BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘সবকা বিশ্বাস’ জিতলেও মোদির মন্ত্রিসভায় আধিপত্য উচ্চবর্ণের    

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: May 31, 2019 12:30 pm|    Updated: May 31, 2019 12:31 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ’। ২০১৪-র আগে ‘নয়া ভারত’ গড়তে এই ছিল মোদির মন্ত্র।২০১৯-এ এসে তাতে সংযুক্ত হয় ‘সবকা বিশ্বাস’। আর দেশ যে মোদিতে ‘বিশ্বাস’ রেখেছে তা লোকসভার ফলেই স্পষ্ট। তবে গতকাল নয়া মন্ত্রিসভার শপথের পর দেখা গেল সেখানে আধিপত্য বজায় রইল উচ্চবর্ণেরই। তা নেহাত কাকতালীয় না উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, তা তর্কসাপেক্ষ।

[আরও পড়ুন: চিনকে নজরে রেখেই সিদ্ধান্ত? চমক দিয়ে মন্ত্রিসভায় প্রবেশ জয়শংকরের]

বৃহস্পতিবার দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী পদে শপথগ্রহণ করেন নরেন্দ্র মোদি। শপথ নেন তাঁর নয়া মন্ত্রিসভায় ৫৮ জন সদস্য। জানা গিয়েছে, নয়া মন্ত্রীদের মধ্যে ৩২ জনই উচ্চবর্ণের। অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণি থেকে মন্ত্রিত্ব পেয়েছেন ১৩ জন। মোদির মন্ত্রিসভায় নীতীন গড়করি-সহ যোগ দেওয়া নয় সদস্য ব্রাহ্মণ। রয়েছেন রাজনাথ সিং-সহ ঠাকুর সম্প্রদায়ের তিন দাপুটে সাংসদ। তবে নয়া মন্ত্রিসভায় সমাজের সব স্তর থেকেই মন্ত্রীদের অন্তর্ভুক্ত করেছেন মোদি। দলীয় কর্মীদের কাছে সংখ্যালঘু ও দলিতদের বিশ্বাস অর্জনের জন্য চেষ্টার ত্রুটি না রাখার আবেদনও জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেইমতো এবারে মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়েছেন তফসিলি জাতির ছয় ও তফসিলি উপজাতির চার সাংসদ। তবে সংখ্যালঘু সম্প্রদায় থেকে একমাত্র মুখতার আবাস নকভিই নয়া মন্ত্রিসভার সদস্য। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, বিগত নির্বাচনে বিজেপির পশে দাঁড়িয়েছে ব্রাহ্মণ-সহ অন্যান্য উচ্চবর্ণের মানুষ। তারই প্রতিদান দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। একইসঙ্গে সংখ্যালঘুদের বিশ্বাস অর্জনে রাখা হয়েছে নকভিকে। মোটের উপর সমাজের সব স্তরকেই ছুঁয়ে গিয়েছে নয়া ক্যাবিনেট।   

উল্লেখ্য, এবার বাংলা নিয়ে সমস্ত সমীকরণ পালটে দিয়েছে বিজেপি। পশ্চিমবঙ্গে ২ থেকে এক লাফে ১৮টি আসন পায় গেরুয়া দল। আশা করা গিয়েছিল, বাংলা থেকে এবার বাড়বে মন্ত্রীর সংখ্যা, ওজনদার হবে পূর্বতন মন্ত্রীদের প্রোফাইল৷ তবে বৃহস্পতিবার শপথ অনুষ্ঠান সে আশায় জল ঢেলে দিল৷ নরেন্দ্র মোদি ২.০ মন্ত্রিসভার প্রথম দফায় পশ্চিমবঙ্গ পেল না কোনও পূর্ণমন্ত্রী। বাবুল সুপ্রিয় এবং দেবশ্রী চৌধুরি, দু’জনই শপথ নিলেন প্রতিমন্ত্রী হিসাবে। প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নরেন্দ্র মোদির প্রথম ইনিংসে মন্ত্রিত্ব করেছিলেন বাবুল। এবারও তিনি মন্ত্রী হবেন, তা প্রায় নিশ্চিত ছিল। তবে অনেকেরই আশা ছিল, এবার হয়তো তাঁকে পূর্ণমন্ত্রী করা হতে পারে।   

[আরও পড়ুন: ১৮ সাংসদ নিয়েও মোদির মন্ত্রিসভায় ব্রাত্যই বাংলা]

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement