BREAKING NEWS

২৬ বৈশাখ  ১৪২৯  সোমবার ১৬ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ভাইয়ের মৃত্যুর বদলা নিতে মিড-ডে মিলে বিষ মেশাল সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 19, 2018 9:17 am|    Updated: July 19, 2018 1:47 pm

UP: Girl poisoned mid-day meal to avenge brother’s death

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাস ডেস্ক: প্রতিশোধস্পৃহা সত্যিই মারাত্মক বস্তু। এর জন্য মানুষ খুন পর্যন্ত করতে প্রস্তুত থাকে। সম্প্রতি এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে গোরক্ষপুরে। অভিযোগ, ভাইয়ের মৃত্যুর বদলা নিতে এক পড়ুয়াকে বিষ খাওয়ানোর চেষ্টা করেছিল সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রী।

ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকাটা থানার বউলিয়া গ্রামে। অভিযোগ, মঙ্গলবার স্কুলে যখন মিড ডে মিলের ডাল রান্না হচ্ছিল তখন সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রী তাতে বিষ মিশিয়ে দেয়। কিন্তু সৌভাগ্যের বিষয় খাবার কাউকে দেওয়ার আগেই তা বুঝতে পারে স্কুল কর্তৃপক্ষ। ফলে খারাপ কোনও ঘটনা ঘটেনি। বেঁচে যায় ছাত্রছাত্রীরা। অভিযুক্ত ওই ছাত্রীকে ধরে ফেলা হয়। ঘটনার জেরে স্কুল ঘেরাও করেন অভিভাবকরা। তার মাকে বেধড়ক পেটানো হয়।

[ পরকীয়ায় লিপ্ত, সন্দেহে স্ত্রীর গোপনাঙ্গে ইলেকট্রিক শক দিয়ে হত্যা জওয়ানের ]

জানা গিয়েছে, ওই ছাত্রীর ভাই তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ত। ২ এপ্রিল তাকে খুন করা হয়। পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে। আপাতত সে জুভেনাইল হোমে রয়েছে। ওই স্কুলের প্রিন্সিপাল পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেছেন, স্কুল কর্তৃপক্ষের মতে ভাইয়ের মৃত্যুর বদলা নিতেই এমন কাজ করেছে সপ্তম শ্রেণির ওই ছাত্রী। রান্না হওয়া খাবার ফরেনসিকে পাঠানো হয়েছে। তিন থেকে চারদিনের মধ্যে রিপোর্ট চলে আসবে। বাঁকাটার এসএইচও দেবেন্দ্র সিং যাদব জানিয়েছেন, ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩২৮ ধারায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বিষ খাইয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে ওই ছাত্রীর বিরুদ্ধে। তাঁকে জুভেনাইল হোমে পাঠানোর বন্দোবস্ত করা হয়েছে।

সন্তানের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে শিশুচোর বদনাম, গণপিটুনিও জুটল বাবার কপালে ]

অভিযোগ অনুযায়ী স্কুলের রাঁধুনি রাধিকা প্রথমে ঘটনাটি দেখতে পান। সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ তিনি যখন পড়ুয়াদের ভাত দিচ্ছিলেন, তখন কোনও কারণে তিনি রান্নাঘরে যান। সেখানে দেখেন ডালের মধ্যে বিষ মেশাচ্ছে ওই ছাত্রী। ডালের উপর সাদা স্তর পড়ে যেতে দেখেন তিনি। অন্য এক রাঁধুনির সাহায্য নিয়ে তিনি ওই ছাত্রীকে আটকে রাখেন। তারপর খবর দেওয়া হয় প্রিন্সিপালকে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে