BREAKING NEWS

১৯  আষাঢ়  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৫ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

Union Budget 2022: ‘পরিকল্পনাহীন, দেশবাসীর প্রাপ্তি শূন্য’, বাজেট নিয়ে একযোগে সরব বিরোধীরা

Published by: Paramita Paul |    Posted: February 1, 2022 9:51 am|    Updated: February 2, 2022 12:06 pm

Union Budget 2022 LIVE UPDATE: Opposition criticising budget | Sangbad Pratidin

২০২২-২০২৩ আর্থিক বর্ষের কেন্দ্রীয় বাজেট (Union Budget 2022) পেশ করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। করোনাকালে পেপারলেসই হল বাজেট। আয়করে প্রত্যাশিত ছাড় মেলেনি।  জোর দেওয়া হয়েছে ডিজিটাল শিক্ষায়। আর কী রয়েছে বাজেটে? একঝলকে দেখে নিন ২০২২-২০২৩ কেন্দ্রীয় বাজেট। 

বিকেল ৫.০০: রাহুল গান্ধীকে পালটা দিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। বললেন, “আমি সমালোচনা শুনতে রাজি আছি। কিন্তু এমন নেতার থেকে সমালোচনা শুনব না যিনি শুধুমাত্র প্রতিক্রিয়া দেওয়ার জন্যই মন্তব্য করবেন। কোনও কিছু না বুঝে মন্তব্য করবেন।”

বিকেল ৪.৩০: কেন্দ্রীয় বাজেট থেকে দেশবাসীর প্রাপ্তি শূন্য। পরিকল্পনাহীন এই বাজেট। একযোগে সরব বিরোধীরা। 

দুপুর ৩.০০: বাজেট নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাঁর কথায়, “এই বাজেট দেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে। গরিবদরদী বাজেট।”

 

দুপুর ২.২৭: কেন্দ্রীয় বাজেটে আমজনতার প্রাপ্তি শূন্য। কেন্দ্রের সমালোচনায় সরব রাহুল গান্ধী। 

 

দুপুর ১.৫৪: বরাদ্দ কমেছে ‘১০০ দিনের কাজ’ প্রকল্পে। আগের বার বরাদ্দ ছিল ৯৮ হাজার কোটি টাকা। এবার তা কমে দাঁড়িয়েছে ৭৩ হাজার কোটি টাকা। এই তথ্য দিয়ে কেন্দ্রীয় বাজেটের তুমুল সমালোচনা করলেন রাজ্যের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। 

দুপুর ১.৩০: কেন্দ্রের তুমুল সমালোচনা করে টুইটারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, ” এই বাজেট থেকে আমজনতার প্রাপ্তি শূন্য। সরকারের বড় বড় কথা পুরোপুরি সারমর্মহীন। বেকারত্ব আর মূল্যবৃদ্ধির চাপে পিষ্ট সাধারণ মানুষ। পেগাসাস কেলেঙ্কারি থেকে নজর ঘোরানোর চেষ্টা এই বাজেট।”

দুপুর ১.২০: বাজেট হতাশাজনক বলছেন শশী থারুর। 

 

দুপুর ১.০০: বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশ  কেন্দ্রীয় বাজেটের তুমুল সমালোচনা করলেন। বললেন, “ধ্বংসের পথে হাঁটছে মোদি সরকার।”

 

বেলা ১২.৩৬: ব্যক্তিগত কর কাঠামো অপরিবর্তিতই রাখল কেন্দ্র। 

বেলা ১২.৩০: দাম কমবে হীরে, বৈদ্যুতিন সরঞ্জাম, মোবাইল ফোন, চার্জার, স্টিলের জিনিসপত্র, কাপড়, জুতো-সহ চামড়ার জিনিসপত্র, চাষবাসের সরঞ্জাম। 

বেলা ১২.২২: জিএসটি থেকে সর্বকালীন সর্বোচ্চ আয়। জানুয়ারি মাসের শেষে কেন্দ্রের কোষাগারে এসেছে ১ লক্ষ ৪০ হাজার ৯৮৬ কোটি টাকা। 

 

বেলা ১২.২১: ‘এক দেশ, এক কর’ ব্যবস্থা স্বপ্নপূরণে প্রযুক্তির মাধ্যমে জিএসটি ব্যবস্থা কাজ করছে। করোনা পরিস্থিতিতে স্টার্ট আপদের আরও এক বছর কর ছাড়। 

বেলা ১২.১৯: ডিজিটাল সম্পত্তি ও সেখান থেকে আয়েও দিতে হবে কর। সেক্ষেত্রে কর দিতে হবে ৩০ শতাংশ। 

বেলা ১২.১৮: বিশেষভাবে সক্ষমদের জন্য আয়কর ছাড়। 

বেলা ১২.১৭: করপোরেট ট্যাক্স ১৮ শতাংশ থেকে কমে হল ১৫ শতাংশ। 

বেলা ১২.১৩: কোঅপারেটিভ সোসাইটি বা সমবায়ের উপর থেকে কর ১২ শতাংশ থেকে কমে দাঁড়াল ৭ শতাংশ। কমানো হচ্ছে সারচার্জও।

বেলা ১২.১১ রাজ্য ও কেন্দ্রীয় কর্মচারীদের ন্যাশনাল পেনশন স্কিমে কর ছাড়ে সমতা আনল কেন্দ্র। দুক্ষেত্রেই কর ছাড় ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে করা হল ১৪ শতাংশ। অর্থাৎ রাজ্য সরকারি কর্মচারীরাও এই স্কিমে ১৪ শতাংশ কর ছাড় পাবেন। 

 

বেলা ১২.০৬: প্রত্যক্ষ কর প্রদান পরিষেবার সরলীকরণ। অ্যাসেসমেন্ট ইয়ার থেকে দু’বছর পর্যন্ত রিন্টার্ন ফাইলের ভুল শোধরানোর সুবিধা। সেক্ষেত্রে আপডেটেড রিন্টার্ন ফাইল করা যাবে। 

বেলা ১২,০১: জমিতে ফসলের গোড়া পোড়ানো আটকাতে নয়া উদ্যোগ কেন্দ্রের। 

সকাল ১১.৫৯: ২০২২-২০২৩ আর্থিক বর্ষে ডিজিটাল রুপি আনবে রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া। 

 

সকাল ১১.৫৪: স্পেশ্যাল ইকোনমিক জোন (SEZ) আইনের পরিবর্তে নতুন আইন আনছে কেন্দ্র। 

 

সকাল ১১.৫৩: কেন্দ্রীয় মন্ত্রকে চালু হবে ই বিল ব্যবস্থা। লেনদেনের বিলম্ব কমাতে নয়া ব্যবস্থা।

সকাল ১১.৫০: প্রতিরক্ষায় আত্মনির্ভরতায় জোর নির্মলার। কমানো হবে আমদানি। প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম তৈরিতে স্টার্ট আপদের গুরুত্ব। 

 

সকাল ১১.৪৮: চলতি বছরেই স্পেকট্রাম নিলাম। দ্রুত চালু হবে ৫জি পরিষেবা। 

সকাল ১১.৪৬: এবিজিসি (অ্যানিমেশন, গেমিং, কার্টুন ইন্ডাস্ট্রি) সেক্টরে বিশেষ জোর। 

সকাল ১১.৪৮: পরিবহণ বিভাগে ২০ হাজার কোটির বিনিয়োগ। বন্ধ হবে জৈব জ্বালানি। ব্যাটারি পরিচালিত গাড়ির ব্যবহার বৃদ্ধি। 

সকাল ১১.৪৪: ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে আর্থিক সহায়তার মেয়াদ বাড়ল মার্চ অবধি। ক্ষুদ্র শিল্পে জোর দিতে ‘ওয়ান নেশন, ওয়ান শপ প্রকল্প।’

সকাল ১১.৪২: প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় বিশেষ জোর। বরাদ্দ ৪৮ হাজার কোটি টাকা। ৮০ লক্ষ বাড়ি তৈরি হবে। 

সকাল ১১.৪১: উত্তর-পূর্বের উন্নয়নে বিশেষ জোর। আসছে নয়া প্রকল্প। 

সকাল ১১,৪০: এই অর্থবর্ষেই চালু হবে ই-পাসপোর্ট পরিষেবা। থাকবে বিশেষ চিপ। 

সকাল ১১.৩৮: ৭৫ জেলায় ডিজিটাল ব্যাংকিং কেন্দ্র। 

সকাল  ১১.৩৩: পোস্ট অফিস এবার থেকে সমস্ত ব্যাংকিং পরিষেবা দেবে। মিলবে মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যাংকিং, এটিএমের সুবিধা।


সকাল ১১.৩২: মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিতে টেলি মেন্টাল মেডিসিন সেন্টার। 

সকাল ১১.৩০: অতিমারীতে পড়াশোনায় বিপুল ক্ষতি। সেই ধাক্কা সামলাতে আসছে টিভি চ্যানেল। প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির জন্য তৈরি হবে আলাদা আলাদা টেলিভিশন চ্যানেল। তৈরি হবে স্থানীয় ভাষায় ২০০টি চ্যানেল। 

 

সকাল ১১.২৫: কৃষির আধুনিকীকরণে জোর। দেশে উৎপাদন হবে তৈলবীজ।

সকাল ১১.২৪: স্থানীয় ব্যবসাকে উৎসাহ দেবে রেল। আগামী ৩ বছরে আরও ৪০০ বন্দেভারত ট্রেনের সুবিধা দেওয়া হবে। ২০০০ কিলোমিটার নতুন রেলপথ। 

 

সকাল ১১.২১: লজিস্টিক পার্ক হবে চারটি জায়গায়। পিপিই মডেলে আসবে পর্বতমালা প্রকল্প। দুর্গম পার্বত্য এলাকায় রোপওয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা তৈরি হবে পর্বতমালা প্রকল্প। 

সকাল ১১.২০: নতুন করে সেচের আওতায় আসছে ৯.০৫ হেক্টর কৃষিজমি। 

সকাল ১১.১০: এলআইসির আইপিও দ্রুত বাজারে আসছে। আর বিলগ্নিকরণে জোর। এয়ার ইন্ডিয়ার বিলগ্নিকরণ সম্পূর্ণ।

সকাল ১১.০৮: পিএম গতিশক্তি প্রকল্পে জোর। এর হাত ধরে সমৃদ্ধি আসবে। সাত ইঞ্জিনে ভরসা করেই দেশের উন্নয়নে জোর কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর। ২০ হাজার কোটি বরাদ্দ করা হল পরিকাঠামো উন্নয়নমে। সঙ্গে ৬০ লক্ষ কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি। 

সকাল ১১.০৬: ভাল সময় এসেছে বিনিয়োগ বাড়ছে। সবকা সাথ সবকা প্রয়াসের পথে এগিয়ে যাবে দেশ।  

সকাল ১১.০৫: ৯.২ শতাংশ আর্থিক বৃদ্ধির প্রত্যাশা কেন্দ্রের। যা গোটা গোটা বিশ্বের কাছে উদাহরণ। বললেন অর্থমন্ত্রী। এই বাজেট আগামী ২৫ বছরের দিশা দেখাবে। 

সকাল ১১.০০: বাজেট পেশ করছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। 

সকাল ১০.৫০: ২০২২-২০২৩ অর্থবর্ষের বাজেটকে অনুমোদন করল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। সকাল ১১টায় সংসদে শুরু বাজেট পেশ। 

 

সকাল ১০.৪৫: বাজেট পেশের আগেই বাড়ল বিমানের জ্বালানির দাম। একধাক্কায় সাড়ে ৮ শতাংশ বাড়ল দাম। 

সকাল ১০.২৩: বাজেট পেশের সময় উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও। ইতিমধ্যে সংসদে পৌঁছে গিয়েছেন তিনি। কেন্দ্রীয় বাজেটকে অনুমোদন দিতে শুরু মন্ত্রিসভার বৈঠক। 

সকাল ১০.২১: বাজেট পেশের আগে সংসদে পৌঁছলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব-সহ একাধিক মন্ত্রী। 

 

সকাল ১০.০৬: সংসদে পৌঁছলেন অর্থমন্ত্রী।

 

সকাল ১০.০০: রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে বেরিয়ে অর্থমন্ত্রকের উদ্দেশে রওনা দিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। 

সকাল ৯.৩০: বাজেট পেশের আগে চাঙ্গা শেয়ার বাজার। প্রায় ৭০০ পয়েন্ট বাড়ল সেনসেক্স। দুশো পয়েন্ট বৃদ্ধি নিফটিতেও। 

 

সকাল ৯.১৫: রাষ্ট্রপতি ভবনে পৌঁছলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। নিজের চতুর্থ বাজেট পেশের আগে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন তিনি। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে