৪ আষাঢ়  ১৪২৬  বুধবার ১৯ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৪ আষাঢ়  ১৪২৬  বুধবার ১৯ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  কিছুদিন আগেই তাঁর হম্বিতম্বির চোটে প্রকাশ্যে কেঁদে ফেলেছিলেন উত্তরপ্রদেশের এক মহিলা আইপিএস অফিসার। আর এবার থাকার জন্য ঘর চেয়ে তাঁর কাছে চরম অপমানিত হলেন এক মহিলা। তিনি উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের বিজেপি বিধায়ক রাধামোহন দাস আগরওয়াল।

[মথুরা স্টেশনকে বিশ্বমানের করে তুলতে ২৫ লক্ষ টাকা দান হেমা মালিনীর]

গত ২৬ মে তিন বছর পূর্ণ করেছে মোদি সরকার। দেশ জুড়ে এখন উৎসব পালন করছে বিজেপি। এই উপলক্ষ্যে উত্তরপ্রদেশের সন্ত কবীর নগর জেলার মাহার শহরে একটি জনসভায় যোগ দিতে গিয়েছিলেন বিজেপি বিধায়ক রাধামোহন দাস আগরওয়াল। সেখানে স্থানীয় গরিব মহিলা, বিধায়ককে ঘর বানিয়ে দেওয়ার আবেদন করেন। উত্তর রাধামোহন দাস আগরওয়াল ওই মহিলার কাছে জানতে চান, তাঁর ক’টি সন্তান। ওই মহিলা জানান, তাঁর দুটি সন্তান। এরপরই বিধায়ক প্রশ্ন করেন, দুই সন্তানই কী এক সঙ্গে জন্মেছে?  মহিলা না বলার পর বিধায়ক বলেন, দুটি সন্তান যদি একসঙ্গে না জন্মায়, তাহলে কীভাবে তিনি সব সুবিধা একসঙ্গে পাওয়ার আশা করেন।

[কেন্দ্রের গবাদি পশু নির্দেশিকায় ৪ সপ্তাহের স্থগিতাদেশ দিল মাদ্রাজ হাই কোর্ট]

এই এই ঘটনার জানাজানি হতেই বিতর্ক তৈরি হয়। পরে অবশ্য রাধামোহন দাস আগরওয়াল সাফাই দেন, নেহাতই মজা করে ওই কথা বলেছিলেন তিনি। কিছু জিনিস হালকাভাবে নিতে হয়। সব জিনিস জটিলভাবে নিলে, জীবনে স্বস্তি পাওয়া যায় না।

[‘কাশ্মীর, কাশ্মীরি ও কাশ্মীরিয়ত’ সবই ভারতের নিজস্ব: রাজনাথ সিং]

তবে এবারই প্রথম নয়। গোরক্ষপুরের বিজেপি বিধায়ক রাধামোহন দাস আগরওয়াল বিতর্কে জড়িয়েছেন আগেও। গত ৮ মে এই বিজেপি বিধায়কের শাসানিতে প্রকাশ্যেই কেঁদে ফেলেছিলেন উত্তরপ্রদেশে সদ্য কাজে যোগ দেওয়া এক মহিলা আইপিএস অফিসার। পুলিশ ও প্রশাসনের মদতে অবৈধ মদ কারবার চলছে। এই অভিযোগ তুলে সেদিন উত্তরপ্রদেশের কোয়িলহা গ্রামে রাস্তায় বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন কিছু মহিলা। খবর পেয়ে বাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন চারু নিগম নামে ওই মহিলা আইপিএস অফিসার। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান বিধায়ক রাধামোহন দাস আগরওয়াল। কিন্তু পুলিশকে সাহায্য করা তো দুরে থাক, উল্টে ওই মহিলা আইপিএস অফিসারকে প্রকাশ্যে শাসাতে শুরু করেন তিনি। চারুকে কথা বলার কোনও সুযোগ না দিয়েই চুপ করে থাকতে বলেন বিধায়ক। লিমিট ক্রস না করার হুমকি দেন। চারু বারবার বলতে থাকেন, তিনি যখন দায়িত্বে আছেন, তিনি জানেন, তিনি কী করছেন। কিন্তু কোনও কথা না শুনে ওই মহিলা আইপিএস অফিসারকেই শাসাতে থাকেন রাধামোহন দাস আগরওয়াল। প্রকাশ্যে এভাবে অপদস্থ হয়ে কেঁদে ফেলেন ওই মহিলা আইপিএস অফিসার। শেষপর্যন্ত বিধায়কের হুমকিতে পুলিশকে ঘটনাস্থল থেকে ফিরে যেতে হয় বলে অভিযোগ।

[অসমে দেখা মিলল বিলুপ্তপ্রায় রেড পান্ডার, দেখুন ভিডিও]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং