BREAKING NEWS

১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

প্রাপ্তবয়স্ক হাদিয়ার বিয়ে নিয়ে এনআইএ তদন্ত নয়: সুপ্রিম কোর্ট

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 23, 2018 9:56 am|    Updated: January 23, 2018 9:56 am

Probe terror charges not marriage: SC to NIA

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কেরলের লাভ জেহাদের মামলায় আদালতে মুখ পুড়ল ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি বা NIA-এর। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিয়েছে, কোনও প্রাপ্তবয়স্ক যুবতী যদি বলেন, তিনি নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করেছেন, তাহলে সেই বিয়ে নিয়ে তদন্ত করতে পারে না জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা। আদালতের বক্তব্য, ‘হাদিয়া প্রাপ্তবয়স্ক। আদালতে দাঁড়িয়ে নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করার কথা জানিয়েছেন তিনি। তাই এ বিষয়ে আদালতের কীই বা করার আছে?’ এমনকী, ওই যুবতীকে বেআইনিভাবে আটকে রাখার যে অভিযোগ উঠেছে, সে বিষয়েও হাদিয়ার বক্তব্যই চূড়ান্ত বলে গণ্য করা হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

[উর্ধ্বতন মহিলা অফিসারের সঙ্গে পরকীয়া, হাতেনাতে পাকড়াও পুলিশকর্মী]

কেরলের ভাইকুম শহরের থাকেন বছর চব্বিশের যুবতী হাদিয়া। জন্মসূত্রে তিনি হিন্দু। আগে ওই যুবতীর নাম ছিল আখিলা। কলেজে পড়াকালীন ভালবেসে শেফিন জাহান নামে এক মুসলিম ব্যক্তিকে বিয়ে করেন তিনি। বিয়ের পর নিজের ধর্মও পালটে ফেলেন। ইসলাম ধর্মগ্রহণ করার পর, ওই যুবতীর নাম হয় হাদিয়া। বিষয়টি জানতে পেরেই আদালতের দ্বারস্থ হন হাদিয়ার পরিবারের লোকেরা। আশুকোন কেএমের অভিযোগ, তাঁর মেয়ে লাভ জেহাদের শিকার। বিয়ের ফাঁদে ফেলে ওই যুবতীকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে বাধ্য করেছেন শেখিন জাহান। কেরল হাই কোর্টে এই বিয়ে বাতিল করে দেওয়ার আরজি জানান হাদিয়ার বাবা। সেই আরজি খারিজ করে, এই মামলায় এনআইএ তদন্তের নির্দেশ দেয় আদালত। কেরল হাই কোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেন হাদিয়ার স্বামী শেফিন জাহান।

[ভারতীয় প্রেমিকের সঙ্গে পাক কন্যার বিয়ে দিয়ে মন জিতলেন সুষমা]

সুপ্রিম কোর্টে এখন এই মামলার শুনানি চলছে। হাদিয়া আদালতকে জানিয়েছেন, তাঁর উপর কোনও চাপ ছিল না। নিজের ইচ্ছায় শেফিন জাহানকে বিয়ে করেছেন তিনি। তাঁর বক্তব্যকে মান্যতা দিয়েই শীর্ষ আদালত সাফ জানিয়ে দিল, কোনও প্রাপ্তবয়স্ক মহিলা যদি বলেন তিনি নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করেছেন, তাহলে সেই বিয়ে নিয়ে তদন্ত করতে পারে না এনআইএ। এমনকী, হাদিয়ার বিয়ে নিয়ে যে আদালতেরও কিছুই করার নেই, তাও মেনে নিয়েছেন বিচারপতি।

[কারগিলে লড়েছিলেন বন্দুক হাতে, এবার পাক হ্যাকারদের ত্রাস সেনা অফিসার]

প্রসঙ্গত, এনআইএ সুপ্রিম কোর্টকে জানিয়েছিল, হাদিয়ার বিয়েটা সম্ভবত লাভ জেহাদ। কেরলের বিভিন্ন হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের অভিযোগ, হিন্দু যুবতীদের প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করছেন মুসলিম যুবকরা। বিয়ের পর তাঁদের ইসলাম ধর্ম গ্রহণের জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে। এই ঘটনাই লাভ জেহাদ নামে পরিচিত।

[জন্মদিনে দেশের বীর সন্তানকে স্মরণ মোদি-কোবিন্দ-মমতার ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে