BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রসব বেদনায় কাতর অন্তঃসত্ত্বা, মেঝেতে পড়া রক্ত পরিষ্কার করাল হাসপাতাল

Published by: Paramita Paul |    Posted: April 20, 2020 7:33 pm|    Updated: April 21, 2020 12:37 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রসববেদনা উঠতেই হাসপাতালে ছুটেছিলেন। গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতো রক্তপাতও হচ্ছিল। এমন পরিস্থিতিতে হাসপাতালে ভরতি নেওয়া তো দূরে থাক, অন্তঃসত্ত্বাকে দিয়ে হাসপাতালের মেঝেতে পরে থাকা রক্ত পরিষ্কার করানোর অভিযোগ উঠেছে। এমনকী, বাংলার পড়শি রাজ্যে ঝাড়খণ্ডের ওই মহিলা করোনা ছড়াচ্ছে, এমন গুজবও ছড়িয়ে পড়ে হাসপাতালে। আর হাসপাতালের এই অমানবিক আচরণে গর্ভেই ভ্রণটি নষ্ট হয়ে যায় বলে অভিযোগ। খবর পেয়েই ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেণের উদ্দেশে একটি টুইট করে জাতীয় মহিলা কমিশন। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানিয়েছে তারা। তারপরেই ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। পাশাপাশি, মহিলার অভিযোগ, “ইসলাম ধর্মীলম্বী হওয়ায় আমার সঙ্গে এমন আচরণ করা হল।”

রবিবার মহিলা কমিশনের করা টুইটে লেখা হয়, এক অন্তঃসত্ত্বা মহিলার রক্তপাত হচ্ছিল। তিনি জামসেদপুরের এক হাসপাতালে আসেন। অভিযোগ, তাঁকে মেঝেতে পড়ে থাকা রক্ত পরিষ্কার করতে বাধ্য করা হয়। তিনি করোনা ভাইরাস ছড়াচ্ছে বলেও অভিযোগ করা হয়। যার জেরে গর্ভেই ভ্রুণটি নষ্ট হয়ে যায়।” সে রাজ্যের মুখ্যসচিবকেও চিঠি দেয় মহিলা কমিশন।

[আরও পড়ুন : সাইকেল চালিয়ে পার ১৭০০ কিলোমিটার! ৭ দিনের চেষ্টায় বাড়ি ফিরলেন যুবক]

সূত্রের খবর, ৩০ বছরের ওই মহিলা ইসলাম ধর্মালম্বী। তিনি গোটা ঘটনার কথা জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছেন। তাঁর অভিযোগ, মুসলিম হওয়ার জন্যই আমাকে দিয়ে রক্ত পরিষ্কার করানো হল। গোটা ঘটনার তীব্র নিন্দা করে আরও একটি টুইট করেন জাতীয় মহিলা কমিশন। তাঁদের কথায়,”এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক, এমন সংকটকালীন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যকর্মীরা এরকম অমানবিক আচরণ করছে।”

[আরও পড়ুন : লকডাউনের জের, মহাভারত পড়ে দিন কাটালেন গুহাবন্দি ইঞ্জিনিয়ার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement