BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

রেলমন্ত্রীকে সরাসরি নালিশ করতে চালু হচ্ছে ‘নিভারণ’

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 12, 2016 9:13 am|    Updated: July 12, 2016 9:13 am

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: রেলকর্মীর মৃত্যুর পর পুত্রকে চাকরি দেওয়া নিয়ে গড়িমসি করছে পার্সোনাল বিভাগ৷ টাকা না দিলে ট্রাভেলিং অ্যালাউন্স দিচ্ছে না, অবসর নিয়েও পাওনাগণ্ডা ঠিকমতো পাওয়া যাচ্ছে না৷ সরাসরি অভিযোগ জানান ‘নিভারণ’-এ৷ ‘Nivaran’ এই নামে এবার পোর্টাল চালু করল রেলমন্ত্রক৷ যার মাধ্যমে রেলকর্মী ও অবসরপ্রাপ্ত রেলকর্মীদের অভিযোগ পৌঁছে যাবে সরাসরি রেলমন্ত্রীর কাছে৷ অভিযোগ নিয়ে উপযুক্ত পদক্ষেপ করার নির্দেশ দিতে পারবেন তিনি৷
সংশ্লিষ্ট পোর্টালের পরিকাঠামো বিন্যাসের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ‘ক্রিস’ সংস্থাকে৷ রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু জানিয়েছেন, ১৩ লক্ষ রেলকর্মী এই পোর্টালের মাধ্যমে বিশেষভাবে উপকৃত হবেন৷ রেলের যোগসূত্র ও ব্যাপ্তির উন্নতির পাশাপাশি কর্মীদের নানা ধরনের সুবিধা-অসুবিধা নিয়ে অবগত হতে পারবেন রেলমন্ত্রী৷ যার বহু কিছুই জানতে পারেন না রেলমন্ত্রী৷
রেলমন্ত্রকের এই পদক্ষেপকে ভাল উদ্যোগ বলে মনে করেছেন রেলকর্মচারী সংগঠনগুলি৷ মেট্রো রেলের মেন্স কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক শিশিরচন্দ্র মজুমদার বলেন, শ্রমিকদের দাবিদাওয়াগুলি রেলমন্ত্রীর সামনে সরাসরি আসবে৷ এটা খুব ভাল বিষয়৷ তবে এই বিষয়টা কতদিন কার্যকর থাকবে সেটাই দেখার বিষয়৷ একই বক্তব্য পূর্ব রেলের মেন্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সূর্য বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ তিনি বলেন, সঠিকভাবে চললে এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে৷ রেলমন্ত্রী যাত্রীদের অসুবিধা জানতে যে ওয়েবসাইট খুলেছিলেন, তার জনপ্রিয়তা এত যে, দৈনিক হাজার-হাজার অভিযোগ তাতে আসতে থাকে৷ যা এক সময় পুরোপুরি কখনওই দেখা সম্ভব নয় রেলমন্ত্রীর পক্ষে৷ তেমন আধিক্যের পর্যায়ে এই ‘নিভারণ’ চলে এলে প্রকৃত সহযোগিতা থেকে বঞ্চিত হবেন প্রকৃত অসুবিধাতে পড়া রেলকর্মীরা বলে ইউনিয়নগুলির ধারণা৷
তবে যে যাই বলুক বা ভাবুক, তা নিয়ে চিন্তিত বা বিচলিত নন রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু৷ তিনি রেলকর্তাদের কাছে এই পোর্টালের প্রসার চেয়ে সবরকমের ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন৷ পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা এই পোর্টালে রীতিমতো সময় দিচ্ছেন রেলমন্ত্রী বলে জানা গিয়েছে৷ ইতিমধ্যে কর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ও করতে শুরু করেছেন তিনি৷ তবে বিশেষ সুবিধাভোগী রেলকর্মী বা আধিকারিকরা এই পোর্টালে ততটা উৎসাহী নয় বলে জানা গিয়েছে৷ কারণ, তাঁদের দুর্নীতি সরাসরি রেলমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে যাওয়াটা তাঁরা মোটেই পছন্দ করবেন না৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement