২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ফের বাড়তে পারে ট্রেনের ভাড়া

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 19, 2017 3:25 am|    Updated: May 19, 2017 3:27 am

Railway safety cess likely to make train tickets costlier

এবার বাড়তে পারে লোকাল ট্রেনের টিকিটের দাম...

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দ্রুতই বাড়তে পারে ট্রেনের ভাড়া৷ এমনই ইঙ্গিত রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভুর৷ প্যাসেঞ্জার ট্রেনের টিকিটের দামে বসতে চলেছে ‘সেফটি সেস’৷ মোট ভাড়ার ২ শতাংশ হতে পারে এই ‘সেফটি সেস’৷ যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য বসানো হচ্ছে এই নতুন সেস৷ দেশের সবচেয়ে বড় গণ-পরিবহণ ব্যবস্থাকে নিরাপদ ও লাভজনক করে তুলতেই এই উদ্যোগ বলে রেল সূত্রে খবর৷

এই মুহূর্তে ভারতীয় রেল ক্ষতিতে চলছে৷ রেলের কাঁধে প্রায় ৩২ হাজার কোটি টাকার দেনা রয়েছে৷ তবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উদ্যোগে রেল ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানোর কাজ চলছে৷ কোন খাতে ভর্তুকি কমিয়ে এনে লাভ বাড়ানো যায়, সেই সব দিক খতিয়ে দেখছে রেল৷ নয়া সেস বসানোর বিষয়ে রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু গত মঙ্গলবারই বলেন, “প্যাসেঞ্জার ট্রেনের টিকিটের উপর সেফটি সেস বসানোর চিন্তা ভাবনা চলছে৷” তবে কবে থেকে এই নয়া সেস বসবে সে বিষয়ে খোলসা করে কিছু বলেননি তিনি৷

[চিনকে ‘ঠান্ডা’ করতে সীমান্তে দীর্ঘতম সেতু গড়ল ভারত]

রেলের এক শীর্ষ আধিকারিক এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, প্রতিদিন ১৯ হাজার ট্রেনে চেপে প্রায় ২ কোটি ৩০ লক্ষ মানুষ যাতায়াত করেন৷ সংখ্যাটা অস্ট্রেলিয়ার মতো একটি দেশের মোট জনসংখ্যার সমান৷ ৬৪ হাজার কিলোমিটার লাইনের নেটওয়ার্ক রয়েছে ভারতীয় রেলের৷ এই দীর্ঘ যাত্রাপথকে সুরক্ষিত রাখতে কালঘাম ছুটে যায় রেল আধিকারিকদের৷ ১৯৯৯-২০০৯, এই ১০ বছরে রেল দুর্ঘটনায় ৩০০০ জনেরও বেশি যাত্রী নিহত হয়েছেন৷ তাই রেলের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা বিধির উপর এখন বিশেষ গুরুত্ব দিতে চাইছে রেল৷

শেষবার রেলের ভাড়ায় সুরক্ষা সেস বসানো হয়েছিল ২০০২-এ রেলমন্ত্রী নীতিশ কুমারের জমানায়৷ সেই সময় প্রায় ১৭ হাজার ৫০০ কোটি টাকা খরচ করে বিশেষ ফান্ড তৈরি করা হয়েছিল৷ পুরনো ব্রিজ ভেঙে নতুন রেল ব্রিজ, সিগন্যালিং ও রেললাইনের আধুনিকীকরণ করা হয়৷ কিন্তু সেই তুলনায় ভাড়া বাড়ানো হয়নি৷ চলতি বছরও রেলের প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে৷ এসি-১ ও এসি-২ ক্লাসের ভাড়া বাড়ানো হলেও অ-সংরক্ষিত কামরা ও শহরতলির ট্রেনের ভাড়া বাড়ানো হয়নি৷ কিন্তু রেলের মোট যাত্রীর প্রায় ৯৪ শতাংশই এই অ-সংরক্ষিত কামরাতে যাতায়াত করেন৷ রেলের এক কর্তা বলছেন, “ক্ষতির বোঝা কমাতে ও লাভের মুখ দেখতে এবার লোকাল ট্রেন, অ-সংরক্ষিত কামরার ভাড়া না বাড়ালে চলছে না৷”

[মোদির কূটনৈতিক ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’, চিনা সাবমেরিন ঠাঁই পেল না লঙ্কায়]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে