৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সেনাকে নিয়ে রাজনীতি করব না। শাসক-বিরোধী দুই শিবিরই একসঙ্গে অঙ্গীকার করেছিল হামলার পর। কিন্তু সে যেন শুধু মুখের কথা। বাস্তব প্রতিফলন বরং উলটো। জঙ্গি হামলায় শহিদ পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর থেকে হামলার রাজনৈতিক ফায়দা তোলায় যেন মূল লক্ষ্য। পুলওয়ামা হামলার পর থেকে শাসক-বিরোধী দুই শিবিরের একাধিক নেতাই মেতেছেন রাজনীতির খেলায়। সেই শিবিরের নবতম সংযোজন কংগ্রেস নেতা বি কে হরিপ্রসাদ।

[নজরে লোকসভা, গোয়ালিয়রে আরএসএসের স্ট্র্যাটেজি বৈঠকে শীর্ষ নেতারা]

কংগ্রেস নেতার অভিযোগ, পুলওয়ামা হামলা এবং তারপর ভারতের করা এয়ারস্ট্রাইক পুরোটাই মোদি-ইমরানের ম্যাচ ফিক্সিং। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদের একটি মন্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে এদিন হরিপ্রসাদ বলেন, “আগে রবিশংকরকে বলতে হবে, ইমরান খান এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে কোনও ম্যাচ ফিক্সিং নেই তো? মোদি বা ইমরানের অজান্তে এই হামলা হতেই পারে না।” ম্যাচ ফিক্সিং তত্ত্বের পিছনে নিজের যুক্তিও দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা। তিনি বলেন, “যদি পুলওয়ামা হামলার পরবর্তী ঘটনাগুলি সাজানো যায়, তাহলেই বোঝা যাবে এতে মোদি ইমরানের ম্যাচ ফিক্সিং আছে।” তিনি বলেন, “জম্মু কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকও স্বীকার করে নিয়েছেন এই হামলার জন্য গোয়েন্দা দপ্তরের সম্পূর্ণ ব্যর্থতাই দায়ী।” হরিপ্রসাদের এই মন্তব্যের পর তীব্র প্রতিক্রিয়া এসেছে বিজেপির তরফ থেকে। রবিশংকর প্রসাদই তাঁকে পালটা তোপ দেগে বলেছেন, ” কংগ্রেস নেতা হরিপ্রসাদ সমস্ত সীমা লঙ্ঘন করেছেন। ইমরান-মোদির ম্যাচ ফিক্সিংয়ের কথা বলে উনি আসলে দেশের সেনা এবং দেশকে অসম্মান করেছেন।” তাঁর দবি রাহুল গান্ধীর ইশারাতেই এমনটা বলছেন কংগ্রেস নেতারা। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, ” আমি কংগ্রেসের কাছে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানাব না, দেশ ওদের এই ধরনের মন্তব্যের জন্য শাস্তি দেবে। এই মন্তব্যগুলি রাহুল গান্ধীর নির্দেশেই করছেন কংগ্রেস নেতারা।”

[যারা লুট করে তারা পালিয়েছে, আমি কোনওদিন দেশ ছাড়ব না: রবার্ট বঢরা]

উল্লেখ্য, এদিন সকালেই সাংবাদিক বৈঠকে পুলওয়ামা এবং এয়ারস্ট্রাইক নিয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেন কংগ্রেস সভাপতি। তবে তিনি বলেন, “আমি শুনেছি শহিদ পরিবারের কেউ কেউ এয়ারস্ট্রাইকে হামলায় নিহত জঙ্গিদের দেহ দেখতে চাইছে। তাদের মতকে আমি সম্মান করি।” কংগ্রেস সভাপতির পালটা দিয়েছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহও। তিনি বলেন,”রাহুল গান্ধী এয়ারস্ট্রাইকের প্রমাণ চেয়েছেন। ওনার লজ্জা হওয়া উচিত। “

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং