৬ ফাল্গুন  ১৪২৬  বুধবার ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনের আগে ফের বিতর্কিত মন্তব্য। এবার কাঠগড়ায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। সাংবাদিক সম্মেলনে দিল্লিবাসীর উদ্দেশ্যে তাঁর প্রশ্ন, “জিন্না ঘোষিত স্বাধীনতা (আজাদি) নাকি ভারত মাতার জয়, দিল্লিবাসী কী চায়, তা তাঁদেরই ঠিক করতে হবে।” তাঁর অভিযোগ, দিল্লিতে CAA বিরোধী আন্দোলনে জিন্নার স্বপক্ষে স্লোগান দেওয়া হয়েছে। আর তাতে মদত জুগিয়েছে আপ ও কংগ্রেস নেতারা। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর এই মন্তব্যে ফের বিতর্ক তৈরি হয়েছে। রাজনৈতিক মহলের মতে, CAA নিয়ে বিরোধী দলগুলির আন্দোলনের সঙ্গে ফের একবার জিন্নার মতাদর্শের তুলনা করলেন বিজেপির এই মন্ত্রী। 

৮ ফেব্রুয়ারি দিল্লি বিধানসভার নির্বাচন। তার আগে নির্বাচনী প্রচারে ঝড় তুলেছেন বিজেপির একাধিক হেভিওয়েট নেতা-মন্ত্রী। CAA পাস হওয়ার পর দিল্লি নির্বাচন গেরুয়া শিবিরের কাছে এখন সম্মানের লড়াই। বিতর্কিত এই আইনের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলনের সাক্ষী থেকেছে রাজধানীর রাজপথ। পড়ুয়া থেকে বিশিষ্টজন, সংখ্যালঘু থেকে দলিত-সকলে একযোগে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছে। দিল্লির শাহিনবাগে এখনও আন্দোলন চলছে। রাজপথে বসে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন বাড়ির মহিলারা। যা এখন কেন্দ্রের মাথাব্যথার অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এদিন সেই শাহিনবাগ আন্দোলনে মদত দেওয়ার অভিযোগ তুলে আপ ও কংগ্রেসকে তুলোধনা করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

[আরও পড়ুন : এবার ভোটার কার্ডেও আধার যোগ, নির্বাচন কমিশনের প্রস্তাব মানল আইনমন্ত্রক]

শুক্রবার এক নির্বাচনী জনসভায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর দাবি করেন, “আপ ও কংগ্রেস মিলে CAA নিয়ে সংখ্যালঘুদের মনে বিষ ঢালছে।” তাঁর কথায়, “আমরা দেখেছি, বিক্ষোভ আন্দোলন থেকে জিন্না ঘোষিত স্বাধীনতার পক্ষে স্লোগান উঠেছে। এবার দিল্লির মানুষকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে তাঁরা কী চান, ভারত মাতার জয় নাকি জিন্নার স্বাধীনতা?”

[আরও পড়ুন : ভারতেও করোনা ভাইরাস আতঙ্ক! আক্রান্ত সন্দেহে হাসপাতালে ১১ জন]

এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কথায় বারবার ঘুরেফিরে এসেছে শাহিনবাগ প্রসঙ্গ। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে শাহিনবাগে বসে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন মহিলারা। যার ফেলে দক্ষিণ দিল্লির সঙ্গে নয়ডার সংযোগকারী এলাকার সরিতা বিহার, বদরপুর অঞ্চলের মানুষদের অসুবিধার মধ্যে পড়তে হচ্ছে।  এই ইস্যুতে আপ ও কংগ্রেসকে একযোগে বিঁধেছেন গেরুয়া শিবিরের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তাঁর অভিযোগ, “দিল্লির মানুষ আপ ও কংগ্রেসকে জিজ্ঞেস করুক, তারা কেন অশান্তিতে মদত দিচ্ছে? শাহিনবাগের আন্দোলনের পিছনে আপ ও কংগ্রেসের মদত রয়েছে। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও উপমুখ্যমন্ত্রী মণীষ শিশোদিয়া আন্দোলনকারীদের সমর্থন করছে।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং