BREAKING NEWS

১২ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ২৬ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

৩ দিনের সিবিআই হেফাজতে তাপস পাল

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 31, 2016 5:56 pm|    Updated: December 31, 2016 5:56 pm

Tapas pal sent to 3 days CBI  custody

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রোজভ্যালি কাণ্ডে অভিযুক্ত তৃণমূল সাংসদ তাপস পালকে ৩ দিনের সিবিআই হেফাজতের নির্দেশ দিল আদালত৷ গ্রেফতারের পর শনিবার তাঁকে ভুবনেশ্বরে সিবিআই আদালতে তোলা হয়৷ রোজ্যভ্যালি কাণ্ডে সিবিআই যেহেতু ভুবনেশ্বরে মামলা রুজু করেছে, তাই এদিন তাপসকে আদালতে তোলার জন্য কলকাতা থেকে ভুবনেশ্বরে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়৷ সূত্রের খবর সিবিআই-এর তরফে অভিযুক্ত সাংসদকে ৫ দিনের হেফাজতের আর্জি করা হয়৷ তবে আদালত চন্দননগরের এই সাংসদকে ৩ দিনের সিবিআই হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত৷

এদিকে শনিবার আদালতের মধ্যেই কেঁদে ফেলেন তাপস৷ এজলাসে টানা ৮ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকার পর তিনি অসুস্থতা বোধ করেন বলেও জানা গিয়েছে৷ প্রসঙ্গত, গত ৬ মাস আগে কলকাতা থেকে ভুবনেশ্বরে এই সিবিআই আদালতে তোলা হয়েছিল গৌতম কুণ্ডু৷

শুক্রবারই রোজভ্যালি কাণ্ডে গ্রেপ্তার করা হয়েছে অভিনেতা সাংসদ তাপস পাল৷ সংস্থার সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক ও আর্থিক লেনদেনের বিষয় জানতে তিনদিন আগেই তাঁকে সমন পাঠিয়েছিল সিবিআই৷ সেই মতো শুক্রবার সস্ত্রীক সিজিও কমপ্লেক্সে হাজিরা দেন তাপস৷ টানা চার ঘণ্টা জেরার পর তাঁকে গ্রেপ্তার করার সিদ্ধান্ত নিলেন তদন্তকারী অফিসাররা৷

রোজভ্যালি কাণ্ডে তদন্তে নেমে তাপস পাল সংক্রান্ত একাধিক তথ্য হাতে উঠে আসে সিবিআইয়ের৷ জানা যায়, সংস্থার একটি কোম্পানির ডিরেক্টর ছিলেন তিনি৷ অ্যাকাউন্টস বিভাগের কর্মচারীদের জেরা করে গোয়েন্দারা জানতে পারেন, লক্ষ লক্ষ টাকা ট্রান্সফার হয়েছে তাঁর অ্যাকাউন্টে৷ এমনকী নগদেও বিপুল পরিমাণে অর্থ দেওয়া হত তাপসকে৷ পাশাপাশি সংস্থা থেকে নানা সুযোগ সুবিধাও পেতেন তিনি৷ রোজ ভ্যালির সঙ্গে তাঁর আর্থিক লেনদেনের বৈধতাও খতিয়ে দেখা হয়েছে৷ সূত্রের খবর, রোজভ্যালি কর্তা গৌতম কুণ্ডুর সঙ্গেও ভাল সম্পর্ক ছিল তাঁর৷ একাধিকবার বৈঠক হয়েছে তাঁদের মধ্যে৷ ঠিক কী বিষয়ে তাঁদের আলোচনা হত তারও নাগাল পেতে চাইছিলেন সিবিআই৷

এদিন দু-দফায় জেরা করা হয় তাঁকে৷ কিন্তু বেশ কিছু প্রশ্নের সদুত্তর দিতে পারেননি সাংসদ-অভিনেতা৷ তাঁর দেওয়া তথ্যের সঙ্গে, সিবিআইয়ের হাতে থাকা তথ্যে বিস্তর অসংগতি ধরা পড়ে৷ অনেক তথ্য গোপন করে গিয়েছিলেন বলেই মনে করেছেন তাঁরা৷ এরপরই তদন্তের স্বার্থে তাঁকে গ্রেপ্তারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে