নেতৃত্বর। প্রধানমন্ত্রীর হয়ে সাফাই দিতে গিয়ে কৌশলে তাঁর পূর্বসূরী মনমোহন সিংকে বিঁধেছেন অমিত শাহ। বিজেপি সভাপতির দাবি মসনদে বসার পর প্রথম তিন বছরে মোদির থেকে অনেক বেশি বিদেশ সফরে গিয়েছিলেন মনমোহন। অমিতের সংযোজন, দেশের উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী প্রাণপাত করছেন। যাদের এটা সহ্য হচ্ছে না, তারাই এমন মন্তব্য করছেন বলে পাল্টা দিয়েছেন অমিত।

[৩ লক্ষ সন্দেহজনক সংস্থার উপর নজর রয়েছে কেন্দ্রর, হুঁশিয়ারি মোদির]

ক্ষমতায় বসার পর থেকে নরেন্দ্র মোদীর বিদেশ সফর নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। সদ্য পর্তুগাল, যুক্তরাষ্ট্র, নেদারল্যান্ডস সফর সেরে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী। দেশে ফিরে জিএসটি চালু করে ফের বিদেশ সফরে যাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি। এবার তাঁর গন্তব্য ইজরায়েল। প্রধানমন্ত্রীর এই বিদেশ সফর নিয়ে রাজধানীতে নানারকম আলোচনা  হয়। কংগ্রেস-সহ বিরোধীরা একাধিকবার অভিযোগ করেছেন সংসদ চলাকালীন বেশ কয়েকবার বিদেশ সফরে ব্যস্ত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এই সমস্ত সফরে দেশের কী প্রাপ্তি তা নিয়েও মোদিকে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে। এমনকী এক বিরোধী নেতা কটাক্ষ করে বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী ভারত সফরে এসেছেন। মোদির বিদেশযাত্রা নিয়ে ক্রমাগত প্রশ্নর জবাব দিতে এগিয়ে এলেন প্রধানমন্ত্রীর অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ তথা বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। হরিয়ানায় এক দলীয় অনুষ্ঠানে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর হয়ে সাফাই দেন অমিত। পাশাপাশি এই ইস্যুতে মোদির পূর্বসূরী মনমোহন সিংয়েরও সমালোচনা করেন। অমিত শাহের বক্তব্য, মোদির বিদেশযাত্রা নিয়ে অহেতুক হইচই হচ্ছে। তাঁর দাবি ক্ষমতায় বসার পর প্রথম তিন বছরে মোদির থেকেও বেশি বিদেশে গিয়েছেন মনমোহন সিং। অমিত শাহ এই তথ্য নাকি পেয়েছেন দলীয় কর্মীদের থেকে। সেই তথ্যে ‘সমৃদ্ধ’ হয়ে বিজেপি সভাপতির বক্তব্য মনমোহন সিং বাইরে যেতেন, কেউ সেভাবে টের পেতেন না। আসলে বর্তমান প্রধানমন্ত্রীকে প্রচার বেশি তাই এত আলোচনা। অমিতের সংযোজন, মনমোহন বিদেশে গিয়ে শুধু ইংরেজিতে লেখা বিবৃতি পড়তেন। পড়া শেষ হলে ভারতে ফিরে আসতেন। একবার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মালয়েশিয়ায় গিয়ে তাইল্যান্ডের বিবৃতি পড়েছিলেন। তাইল্যান্ডে গিয়ে উল্টোটা করেন। অমিত শাহর দাবি, আগে কোনও প্রধানমন্ত্রী বিদেশে গেলে কেউ খবর পেতেন না। এখন মোদি বিদেশে গেলে প্রবাসী ভারতীয়রা তার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেন।

[GT-র জের, চলন্ত ট্রেনেই যাত্রীদের কাছে অতিরিক্ত টাকা আদায় টিটিই-র]

তবে অমিত শাহ মোদির হয়ে ব্যাট ধরলেও পরিসংখ্যানবিদরা বলছেন সাফাই দিতে গিয়ে বিতর্ক বাড়িয়েছেন বিজেপি সভাপতি। কারণ প্রথম তিন বছরের বিদেশ সফরে মনমোহন অবশ্য মোদির থেকে খানিকটা পিছিয়ে। মোদি এপর্যন্ত ৫৬টি দেশে গিয়েছেন। সেখানে প্রথম তিন বছরে ৩৫টি দেশে গিয়েছিলেন মনমোহন সিং।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে