১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শুক্রবার ৩ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

৫ পাক সেনাকে নিকেশ করল ভারতীয় সেনার স্পেশ্যাল ফোর্স

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 1, 2017 7:06 am|    Updated: June 1, 2017 8:10 am

Revenge for fallen comrades, Indian army kills 5 Pakistani BAT commandos

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানের বর্ডার অ্যাকশন টিমের (BAT) পাঁচ সদস্যকে নিকেশ করল ভারতীয় সেনার স্পেশ্যাল ফোর্স৷ কেন্দ্রের এক শীর্ষ আধিকারিককে উদ্ধৃত করে খবরটি জানিয়েছে লাইভ মিন্ট৷ বুধবার জম্মু ও কাশ্মীরে নিয়ন্ত্রণরেখার কাছে মুজফফরবাদ সেক্টরে সেনার প্যারা কমান্ডোরা শত্রুপক্ষের পাঁচ সদস্যকে নিকেশ করে৷

[ফের অশান্ত জম্মু ও কাশ্মীর, সেনার গুলিতে নিকেশ দুই পাক জঙ্গি]

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই আধিকারিক বলেছেন, “প্যারা কমান্ডোদের নিয়ন্ত্রণরেখার কাছে ‘ব্যাট’ সদস্যদের খুঁজে বার করে নিকেশ করায় সবুজ সঙ্কেত দেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত৷ সেনাপ্রধানের আশঙ্কা, উপত্যকায় আসন্ন গ্রীষ্মে ব্যাট সদস্যরা ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে লো-গ্রেড ওয়ারফেয়ারে জড়াতে পারে৷” তার আগেই নিয়ন্ত্রণরেখা সংলগ্ন এলাকায় তল্লাশি অভিযান চালিয়ে শত্রুপক্ষের সেনাকে খতম করার নির্দেশ দিয়েছেন সেনাপ্রধান, জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কেন্দ্রীয় কর্তা৷

[বিধানসভা ভোটে গুজরাটে ১৫০ আসন জয়ের লক্ষ্যে নামছেন অমিত শাহ]

গত পয়লা মে, সীমান্তের কাছে কৃষ্ণা ঘাঁটিতে অতর্কিতে হামলা চালিয়ে দুই জওয়ানের মুণ্ডচ্ছেদ করে নিয়ে যায় ব্যাট৷ এই ঘৃণ্য মধ্যযুগীয় পন্থার তীব্র নিন্দা করে ভারত৷ শুরু হয় পাল্টা পাক সেনা ও জঙ্গিনিধন অভিযান৷ ২২ মে পাক সেনার বাঙ্কার লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণ করে ভারতীয় সেনাবাহিনী৷ নৌশেরা সেক্টরে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় পাক সেনাঘাঁটি৷ কেন্দ্রীয় বাহিনী আসন্ন গ্রীষ্ম জুড়েই এরকম অভিযান চালিয়ে যাবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে কেন্দ্র৷ এক সেনা আধিকারিক বলেছেন, “পাক বাঙ্কার গুঁড়িয়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলতে থাকবে৷ আমাদের আর একজনও জওয়ানও যেন শহিদ না হন৷” যদিও সেনা সূত্রে এই খবর এখনও প্রকাশ্যে স্বীকার করা হয়নি৷ সেনার মুখপাত্র অশোক নারুলা এদিনের অভিযানকে ‘রুটিন তল্লাশি’ বলে বিবৃতি দিয়েছেন৷

উপত্যকা থেকে জঙ্গিদের খুঁজে খুঁজে নিকেশ করতে প্রায় ১৫ বছর পর ফের সোপিয়ানে ‘কর্ডন অ্যান্ড সার্চ অপারেশন (CASO)’ শুরু করেছে সেনা৷ ৯০-এর দশকের পন্থায় ফিরে যাওয়ার কথা স্বীকার করে সেনার একটি সূত্র জানিয়েছে, বাড়ি বাড়ি জঙ্গিদের খোঁজে তল্লাশি অভিযান শুরু হওয়ায় জঙ্গিরা লুকানোর স্থায়ী ঘাঁটি পাবে না৷ সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত গত রবিবারই বলেছেন, কাশ্মীরে ‘নোংরা লড়াই’ লড়তে হচ্ছে কেন্দ্রীয় সশস্ত্র বাহিনীকে৷ ২৪ মে কেন্দ্রীয় অর্থ ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী অরুণ জেটলি প্রয়োজন পড়লে সেনাকে সর্বোচ্চ ক্ষমতা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন৷

[দিল্লির পূর্ত দপ্তরে দুর্নীতি ফাঁস করে হামলার শিকার সমাজকর্মী]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে