BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘কৃষ্ণা বসুর মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব না আনায় মর্মাহত’, লোকসভার অধ্যক্ষকে চিঠি সুগতর

Published by: Paramita Paul |    Posted: March 15, 2020 6:05 pm|    Updated: March 15, 2020 6:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত মাসে প্রয়াত হয়েছেন নেতাজি পরিবারের সদস্য কৃষ্ণা বসু। টানা তিন বছর তিনি সাংসদ ছিলেন। অথচ সংসদের অধিবেশনে তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব আনা হয়নি। এই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লাকে চিঠি দিলেন তৃণমূলের প্রাক্তন সাংসদ সুগত বসু। এই ঘটনায় প্রাক্তন সাংসদ মর্মাহত বলেও জানিয়েছেন।

চিঠিতে তিনি লেখেন, “আমাদের মা কৃষ্ণা বসু টানা তিন বছর লোকসভার সদস্য ছিলেন। এমনকী তিনি বিদেশ সংক্রান্ত বিষয়ে সংসদের স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়্যারম্যানও (১৯৯৯-২০০৪) ছিলেন। তিনি ২২ ফেব্রুয়ারি মারা গিয়েছেন। এরপর প্রায় দু’সপ্তাহ সংসদে অধিবেশন চলেছে। অথচ লোকসভায় তাঁর জন্য শোকপ্রস্তাব আনা হয়নি। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা।”

[আরও পড়ুন : করোনা আক্রান্ত সন্দেহে কোয়ারেন্টাইনে, ভিডিও কলেই বাবার শেষকৃত্যের সাক্ষী ছেলে]

পরিবার সূত্রে খবর, চার বছর আগে স্ট্রোক হয়েছিল কৃষ্ণা বসুর। সেবার সেরে উঠলেও শারীরিক অবস্থা তেমন ভাল যাচ্ছিল না। ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। তারপরই তাঁকে কলকাতার বাইপাস সংলগ্ন একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়। ২১ ফেব্রুয়ারির সন্ধে থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় এবং পরের দিন সকাল  ১০.২০ নাগাদ প্রয়াত হন তিনি।

[আরও পড়ুন : করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে নববধূকে অকথ্য অত্যাচার, গ্রেপ্তার স্বামী-শ্বশুর]

১৯৩০ সালে বর্তমান বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা শহরে জন্মগ্রহণ করেন কৃষ্ণা বসু।কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরাজিতে এমএ পাশ করেন তিনি। ১৯৫৫ সালে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর দাদা শরৎচন্দ্র বসুর পুত্র শিশির চন্দ্র বসুর সঙ্গে বিয়ে হয় তাঁর। রাজনৈতিক জীবনে যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে সাংসদ পদে ছিলেন কৃষ্ণা বসু। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement