১১ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

মৃতদেহের সঙ্গে মর্গে ঘুমোয় এই হাসপাতালের কর্মীরা!

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 23, 2018 12:48 pm|    Updated: January 23, 2018 12:48 pm

UP: Hospital staff forced to sleep with dead bodies

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক : কর্মী-আবাসন নেই হাসপাতালে। তাই মর্গে মরদেহর সঙ্গেই রাত কাটাতে বাধ্য হচ্ছেন হাসপাতালের কর্মীরা। চমকে দেওয়া ঘটনাটি দিনের পর দিন ঘটছে উত্তরপ্রদেশের হারদোই সিটি হাসপাতালে

দীর্ঘ তিনবছর ধরে রাজ্যের পরিকাঠামো উন্নয়ন দপ্তরের তত্ত্বাবধানে তৈরি হচ্ছে এই হারদোই সিটি হাসপাতাল। ২০১৬-সালের নির্দেশিকা অনুসারে ১০০ বেডের হাসপাতালে থাকবে ওপারেশন থিয়েটার। থাকবে মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক-সহ কর্তব্যরত চিকিৎসকদের পৃথক চেম্বার। হাসপাতালের অন্যান্য কর্মীদের জন্যও পর্যাপ্ত ঘরের বন্দোবস্ত করা হবে। নির্দেশিকা মেনে এখনও পর্যন্ত হাসপাতালের সিকি ভাগ নির্মাণকার্যও সম্পূর্ণ হয়নি। এদিকে মর্গের নির্মাণকার্য শেষ হতেই মাস খানেক আগে হাসপাতালের কর্মকাণ্ড শুরু হয়েছে। চিকিৎসা পরিষেবা শুরু হতেই রোগী আসতে শুরু করেছে। কর্মী নিয়োগ হয়েছে প্রয়োজন মাফিক। তবে কর্মীদের জন্য কোনও আবাসনের ব্যবস্থা হয়নি। তাই বাধ্য হয়েই মৃতদেহের সঙ্গে মর্গেই রাত কাটাচ্ছেন কর্মীরা।

[প্রাপ্তবয়স্ক হাদিয়ার বিয়ে নিয়ে এনআইএ তদন্ত নয়: সুপ্রিম কোর্ট]

এহেন খবর প্রকাশ্যে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। বিষয়টি নিয়ে হাসপাতালের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক পিএন চতুর্বেদীর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি খবরের সত্যতা স্বীকার করেছেন। অস্বস্তি এড়িয়ে তিনি জানিয়েছেন, হাসপাতাল ভবনের নির্মাণকার্য সম্পূর্ণ না হওয়ায় এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। রাতে কর্মীরা এভাবে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন।

খবর পৌঁছেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের কাছেও। পরিকাঠামো উন্নয়ন দপ্তরকে দ্রুত নির্মাণকাজ শেষ করার অনুরোধ করা হয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে।

বলাবাহুল্য, একটি বেসরকারি নির্মাণ সংস্থাকে হাসপাতালের নির্মাণকাজের বরাত দিয়েছিল পরিকাঠামো উন্নয়ন দপ্তর। ওই সংস্থার গাফিলতিতেই হাসপাতালের কাজ এখনও এগোয়নি বলে মনে করা হচ্ছে। তবে স্বাস্থ্য দপ্তরের আবেদনে নড়েচড়ে বসেছে পরিকাঠামো উন্নয়ন দপ্তর।

[স্বামী-দেওরের মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে