২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

মালিয়ার দেনায় ছাড় দিল এসবিআই

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 17, 2016 12:03 pm|    Updated: November 17, 2016 12:42 pm

SBI writes off loans owed by Vijay Mallya

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিতর্কিত ও ঋণখেলাপি শিল্পপতি বিজয় মালিয়ার সাধের কিংফিশার এয়ারলাইন্স এখন বন্ধ৷ ফলে তাদের কাছ থেকে ঋণের অর্থ আদায় করাও এখন বিশ বাঁও জলে৷ এই পরিস্থিতিতে মালিয়ার কিংফিশার এয়ারলাইন্স থেকে পাওনা প্রায় ১২০০ কোটি তাদের হিসাবের খাতা থেকে কার্যত মুছে দিল ভারতের সবচেয়ে বড় ব্যাঙ্ক, স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া৷

ব্যাঙ্কের তরফে জানানো হয়েছে, শুধু মালিয়ার কিংফিশার এয়ারলাইন্স নয়, অন্য অনাদায়ী ঋণও ‘অ্যাডভান্সড আন্ডার কালেকশন অ্যাকাউন্ট’ (এইউসিএ) নামে একটি ক্যাটাগরিতে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ যার অর্থ, আপাতত হিসাব মেলাতে ক্যাশবুক থেকে ওই অর্থ মুছে দেওয়া হলেও ভবিষ্যতে তা আদায়ের লক্ষ্যে সফল হওয়ার আশা করছে ব্যাঙ্ক৷ বিতর্কিত এই শিল্পপতির থেকে কয়েকটি ব্যাঙ্কের সম্মিলিত গোষ্ঠীর প্রায় ৯ হাজার কোটি টাকা পাওনা৷ সেই অর্থ শোধ করার বদলে তিনি গত মার্চে ব্রিটেনে পালিয়ে গিয়েছেন৷ সুপ্রিম কোর্ট তাঁকে সম্পত্তির পরিমাণ ঘোষণা করার নির্দেশ দিলেও তিনি তা করেননি৷ হাজিরা না দেওয়ায় মালিয়াকে আদালত ‘ঘোষিত অপরাধী’ আখ্যা দিয়েছে৷ তাঁর পাসপোর্ট বাতিল করেছে বিদেশমন্ত্রক৷ সিবিআই, এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট-সহ একাধিক কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থাও তাঁর বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়মের তদন্ত করছে৷ তা-ও মালিয়া দেশে ফেরার নাম করছেন না৷ স্বাভাবিকভাবেই স্টেট ব্যাঙ্কের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে রাজনৈতিক মহল সরগরম হয়ে উঠেছে৷

বিশেষত, যখন কালো টাকা উদ্ধারে পাঁচশো, হাজার টাকার নোট বাতিল নিয়ে সরকার ও বিরোধী দলগুলির দড়ি টানাটানি তুঙ্গে৷

বুধবারই এই সিদ্ধান্ত নিয়ে সংসদে বিরোধী পক্ষের আক্রমণের জবাবে মুখ খুলেছেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ রাজ্যসভায় তাঁর দাবি, “কিংফিশারের ঋণ মোটেই মকুব করা হয়নি৷ ব্যাঙ্কের হিসাবে তা নন পারফর্মিং অ্যাসেট (এনপিএ) হিসাবে গণ্য করা হবে৷ মুছে দেওয়ার অর্থ ঋণ মকুব করা নয়৷ তা আদায় করতে সব ধরনের চেষ্টাই চলবে৷” উল্লেখ্য, পাঁচশো-হাজারের নোট বাতিলে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক তথা সাংসদ সীতারাম ইয়েচুরি কিংফিশারের ঘটনাটি তোলেন৷ জেটলির জবাবের সূত্র ধরে ইয়েচুরি বলেন, “এই অর্থ আর আদায় করা হবে না৷” জেটলির তাতে কটাক্ষ, “আগের সরকারের আমলে কিংফিশারের নেওয়া ঋণ আদায়ের দায়িত্ব এখন তাঁদের ঘাড়ে চেপেছে৷ কিংফিশারের ঋণ শোধের বাধ্যবাধকতা থাকছেই৷ তাতে মোটেও ছাড় দেওয়া হচ্ছে না৷” যদিও স্টেট ব্যাঙ্কের এক প্রাক্তন চেয়ারম্যানের মত, কোনও ঋণ এইউসিএ অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেওয়ার অর্থ, ওই অর্থ আদায়ের আশা ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ কার্যত ছেড়েই দিয়েছে৷ ইতিমধ্যে গোয়ায় মালিয়ার বিলাসবহুল কিংফিশার ভিলা-সহ একাধিক সম্পত্তি নিলাম করার চেষ্টা করেও কোনও ক্রেতা পায়নি স্টেট ব্যাঙ্ক৷ আদৌ মালিয়ার ঋণের টাকা পুনরুদ্ধার করা যায় কি না, সেদিকেই তাকিয়ে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে