BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ক্ষমা চান প্রধানমন্ত্রী, কংগ্রেস-পাকিস্তান বৈঠক বিতর্কে তোপ মনমোহনের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 11, 2017 12:55 pm|    Updated: September 20, 2019 11:32 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মারাত্মক অভিযোগ তুলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গুজরাট নির্বাচনের প্রাক্কালে তা তাঁকে রাজনৈতিক ফায়দা হয়তো দিতে পারে, কিন্তু দেশের জন্য তা ভাল বিজ্ঞাপন নয়। এমনটাই মত ছিল রাজনৈতিক মহলের একাংশেরও। কেননা পাকিস্তানের সঙ্গে গোপন আঁতাতে তিনি নাম জড়িয়েছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীরও। এবার এই ইস্যুতেই মুখ খুললেন মনমোহন সিং। জানালেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যসিদ্ধির জন্য একম বাজে অজুহাত খাড়া করতে পারেন না মোদি। দেশ ও জাতির কাছে ক্ষমা চান তিনি।

[ ‘গোপন’ বৈঠক নিয়ে মোদিকে পালটা জবাব কংগ্রেস ও পাকিস্তানের ]

এদিন বিবৃতি প্রকাশ করে মনমোহন জানান, মোদির অভিযোগে তিনি ব্যথিত ও বিরক্ত। পাকিস্তানের সঙ্গে গোপন বৈঠকের অভিযোগ উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে। পালটা তোপ দেগে মনমোহন জানান, কংগ্রেসের দেশপ্রেমের প্রমাণ দেওয়ার দরকার নেই। এমন একটা দল তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে, যে দলেরই কাজকর্ম প্রশ্নের মুখে। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে  তিনি কী কাজ করেছেন, দেশের মানুষ তা দেখেছেন। তাঁর কটাক্ষ, দেশে সন্ত্রাস মোকাবিলা করতে বিজেপি কী করেছে তাও তো সবাই দেখেছে। তাঁর প্রশ্ন, কোনওরকম নিমন্ত্রণ ছাড়াই মোদি যে পাকিস্তানে গিয়েছিলেন তা কি সবাই ভুলে গিয়েছে। উধমপুর ও পাঠানকোটে হামলার পরও মোদি পাকিস্তানে গিয়েছিলেন। তাঁর দাবি, কেন আইএসআই-কে পাঠানকোটে স্ট্র্যাটেজিক এয়ার বেসে আসার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল, তাও মোদি জানান দেশকে। পালটা অবিযোগ করে মনমোহন বলেন, গুজরাট নির্বাচনে পরাজয়ের আভাস পেয়েই মোদি এরকম অজুহাত খাড়া করছেন। যা রীতিমতো অবমাননাকর। এর জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চান মোদি, দাবি মনমোহনের।

মায়ের ব্যাটন হাতে নিয়ে কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী ]

DQwqXxyU8AAekX2

এদিন মোদির কাজকর্মের উপর যে তিনি বীতশ্রদ্ধ তা জানাতে কোনও কসুর করেননি মনমোহন। জানান, যে পদে মোদি আসীন, তার ভার আছে, মর্যাদা। সেই পদের যোগ্য পরিণতিবোধ তিনি দেখাবেন, এমনটাই প্রত্যাশা।

এক কেন্দ্রে প্রার্থী একজনই, নির্বাচনী সংস্কারের ডাক সুপ্রিম কোর্টের ]

এদিকে মনমোহনের এই বিবৃতির পরই জবাব আসে শাসকদল থেকে। প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে বলছে কংগ্রেস, এ জিনিস বিস্ময়কর কবলেই দাবি করেন অরুণ জেটলি। জানান, এতদিন পর্যন্ত কংগ্রেস বৈঠকের কথা অস্বীকার করছিল। এখন আবার পালটা ক্ষমা চাওয়ার কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু কেন পাকিস্তানি প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের দরকার হয়ে পড়েছিল, তা আগে স্পষ্ট করুক কংগ্রেস। এদিন মনিশংকর আইয়ারকেও একহাত নেন অরুণ জেটলি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement