BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

হাথরাস কাণ্ডে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা এলাহাবাদ হাই কোর্টের, তলব যোগীরাজ্যের শীর্ষ আধিকারিকদের

Published by: Sayani Sen |    Posted: October 2, 2020 9:00 am|    Updated: October 2, 2020 9:01 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হাথরাস কাণ্ডে (Hathras Gang Rape) এখনও তোলপাড় গোটা দেশ। সময় যত গড়াচ্ছে ততই যেন চড়ছে উত্তেজনার পারদ। এবার দলিত তরুণী ধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করল এলাহাবাদ হাই কোর্টের (Allahabad High Court) লখনউ বেঞ্চ। উত্তরপ্রদেশ প্রশাসনের শীর্ষকর্তাদের পাঠানো হয়েছে সমনও। সূত্রের খবর, বিচারপতি রঞ্জন রায় এবং যশপ্রীত সিংয়ের বেঞ্চ উত্তরপ্রদেশের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব, রাজ্য পুলিশের ডিজি এবং অতিরিক্ত ডিজিকে সমন পাঠিয়েছে। আগামী ১২ অক্টোবর আদালতে উপস্থিত থেকে ঘটনার ব্যাখ্যা দিতেও বলা হয়েছে তাঁদের।

উল্লেখ্য, গত ১৪ সেপ্টেম্বর উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) হাথরাস জেলার ওই দলিত তরুণী ধর্ষণ এবং নৃশংসতার শিকার হন। দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে দু’সপ্তাহ ধরে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করার পরে মঙ্গলবার সকালে তাঁর মৃত্যু হয়। বুধবার রাত একটা নাগাদ ওই তরুণীর দেহ পৌঁছয় তাঁর গ্রামে। বড় রাস্তায় অ্যাম্বুল্যান্স দাঁড় করানো হয়। জ্বালিয়ে দেওয়া হয় শ্মশানের আলো। শেষকৃত্যের প্রস্তুতি শুরু করে পুলিশ। মধ্যরাতে শেষকৃত্য হোক তা চাননি নির্যাতিতার পরিবারের সদস্যরা। বুধবার রাতের যে ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে, মেয়েকে শেষবার নিজের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার জন্য তরুণীর মা’কে পুলিশের কাছে অনুনয় করতে দেখা গিয়েছে। হাথরাসের পুলিশের তরফে টুইট করে শেষকৃত্যের বিষয়ে জানানো হয়েছে। পুলিশের দাবি, মৃতার পরিবারের ইচ্ছানুসারেই শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে।

[আরও পড়ুন: জলের নিচেই নাচের আসর, বলিউড গানে জমিয়ে নেচে নেটিজেনদের মুগ্ধ করলেন ভারতীয় যুবক]

পরিবারকে আটকে রেখে শেষকৃত্যের অভিযোগই সবচেয়ে ভাবাচ্ছে আদালতকে। তাই স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করা হয়েছে বলেই জানা গিয়েছে। এছাড়াও ১২ অক্টোবর তদন্তের গতিপ্রকৃতি সংক্রান্ত তথ্য প্রমাণাদিও নিয়ে হাই কোর্টে হাজির থাকার কথা শীর্ষকর্তাদের জানানো হয়েছে। এদিকে, বৃহস্পতিবারই হাথরাসে নির্যাতিতার পরিজনদের সঙ্গে দেখা করার কথা ছিল রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi) এবং তাঁর বোন প্রিয়াঙ্কার। তবে দিল্লি-নয়ডা সীমান্তেই উত্তরপ্রদেশ পুলিশ কংগ্রেসের দুই শীর্ষনেতার কনভয় আটকে দেয়। হেঁটে যাওয়ার চেষ্টা করেন দু’জনে। কিন্তু নয়ডা থেকে হাথরাস পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটারের মধ্যে একাধিক জায়গায় পুলিশ তাঁদের রাস্তা আটকায়। হাথরাসের সীমানাও সিল করে দেওয়া হয়। ওই এলাকাকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হয়। যোগীরাজ্যের (Yogi Adityanath) পুলিশ রাহুল গান্ধীকে লাঠিপেটা করে মাটিতে ফেলে দেয় বলেও অভিযোগ। তবে এত কাণ্ডের পরেও মহামারী আইনে রাহুল এবং প্রিয়াঙ্কার (Priyanka Gandhi) বিরুদ্ধে এফআইআর রুজু করা হয়।

[আরও পড়ুন: ভারতে পৌঁছল ‘এয়ারফোর্স ওয়ান’-এর ধাঁচে তৈরি ভিভিআইপি বিমান ‘এয়ার ইন্ডিয়া ওয়ান’]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement