১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

নির্বাচিত সরকারকে ফেলার চেষ্টা! ঝাড়খণ্ডে বিজেপি সভাপতির বিরুদ্ধে দায়ের দেশদ্রোহিতার মামলা

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: November 1, 2020 6:03 pm|    Updated: November 1, 2020 6:22 pm

Sedition case registered against Jharkhand BJP chief। Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মধ্যপ্রদেশ ও কর্ণাটকের পর এবার বিজেপির নজরে নাকি ঝাড়খণ্ড! আগামী কয়েকমাসের মধ্যে সেখানে সরকার গঠন করবে গেরুয়া শিবির। সম্প্রতি একটি সাংবাদিক বৈঠকে এই মন্তব্য করেছিলেন ঝাড়খণ্ডের বিজেপি সভাপতি ও রাজ্যসভা সাংসদ দীপক প্রকাশ। এর জেরে তাঁর বিরুদ্ধে দুমকা থানায় দেশদ্রোহিতার মামলা দায়ের করলেন কংগ্রেসের জেলা সভাপতি শ্যামল কিশোর সিং (Shyamal Kishore Singh)। বিষয়টিকে ঘিরে প্রবল উত্তেজনাও তৈরি হয়েছে। বিজেপি এভাবেই গণতন্ত্রকে হত্যা করার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ বিরোধীদের।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, তিনটি বিধানসভা আসনে উপনির্বাচনের কারণে ঝাড়খণ্ড (Jharkhand)-এ যথেষ্ট উত্তেজনা রয়েছে। এর মাঝেই গত শুক্রবার একটি সাংবাদিক বৈঠক করে আগামী কয়েকমাসের মধ্যে রাজ্যে গেরুয়া শিবির সরকার গঠন করবে বলে দাবি করেন রাজ্যের বিজেপি সভাপতি দীপক প্রকাশ (Deepak Prakash)। এরপর শনিবার নির্বাচিত ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা (JMM)-কংগ্রেস (Congress) ও আরজেডি (RJD)’র জোট সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরানোর চক্রান্ত হচ্ছে অভিযোগ জানিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে দুমকা থানায় অভিযোগ দায়ের হয়।

[আরও পড়ুন: বিজেপিকে নকল করতে থাকলে কংগ্রেস ‘শূন্য’ হয়ে হবে, ‘নরম হিন্দুত্ব’ নিয়ে সতর্কবার্তা থারুরের]

এপ্রসঙ্গে দুমকার পুলিশ সুপার অম্বর লাকরা জানান, নির্বাচিত জোট সরকারকে ফেলার চক্রান্ত করছেন। এই অভিযোগে বিজেপির রাজ্য সভাপতি প্রকাশের বিরুদ্ধে দুমকা জেলার কংগ্রেস সভাপতি শ্যামল কুমার সিং পুলিশের কাছে দেশদ্রোহিতা (Sedition)’র অভিযোগ নথিভুক্ত করেন। এরপরই ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪এ, ১২০বি, ৫০৪ ও ৫০৬ ধারায় মামলা দায়ের করে প্রকাশের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে। এই ঘটনার সঙ্গে সম্পর্কিত সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সাক্ষ্যগ্রহণের কাজ চলছে। দোষ প্রমাণ হলে কড়া শাস্তি নেওয়া হবে।

যদিও এতে ভীত নন ঝাড়খণ্ডের বিজেপি সভাপতি দীপক প্রকাশ। উলটে ঝাড়খণ্ডের হেমন্ত সরকার সোরেনের সরকারের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে তিনি বলেন, গ্রেপ্তার হওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছি আমি। হেমন্ত সোরেন সরকারের যদি সাহস থাকে তাহলে আমাকে গ্রেপ্তার করে দেখাক। আসলে ঝাড়খণ্ডে হতে চলা তিনটি বিধানসভা আসনের উপনির্বাচনে তারা হারবে বলে জানে। তাই প্রতিশোধস্পৃহা থেকে এই ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে। আমার সাংবাদিক বৈঠকের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ থাকলে তারা নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হতে পারত। কিন্তু, তার বদলে ওরা দেশদ্রোহিতার মামলা করছে।

[আরও পড়ুন: একরত্তির কন্ঠে ‘বন্দে মাতরম’ শুনে মুগ্ধ প্রধানমন্ত্রী, রিটুইট করলেন মিজো-কন্যার গানের ভিডিও]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে