৩ কার্তিক  ১৪২৬  সোমবার ২১ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ কার্তিক  ১৪২৬  সোমবার ২১ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শুক্রবার সকালে দিল্লিতে অবস্থিত এই মহান নেতার স্মৃতিতে তৈরি মেমোরিয়াল ‘সদৈবঃ অটল’-এ গিয়ে পুষ্পস্তবক দেন তাঁরা। গত বছর ১৬ আগস্ট দিল্লির এইমস হাসপাতালে মৃত্যু হয় কিংবদন্তিতে পরিণত হওয়া ওই জননেতার। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর।

[আরও পড়ুন: বুরারির ছায়া কর্ণাটকে, পরিবারকে খুন করে আত্মঘাতী যুবক]

শুক্রবার সকালে তাঁকে শ্রদ্ধা জানাতে ‘সদৈবঃ অটল’ মেমোরিয়ালে যান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, বিজেপির কার্যকারী সভাপতি জেপি নাড্ডা-সহ অন্যরা। এই উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী বাজপেয়ীজির পালিত কন্যা নমিতা কউল ভট্টাচার্য এবং নাতনি নীহারিকাও।

সকালে টুইট করে প্রয়াত নেতার আত্মার শান্তি কামনা করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। দেশের মানুষকে অটলবিহারী বাজপেয়ীর আদর্শকে অনুসরণ করার পরামর্শ দেন। বাজপেয়ীজি প্রধানমন্ত্রী থাকার সময় রেল মন্ত্রকের দায়িত্ব সামলে ছিলেন মমতা। পুরনো সেই দিনের কথা স্মরণ করে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর আদর্শের ভূয়সী প্রশংসা করেন। সবাইকে প্রাক্তন ওই জননেতার তিনটি আদর্শ ‘ইনসানিয়াত (মনুষ্যত্ব), জামহুরিয়াত ও কাশ্মীরিয়াত (কাশ্মীরি সংস্কৃতি)’ মেনে চলার পরামর্শ দেন। টুইট করেন, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীজিকে তাঁর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানাই। আসুন আজ তাঁর কথাগুলি স্মরণ করি। তিনি বলেছিলেন, বন্দুক কখনও সমস্যার সমাধান করতে পারে না। ‘ইনসানিয়াত, জামহুরিয়াত ও কাশ্মীরিয়াত’ এই তিনটি আদর্শ মেনে চললে যেকোনও সমস্যার সমাধান হবে।

[আরও পড়ুন: বদলাচ্ছে এটিএম থেকে টাকা তোলার নিয়ম, বড় সিদ্ধান্ত রিজার্ভ ব্যাংকের]

বিজেপির জনক ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের আপ্তসহায়ক হিসেবে রাজনৈতিক জীবনের সূচনা হয়েছিল অটলবিহারী বাজপেয়ীর। ১৯৯৬ সালে কিছুদিনের জন্য বিজেপির প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতায় এসেছিলেন তিনি। তারপর ১৯৯৮ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত দুবার প্রধানমন্ত্রী পদে বসেন। দেশের প্রতি অবদানের জন্য ২০১৪ সালে ভারতরত্ন সম্মানও পেয়েছিলেন তিনি। আর গতবছর মৃত্যুর পর তাঁর জন্মদিন ২৫ ডিসেম্বরকে সুশাসন দিবস হিসেবে পালন করতে শুরু করেছে বিজেপি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং