BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘চিন ভারতের ভূখণ্ড দখল করে নিল, অথচ প্রধানমন্ত্রী নীরব’, লাদাখ ইস্যুতে তোপ রাহুলের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 10, 2020 10:43 am|    Updated: June 10, 2020 10:43 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের পর এবার সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিশানা প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর (Rahul Gandhi)। রাহুলের দাবি, চিনা সেনা অনায়াসে ভারতের সীমান্তে ঢুকে ভারতীয় ভূখণ্ড দখল করে নিয়েছে। অথচ, ভারতের প্রধানমন্ত্রী এ নিয়ে নীরব। বুধবার এক টুইটবার্তায় মোদিকে বিঁধেছেন রাহুল।

উল্লেখ্য, চিন সীমান্তে প্রায় মাসখানেক ধরে ভারত ও চিনের মধ্যে টানাপড়েন চলছে। অশান্তির আবহে দুই দেশই সীমান্তে বহু সেনা মোতায়েন করেছে। একাধিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে, চিনা সেনা ভারতীয় ভূখণ্ডের অনেকটাই ভিতরে প্রবেশ করেছে। অথচ ভারত সরকার এই ইস্যুতে আশ্চর্যজনকভাবে নীরব। প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বা প্রতিরক্ষামন্ত্রী কারও গলাতেই এই ইস্যু নিয়ে আক্রমণাত্মক সুর শোনা যায়নি। সরকারের এই নীরবতাকেই লাগাতার কাঠগড়ায় তুলে আসছেন রাহুল। তাঁর অভিযোগ সীমান্ত নিয়ে সরকার নীরব থাকায় বিভ্রান্ত হচ্ছে দেশবাসী।

Line-of-Actual-Control-of-India-&-China
ফাইল ফটো

[আরও পড়ুন: ফিরবে শান্তি! লাদাখ সীমান্তে আড়াই কিলোমিটার পিছিয়ে গেল চিনা বাহিনী]

এই অভিযোগে এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকেও আক্রমণ শানিয়েছেন তিনি। গত রবিবার বিহারে এক ভারচুয়াল জনসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah) দাবি করেন, ভারতের প্রতিরক্ষা নীতি এখন বিশ্ববন্দিত। গোটা পৃথিবী এখন স্বীকার করে নেয় যে, আমেরিকা এবং ইজরায়েলের পর আর কোনও দেশ যদি নিজেদের সীমান্ত সুরক্ষা নিশ্চিত করে থাকে, তাহলে সেটা হল ভারত। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে মির্জা গালিবের একটি উর্দু কবিতা টুইট করেন রাহুল। অমিতের উদ্দেশে কটাক্ষ করেন, “গোটা দেশ জানে ভারতের সীমান্ত পরিস্থিতি কেমন। তবে আপনার এই ‘কল্পনা’ দেশবাসীকে খুশি রাখার ভাল পন্থা।” অমিত শাহর উদ্দেশে রাহুলের করা এই তির্যক মন্তব্যের প্রতিবাদ করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। তার সঙ্গেও টুইটারে বেশ খানিকটা বাদানুবাদ চলে রাহুলের। তবে, এই ইস্যুতে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে এই প্রথমবার কাঠগড়ায় তুললেন প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement