BREAKING NEWS

১৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ভারতীয় সেনাকে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি দিয়ে সাহায্যের অঙ্গীকার আমেরিকার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: October 25, 2017 11:34 am|    Updated: October 25, 2017 11:38 am

Ready to supply latest military technology to India: Rex Tillerson

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতের তিন বাহিনিকেই ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্র। একের পর এক নয়া মারণাস্ত্র, প্রযুক্তি, গাড়ি, যুদ্ধবিমান, ডুবোজাহাজ, ড্রোন, সাঁজোয়া গাড়ি-সহ যাবতীয় সামরিক সরঞ্জাম সেনার হাতে তুলে দিতে লালফিতের জট আলগা হচ্ছে দ্রুত। এবার দুদিনের ভারত সফরে এসে ইউএস সেক্রেটারি অফ স্টেট রেক্স টিলারসন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে আশ্বাস দিলেন, এফ-১৬ ও এফ-১৮ যুদ্ধবিমান নিয়ে ভারতের সঙ্গে দ্রুত চুক্তিবদ্ধ হতে চায় আমেরিকা। বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গেও দেখা করতে পারেন টিলারসন।

[ঘামের মতো মহিলার সর্বাঙ্গ থেকে ঝরছে রক্ত, তাজ্জব চিকিৎসকরা]

স্টেট অফ আর্ট প্রযুক্তিতে নির্মিত এই নয়া প্রজন্মের যুদ্ধবিমানগুলি বেশ কিছুদিন ধরেই চেয়ে আসছে ভারতীয় বায়ুসেনা। বুধবার টিলারসন আশ্বাস দিয়েছেন, ভারতীয় সেনার হাতে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি তুলে দিতে সাহায্য করবে পেন্টাগন। তিনি আরও জানিয়েছেন, ভারত ও আমেরিকা বহুদিনের বন্ধু। এদিন এক যৌথ সাংবাদিক বৈঠকে সুষমা ও টিলারসন একযোগে বিশ্ব সন্ত্রাসবাদের নিন্দা করেন। সুষমা স্বরাজ বলেন, আফগানিস্তানে সাম্প্রতিক জঙ্গি হামলা স্পষ্ট করে দিচ্ছে পাকিস্তান এখন জঙ্গিদের স্বর্গরাজ্য। জঙ্গিবাদকে কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে বলে কড়া ভাষায় মন্তব্য করেছেন টিলারসন। জঙ্গিদের নিরাপদ আশ্রয়দাতাকে বরদাস্ত করা হবে না বলে নাম না করে পাকিস্তানকে বার্তা দেন ইউএস সেক্রেটারি অফ স্টেট। আসন্ন ডিসেম্বরে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ভারত, আমেরিকা ও আফগানিস্তান একসঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসবে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাম্প্রতিক মার্কিন সফরের পর দুই দেশের মধ্যে প্রতিরক্ষা ও কৌশলগত সম্পর্ক আরও দৃঢ় হয়েছে বলে মন্তব্য করেন সুষমা স্বরাজ।

[বানচাল নাশকতার ছক, বাংলাদেশে গ্রেপ্তার কুখ্যাত জেএমবি জঙ্গি]

এর পাশাপাশি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কন্যা ইভাঙ্কা ট্রাম্পকে ভারতে আসার আন্তরিক আমন্ত্রণ জানান বিদেশমন্ত্রী। এইচ১বি ভিসা নীতি নিয়ে এখনই কোনও পরিবর্তন না এলেও এতে ভারত ও আমেরিকার মধ্যে মিত্রতায় কোনও প্রভাব পড়বে না বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। টিলারসনের সঙ্গে উত্তর কোরিয়া প্রসঙ্গেও কথা হয় সুষমার। নয়াদিল্লির সঙ্গে পিয়ংইয়ংয়ের বাণিজ্যিক সম্পর্ক এখন প্রায় তলানিতে ঠেকেছে। কোনওমতে সে দেশে ভারতের একটি দূতাবাস রয়েছে। তবে সাম্প্রতিক অচলাবস্থা কাটাতে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে কূটনৈতিক আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে রায় দিয়েছেন সুষমা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে