BREAKING NEWS

২৫ বৈশাখ  ১৪২৮  রবিবার ৯ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

করোনা আবহে অক্সিজেন জোগান বাড়াতে বন্ধ থাকা কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত তামিলনাডুর

Published by: Biswadip Dey |    Posted: April 27, 2021 10:02 am|    Updated: April 27, 2021 2:57 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা (Coronavirus) আবহে অক্সিজেনের (Oxygen) হাহাকার ঠেকাতে আর কেন্দ্রীয় সাহায্যের উপর ভরসা করতে পারল না তামিলনাড়ু (Tamil Nadu)। সোমবার রাজ্যে সর্বদল বৈঠকে সিদ্ধান্ত হল, আপাতত চার মাসের জন্য তুতিকোরিনে বন্ধ স্টারলাইট কারখানা (Sterlite plant) খুলে সেখানে অক্সিজেন উৎপাদনের কাজ শুরু হবে।

রবিবার রাজ্যের জন্য অক্সিজেনের সাহায্য চেয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে (PM Modi) চিঠি লেখেন তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী ই পালানিস্বামী। ওই চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন, অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানার জন্য অক্সিজেনের জোগান আপাতত বন্ধ রেখে, তা তামিলনাড়ুর জন্য ব্যবহার করা হোক। কারণ, রাজ্যের করোনা পরিস্থিতিতে প্রতিদিন ৪৫০ মেট্রিক টন অক্সিজেন প্রয়োজন। এর মধ্যে যা উৎপাদন হচ্ছে, তার বেশির ভাগটাই চলে যাচ্ছে অন্য রাজ্যকে জোগান দিতে।

[আরও পড়ুন: পণ্যবাহী বিমানে নিষেধাজ্ঞা চিনের, করোনা আবহে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম পেতে সমস্যায় ভারত]

এই পরিস্থিতিতে রবিবারই তুতিকোরিনের বন্ধ স্টারলাইট কারখানা খোলার দাবি জানান ডিএমকে সাংসদ কানিমোঝি। তিনি দাবি করেন, জরুরি ভিত্তিতে ওই কারখানা থেকে অক্সিজেন উৎপাদন করা হোক। যা কাজে লাগতে পারে রাজ্যের অতিরিক্ত বরাদ্দ হিসেবে। মূলত তাঁর দাবিতেই সোমবার সিলমোহর দিল তামিলনাড়ু সরকার। ২০১৮ সাল থেকে বন্ধ থাকার পর করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ফের খুলতে চলেছে এই কপার কারখানা।

এদিনের সর্বদল বৈঠকে ডিএমকে নেতা এম কে স্ট্যালিন প্রস্তাব করেন, স্টারলাইট থেকে উৎপাদিত অক্সিজেন রাজ্যে বিনামূল্যে বণ্টন করা হবে। এই প্রস্তাবেও সায় দিয়েছে রাজ্য সরকার। এদিন সিদ্ধান্ত হয়েছে, কারখানা খোলার পাশাপাশি তৈরি
হবে একটি সরকারি নজরদারি কমিটি। যারা লক্ষ রাখবে এই কারখানায় যাতে কোনও ভাবেই কপার তৈরি না হয়।

২০১৮ সালে তামিলনাড়ুর তুতিকোরিনের এই কারখানা ঘিরেই উত্তাল হয়েছিল রাজ্য রাজনীতি। স্টারলাইট কারখানায় কপার তৈরির ফলে ওই এলাকা দূষিত হচ্ছিল। এই অভিযোগে প্রতিবাদ করেছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তাঁদের প্রতিবাদ অগ্নিগর্ভ রূপ নিয়েছিল। পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছিলেন ১৭ জন। পশ্চিমবঙ্গের নন্দীগ্রামের সঙ্গে তুলনা টানা হয়েছিল তুতিকোরিনের এই ঘটনাকে। কারখানা বন্ধ করে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল তামিলনাড়ু সরকার।

গত বছর সুপ্রিম কোর্টে গিয়ে কারখানা খোলার জন্য দরবার করেছিল খনিজ শিল্পের অন্যতম বড় কোম্পানি বেদান্ত। কিন্তু আদালত তাদের আবেদন খারিজ করে দেয়। মূলত মাদ্রাজ হাই কোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করেই শীর্ষ আদালতে গিয়েছিল ওই কোম্পানি। তবে, এদিন রাজ্যে উদ্যোগে ফের খুলতে চলেছে স্টারলাইট । শুধুমাত্র অক্সিজেন জোগান বাড়ানোর স্বার্থে।

[আরও পড়ুন: কোভিড পরিস্থিতিতে ভারতের পাশে থাকার বার্তা, তেরঙ্গায় সাজল বুর্জ খলিফা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement