Advertisement
Advertisement
Karanataka

কর্ণাটক মন্ত্রিসভায় ঠাঁই হয়নি দাদুর, আবদার করে রাহুল গান্ধীকে ‘মিষ্টি’ চিঠি নাতনির!

ছোট মেয়ের লেখা চিঠিটি দেখেছেন?

'Want him to become minister', little granddaughter of Karnataka Congress leader writes to Rahul Gandhi
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:May 29, 2023 1:15 pm
  • Updated:May 29, 2023 1:28 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সদ্যই ভোটে জিতে কর্ণাটকের শাসনক্ষমতার ভার কাঁধে তুলে নিয়েছে কংগ্রেস (Congress)। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা সিদ্দারামাইয়া, উপমুখ্যমন্ত্রী ডি কে শিবকুমার। রবিবার মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্যে বিভিন্ন দপ্তর বণ্টন করা হয়েছে। কিন্তু তাতে ঠাঁই পাননি বর্ষীয়ান বিধায়ক টিবি জয়চন্দ্র। তা নিয়ে ক্ষোভও উগড়ে দিয়েছেন তিনি। এই অবস্থায় দাদুকে শান্ত করতে রাহুল গান্ধীর (Rahul Gandhi) কাছে চিঠি লিখল নাতনী! ছোট্ট মেয়ের আবদার, দাদুকে মন্ত্রী করে দেওয়ার। যদিও দলের তরফে এ নিয়ে এখনও কোনও মতামত জানানো হয়নি।

শনিবার বেঙ্গালুরুর অনুষ্ঠানে শপথ নিয়েছেন কর্ণাটকের (Karnataka)মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া। অন্যান্য মন্ত্রীরাও শপথ নিয়েছেন। তবে বাদ পড়েছেন বর্ষীয়ান বিধায়ক টিবি জয়চন্দ্র। দাদুকে মন্ত্রী পদে দেখতে চেয়ে এবার রাহুল গান্ধীকে চিঠি লিখল তাঁর ছোট্ট নাতনি। সে লিখেছে – ”প্রিয় রাহুল গান্ধী, আমি টিবি জয়চন্দ্রের নাতনি। আমার খারাপ লাগছে যে দাদু এবার মন্ত্রী হতে পারেনি। আমি চাই, দাদু মন্ত্রী হোক। কারণ, তিনি দয়ালু, পরিশ্রমী আর খুব যোগ্য।” পেন্সিলে এটুকু লিখে নিচে সে নিজের নাম লিখেছে – অর্না সন্দীপ।

Advertisement

Advertisement

 

খুদের এই চিঠি এখন ভাইরাল (Viral) নেটদুনিয়ায়। সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় পাতায় ঘুরছে চিঠিটি। কিন্তু কেন মন্ত্রিসভায় স্থান হল না টিবি জয়চন্দ্রের? এর নেপথ্য কাহিনী কিন্তু পুরোপুরি রাজনৈতিক। কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব তাঁকে কর্ণাটক বিধানসভার স্পিকার (Speaker) করতে চেয়েছিল। সেইমতো প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু মল্লিকার্জুন খাড়গে, সিদ্দারামাইয়াদের এই প্রস্তাব একেবারেই ভালভাবে গ্রহণ করেননি জয়চন্দ্র। তাঁর মত ছিল, মন্ত্রী হওয়ার যথেষ্ট যোগ্যতা আছে তাঁর, তবে কেন স্পিকার হিসেবে কাজ করবেন? এরপর আর শীর্ষ নেতৃত্বের কারও সঙ্গে কোনও কথা বলেননি তিনি। ফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেন খাড়গে, সিদ্দারামাইয়ারা। কিন্তু ফোন ছিল বন্ধ। শনিবার শপথের আগে তাই জয়চন্দ্রে কোনও কথাই হয়নি তাঁদের। স্বভাবতই কোনও দপ্তরের মন্ত্রী হিসেবে তাঁকে তালিকায়ও রাখা হয়নি।

[আরও পড়ুন: পুতিনের সঙ্গে বৈঠকের সময়েই বিষপ্রয়োগ? হাসপাতালে সংকটজনক বেলারুশের প্রেসিডেন্ট]

এসব অবশ্য ছোট্ট অর্নার জানার কথা নয়। সে শুধু বুঝেছে, দাদু মন্ত্রী হয়নি, তাই দাদু খুব রেগে আছে। তারও মনখারাপ। অতএব ছোট মেয়ে রাহুল গান্ধীকে চিঠি লিখেই দাদুকে মন্ত্রী করার আরজি জানিয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘জঙ্গলমহলে বিজেপি কর্মীর গায়ে হাত দেবেন না, জ্বলে যাবে’, চরম হুঁশিয়ারি দিলীপের]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ