BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

অবশেষে নতি স্বীকার, জুতোপেটার জন্য ক্ষমা চাইলেন রবীন্দ্র গায়কোয়াড়

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 6, 2017 2:30 pm|    Updated: September 16, 2020 4:00 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশ জুড়ে বয়ে গিয়েছে নিন্দার ঝড়। বিমান চড়ায় জারি হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। তবু নিজের অভব্য আচরণের জন্য বিন্দুমাত্রও লজ্জিত বোধ করেননি শিব সেনা সাংসদ রবীন্দ্র গায়কোয়াড়। উল্টে সংসদে দাঁড়িয়ে এয়ার ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধেই অভিযোগ তোলেন  তিনি।তবে শেষমেশ মতবদল। অবস্থান পাল্টে, অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী অশোক গজপতি রাজুর কাছে ক্ষমা চেয়ে একটি চিঠি পাঠান তিনি।

এয়ার ইন্ডিয়া কর্মীকে জুতোপেটা করার ঘটনায় অভিযুক্ত গায়কোয়াড় বৃহস্পতিবার লোকসভায় বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, বিমানসংস্থার কর্মী তাঁর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন। এবং তারপর ঘটা ঘটনার জন্য দায়ী স্বয়ং ওই কর্মী। গায়কোয়াড় আরও বলেছিলেন, তাঁর কাজের জন্য সংসদের ভাবমূ্র্তিতে আঘাত লাগলে তিনি ক্ষমাপ্রার্থী। তবে কিছুতেই এয়ার ইন্ডিয়ার কাছে ক্ষমা চাইবেন না বলেও আগে সাফ জানিয়েছিলেন গায়কোয়াড়।

ওই ঘটনার প্রেক্ষিতেই শিব সেনা নেতা সঞ্জয় রাওয়াত মুম্বইয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছিলেন, শিব সেনা রবীন্দ্র গায়কোয়াড়ের আচরণ সমর্থন করে না৷ তবে প্রয়োজনে দলের নেতারা ‘হাত তুলবেন’৷ পুণে থেকে দিল্লি যাওয়ার জন্য এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানে একটি বিজনেস ক্লাস টিকিট বুক করেছিলেন রবীন্দ্র। কিন্তু পরে তাঁকে জানানো হয়, কিছু সমস্যার জন্য তাঁকে ইকোনমি ক্লাসে আসন দেওয়া হচ্ছে। তাতেই বেজায় চটে গিয়েছিলেন সাংসদ। দিল্লি পৌঁছনোর পরও তিনি বিমান থেকে নামতে অস্বীকার করেন। অভিযোগ, বিমানের মধ্যেই গোলমাল করতে শুরু করেন তিনি। হই-হট্টগোলের মধ্যে এক বিমানকর্মী তাঁকে নামতে বললে, ২৫ বার নিজের চপ্পল দিয়ে পেটান বলে জানিয়েছিলেন সাংসদ নিজেই। তাঁর সাফাই, ‘ওই আধিকারিক অভব্যতা করেছিল বলে তাঁকে মেরেছি। ২৫ বার চপ্পল দিয়ে মেরেছি। আমি শিব সেনার সাংসদ, বিজেপির নই যে অভদ্রতা সহ্য করব।’ অন্যদিকে, আহত বিমানকর্মীর অভিযোগ ছিল, সাংসদ তাঁকে সবার সামনে হেনস্তা করেছেন। চপ্পল দিয়ে মেরেছেন, এমনকী তাঁর চশমাও ভেঙে দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, ওই ঘটনার পর গায়কোয়াড়ের বিমান যাত্রার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভারতীয় বিমানসংস্থাগুলি। ইতিমধ্যে, একাধিকবার তাঁর টিকিট বাতিল করেছে এয়ার ইন্ডিয়া ও ইন্ডিগো। যদিও সমস্ত চাপের মুখেও নতি স্বীকার করতে দ্বিধা করেছিলেন ওই সাংসদ। তবে শেষমেশ ক্ষমা চেয়ে রফার পথেই হাঁটলেন তিনি।

[ভারত সফর নিয়ে তরজা উড়িয়ে শুক্রবার দিল্লি পৌঁছচ্ছেন হাসিনা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement