BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  শনিবার ২৮ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

চরম আতঙ্কে কাটছে দিন, প্রাণ বাঁচাতে নাম বদলের ভাবনা মুসলিম আমলার

Published by: Tanujit Das |    Posted: July 7, 2019 12:40 pm|    Updated: July 7, 2019 12:40 pm

This Muslim officer from Madhya Pradesh wants to change his name

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিনি শীর্ষ সরকারি আমলা৷ ক্ষমতার অলিন্দে থাকেন৷ কিন্তু তাও দিন দিন মুসলিমদের উপর বাড়তে থাকা অত্যাচার, রীতিমতো আতঙ্কে ফেলেছে তাঁকে৷ ভয় এতটাই মনের গভীরে ঢুকে গিয়েছে যে, প্রাণ বাঁচাতে নয়া পন্থা খুঁজছেন তিনি৷ এবং অনেক ভাবনা থেকেই একটা উপায়ও পেয়েছেন৷ উগ্র গেরুয়াপন্থীদের হাত থেকে রক্ষা পেতে শেষমেশ নিজের নাম পরিবর্তনের কথা ভাবছেন মধ্যপ্রদেশ সরকারের আমলা নিয়াজ খান৷ যিনি নিজে একজন মুসলিম ধর্মাবলম্বীও বটে৷

[ আরও পড়ুন: তান্ত্রিকের প্ররোচনায় উলঙ্গ হয়ে যজ্ঞ শিক্ষকের, শিশু বলি রুখতে গুলি চালাল পুলিশ]

মধ্যপ্রদেশের কমল নাথ সরকারের এই আমলার মতে, এদেশে বসবাসকারী মুসলিমদের জন্য ধীরে ধীরে যে পরিবেশ তৈরি হচ্ছে, তাতে প্রাণসংশয়ে ভুগছেন তিনি৷ সেজন্যই নাম পরিবর্তনের কথা ভাবছেন৷ শনিবার এ বিষয়ে একাধিক টুইট করেন নিয়াজ খান৷ সেখানে তিনি লেখেন, ‘‘আমি সেই সমস্ত মুসলিমের চেয়ে আলাদা হতে চাই, যাঁরা মাথায় টুপি, গায়ে কুর্তা পরেন এবং মুখে দাড়ি রাখেন৷ আমি জানি কোনও সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান আমাকে বাঁচাতে পারবে না৷ তাই আমি বলব এই রোষের হাত থেকে বাঁচতে সকল মুসলিমের নাম পরিবর্তন করা উচিত৷ এই হিংসাত্মক জনতার হাত থেকে বাঁচতে, আমাকেও নতুন নাম গ্রহণ করতে হবে৷’’

[ আরও পড়ুন: গায়ে উত্তরীয় পরায় ট্রেনে উঠতে বাধা ৮২ বছরের বৃদ্ধকে, কাঠগড়ায় রেল ]

এখানেই শেষ নয়, নিয়াজ খান এতটাই আতঙ্কিত যে, বলিউডের মুসলিম অভিনেতাদেরও নাম পরিবর্তনের পরামর্শ দিয়েছেন তিনি৷ জানিয়েছেন, সিনেমা ও সর্বোপরি নিজেদের আত্মরক্ষার্থে বলিউডের মুসলিম অভিনেতাদেরও নিজেদের নাম পরিবর্তন করা প্রয়োজন৷ তা নাহলে খ্যাতনামা বলি অভিনেতার সিনেমাও লাভের মুখ দেখতে পাবে না৷ এমনকী তাঁদের নিরাপত্তা নিয়েও আশঙ্কার তৈরি হতে পারে৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় একজন আমলার এই ধরনের পোস্ট স্বভাবতই চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে মধ্যপ্রদেশের কমল নাথ সরকারের মাথায়৷ ক্ষমতার অলিন্দে থেকে একজন ব্যক্তি যদি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন, তবে সাধারণ মানুষের কী অবস্থা হতে পারে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ সমালোচনার মুখে পড়েছে গণধোলাই রুখতে কেন্দ্রের ভূমিকা৷ প্রসঙ্গত, সহকর্মীদের বিরুদ্ধে দুর্ব্যবহারের অভিযোগে এর আগে সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছিলেন নিয়াজ খান৷ তিনি অভিযোগ করেছিলেন যে, কর্মক্ষেত্রে তাঁর সঙ্গে অচ্ছুতের মতো ব্যবহার করে সহকর্মীরা৷ তা নিয়েও তীব্র বিতর্ক ছড়িয়েছিল মধ্যপ্রদেশে৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে