৩২ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ১৮ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩২ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ১৮ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায় ও কুমারেশ হালদার: তাঁকে নিয়ে চর্চার অন্ত নেই৷ কথায় কথায় তাঁর লেখা কবিতা আওড়ে চলে ভাষণ৷ দেশবাসীর আবেগ নাড়িয়ে তাঁকে নিয়ে চলে প্রচার৷ তবে, তাঁকে নিয়ে দেদার বাড়াবাড়ি চললেও খোদ ভারতীয় গণতন্ত্রের আস্তাবলেই নীরবে থেকে গেল রবিঠাকুরের জন্মদিনের অনুষ্ঠান৷

আজ ২৫ বৈশাখ৷ গোটা দেশ জুড়ে চলছে রবীন্দ্র উদযাপন৷ কিন্তু, খোদ সংসদের সেন্ট্রাল হলে দায়সারা গোছের রবীন্দ্রজয়ন্তী পালন করল কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদির সরকার৷ সামান্য ফুল-মালা দিয়ে রবিঠাকুরের ছবি সাজানো হলেও দেখা মিলল না নেতা-মন্ত্রীদের৷ এদিন কেন্দ্রের সংসদীয় বিষয়ক মন্ত্রী অনন্ত কুমার ও এল কে আদবানি রবিঠাকুরের ছবি মালা দিয়ে নিজেদের দায় এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন৷ কেন্দ্রীয় তরফে দুই গুরুত্বপূর্ণ নেতা হাজির থাকলেও দেখা মেলেনি বিজেপির তাবড় নেতা-মন্ত্রী-সাংসদদের৷ ছিলেন না বাংলার কোনও সাংসদই৷ দেখা যায়নি প্রধানমন্ত্রীকেও৷

এদিনের এই ঘটনার কথা প্রথম ফাঁস করেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন৷ সেন্ট্রাল হলে বিজেপির তরফে কোনও সাংসদের দেখা না মেলায় চূড়ান্ত ক্ষোভ প্রকাশ করেন তৃণমূলের রাজ্যসভার নেতা ডেরেক৷ তিনি নিজের হাতে রবিঠাকুরের ছবিতে ফুল-মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর সংবাদমাধ্যমে নিজের ক্ষোভ উগড়ে দেন৷ রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে বিজেপির রাজনীতি করার অভিসন্ধি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি৷

[মালা ‘ব্যাকডেটেড’, ট্রোল-মিমে রবীন্দ্রনাথ স্মরণে বাঙালির নয়া প্রজন্ম]

বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে আমরা সব মনীষীদের সমান সম্মান করি৷ অাম্বেদকরকেও সম্মান করি৷ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকেও শ্রদ্ধা করি৷ কিন্তু, বিজেপি মুখেই শুধু বড়বড় কথা বলে৷ কিন্তু, শ্রদ্ধা দেখানোর সময় তাঁদের আর দেখা যায় না৷’’ ডেরেকের প্রশ্ন, রবিঠাকুরের প্রতি এমন মনোভাব দেখিয়ে বাংলায় গিয়ে বিজেপির নেতারা রবিঠাকুরের কবিতা আওড়ে বাংলার সংস্কৃতি নিয়ে নিয়ে বড়াই করেন কেন? এটা কি শুধুই ভোট পাওয়ার কৌশল? ‘‘রবিঠাকুরকে সম্মান জানাতে কোথায় কোথায় বাবুল? কোথায় রূপা? বাংলার বড় নেতারা? এরা তো দিল্লিতেই থাকেন৷ কিন্তু, সম্মান দেখানোর সময় কোথায় গেলেন বিজেপির বড় নেতারা?’’ প্রশ্ন তোলেন ডেরেক৷

[প্রয়াত বর্ষীয়ান অভিনেত্রী ললিতা চট্টোপাধ্যায়, টলিপাড়ায় শোকের ছায়া]

ভোট এলেই বাংলায় রবীন্দ্রনাথ-বিবেকানন্দকে নিয়ে শুরু হয় টানাটানি৷ চলে জোরদার প্রচার৷ কিন্তু, সম্মান দেখানোর সময় বিজেপির নেতা মন্ত্রীদের গরহাজিরা নিয়ে সাধারণ মানুষের মনেও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ কারণ, বিজেপি যখন রাজ্যে ক্ষমতা দখলের লড়াইয়ে সব দিয়ে মাঠে নেমেছে, ঠিক তখনই রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে কেন এত অনীহা? সাধারণ মানুষের প্রশ্ন, রাম নবমী নিয়ে মাতামাতি চললেও রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে কেন কিছুই ভাবল না বিজেপি? রবিঠাকুর কী বাঙালির আবেগে সুড়সুড়ি দেওয়ার অস্ত্র হয়ে হিসাবে ব্যবহার করছে বিজেপি? প্রশ্ন ওয়াকিবহাল মহলের।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং