১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  সোমবার থেকেই ৩৭০ ধারা বিলোপ নিয়ে তুমুল বিবাদ চলছে সংসদের দুই কক্ষে। ইতিমধ্যেই দুই কক্ষে জম্মু ও কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল পাশও হয়ে গিয়েছে। সোমবারই তা রাজ্যসভায় পাশ হয়ে যায়। বিরোধী শিবির রীতিমতো বিভক্ত হয়ে যায় ভোটাভুটির সময়। অনেক বিরোধী দলই সমর্থন করে কেন্দ্রকে। মঙ্গলবার লোকসভাতেও বিলটি পাশ হয়ে গিয়েছে বিপুল সমর্থনে। বিল পাশ হওয়ার পর মুখ খুলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও। বললেন, “আমরা এক। আমরা একসঙ্গে এগিয়ে যাব। কাশ্মীরের ভাই-বোনেদের বিশেষ ধন্যবাদ। এতদিন আপনাদের আবেগকে কাজে লাগিয়ে ওরা নিজেদের স্বার্থসিদ্ধি করেছে। সাধারণ মানুষের কথা ভাবেনি। এবার শৃঙ্খলামুক্ত হল জম্মু ও কাশ্মীর। নতুন সূর্যোদয়, আগামীকাল আরও ভাল হবে।”

[আরও পড়ুন: ৩৭০ ধারার অবলুপ্তি ঘটিয়ে মেহবুবা মুফতির কথা রাখলেন মোদি! কীভাবে জানেন?]

কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বিলোপ থেকে শুরু করে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভেঙে দেওয়া। সবেতেই সক্রিয় ভূমিকায় দেখা গিয়েছে অমিত শাহকে। সে অর্থে প্রধানমন্ত্রী ছিলেন আড়ালেই। লোকসভায় বিল পাশ হতেই মুখ খুললেন। মুখ খুলে মোদি বললেন, “আমি জম্মু ও কাশ্মীরবাসীকে স্যালুট জানায়। বছরের পর বছর তাঁরা যেভাবে আমাদের সঙ্গে আছে। আমরা সকলেই এক, এবং একসঙ্গে উপরে উঠব। বিশেষ শুভেচ্ছা লাদাখবাসীর জন্য। তাদের দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ হয়েছে।”

[আরও পড়ুন: দ্রুত রাজ্যের মর্যাদা ফিরে পেতে পারে কাশ্মীর, সংসদে ইঙ্গিত অমিত শাহর]

৩৭০ ধারা বিলোপের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের তরফে হুমকি আসছিল সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার। এবার সত্যি সত্যিই রাষ্ট্রপতির নির্দেশের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতে মামলা দায়ের করলেন এক আইনজীবী। তাঁর দাবি, কেন্দ্র যেভাবে রাষ্ট্রপতির ক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে ৩৭০ ধারা বিলোপ করল সেটা বেআইনি। কে এল শর্মা নামের ওই আইনজীবীর দাবি, ৩৭০ অনুচ্ছেদ খারিজ করতে গেলে জম্মু-কাশ্মীরের বিধানসভায় তা নিয়ে আলোচনা করতে হত। কিন্তু, তা না করেই একতরফা ভাবে ওই অনুচ্ছেদ বাতিল করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং