১৪ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

এবার তিন তালাক প্রথার ‘শিকার’ জাতীয় স্তরের খেলোয়াড়

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 23, 2017 7:43 am|    Updated: October 7, 2019 5:40 pm

Shyumla Javed, national netball champion says her husband gave Triple Talaq

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিন তালাক প্রথার ‘শিকার’ জাতীয় নেটবল খেলোয়াড় শুমায়লা জাভেদ৷ কন্যা সন্তানের জন্ম দেওয়ায় তাঁকে তিন তালাক দিয়েছেন স্বামী, অভিযোগ শুমায়লার৷ উত্তরপ্রদেশের আমরোহা জেলার কোতোয়ালি এলাকার ঘটনা, খবর সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের৷

[‘তিন তালাকের আবার অপব্যবহার কী?’]

বিবাহবিচ্ছেদের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে যোগী আদিত্যনাথের প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছেন এই জাতীয় খেলোয়াড়৷ তাঁর অভিযোগ, কন্যা সন্তানের জন্ম দেওয়া মেনে নিতে পারেননি স্বামী, তিনবার তালাক উচ্চারণ করে তাঁকে বিচ্ছেদ দেন৷ শ্বশুরবাড়িতেও তাঁর উপর অকথ্য অত্যাচার করা হত বলে জানিয়েছেন শুমায়লা৷ জেলাস্তর থেকে জাতীয় স্তরে একাধিকবার নিজের দক্ষতা প্রমাণ করেছেন এই নেটবল খেলোয়াড়৷ ২০১৪-র ৯ ফেব্রুয়ারি তাঁর বিয়ে হয়৷ শুমায়লা গর্ভবতী হওয়ার পরই তাঁর স্বামী তাঁদের আসন্ন সন্তানের লিঙ্গ জানতে মেডিক্যাল পরীক্ষা করান৷ দেখা যায়, শুমায়লার গর্ভে কন্যাসন্তান আসন্ন৷ তখনই শুমায়লাকে তাঁর বাবার কাছে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়৷

২০১৫-র ১৫ মে মোরাদাবাদের জেলা হাসপাতালে কন্যার জন্ম দেন শুমায়লা৷ তখন থেকেই তাঁর স্বামী ফারুখ আলি তাঁর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করত বলে অভিযোগ করেছেন শুমায়লা৷ ২০১৬-র ৪ ফেব্রুয়ারি টেলিফোনে শুমায়লাকে তালাক দেন ফারুখ৷ শুমায়লা এখন তাঁর বাবার কাছে থাকেন৷ এখন বিচার পেতে শুমায়লা যোগী আদিত্যনাথের দ্বারস্থ হয়েছেন৷ তিনি জানতে পেরেছেন, তিন তালাকের মতো প্রথার অবসান ঘটাতে উদ্যোগী হয়েছে কেন্দ্র সরকার৷ সরকারের কাছে শুমায়লার আবেদন, তাঁর মতো খেলোয়াড়ের মনঃসংযোগ নষ্ট হচ্ছে এই মানসিক যন্ত্রণার মধ্যে পড়ে৷ সরকার যেন এর সুরাহা করে৷

[‘হিন্দুরা সতীদাহ রদ করেছে, মুসলিমদের উচিত তিন তালাক নিষিদ্ধ করা’]

কয়কেদিন আগেই তিন তালাক ইস্যুতে সমাজের বিশিষ্টজনদের একাংশের নীরবতা তাঁকে চমকে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ও বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ চন্দ্রশেখরের প্রসঙ্গ টেনে এনে তিনি বলেন, “চন্দ্রশেখরও অভিন্ন দেওয়ানি বিধির পক্ষে ছিলেন।” প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী চন্দ্রশেখরের উপর একটি বই প্রকাশের অনুষ্ঠানে এসে লখনউতে তিনি বলেছিলেন, “যাঁরা তিন তালাকের মতো প্রথার বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন না, তাঁরাও সমান দোষী।”

[তিন তালাক নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের শুনানি ১৯ মে-র মধ্যে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে