BREAKING NEWS

৭ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ফের পিছোল পঞ্চায়েত মামলার শুনানি

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: August 17, 2018 4:57 pm|    Updated: August 17, 2018 4:58 pm

WB panchayat case in SC on Tuesday

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আরও একবার পিছিয়ে গেল পঞ্চায়েত মামলার শুনানি৷ আজ, শুক্রবার ছিল সুপ্রিম কোর্টে পঞ্চায়েত মামলার শুনানি৷ কিন্তু, বিচারপতি অজয় খানউইলকর অসুস্থ থাকায় আরও একবার পিছিয়ে দেওয়া হয় মামলা শুনানি৷ আগামী সোমবার ফের মামলার শুনানি হবে বলে জানা গিয়েছে৷ গত মঙ্গলবার বিচারপতি ওয়াই চন্দ্রচূড় অসুস্থ থাকার জন্য শুনানি স্থগিত হয়ে গিয়েছিল৷

[শরিয়ত আদালতের ধাঁচে দেশের প্রথম হিন্দু কোর্ট স্থাপন করল হিন্দু মহাসভা]

গত ১৪ আগস্ট রাজ্যের সমস্ত পঞ্চায়েতের মেয়াদ শেষ হতে শুরু করেছে৷ পঞ্চায়েতগুলির প্রশাসনিক কাজ চালু রাখতে ইতিমধ্যেই বিডিও, এসডিও ও জেলাশাসকদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে৷ পঞ্চায়েতে প্রশাসক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তিও জারি করেছে নবান্ন৷ পঞ্চায়েত দপ্তর সূত্রে খবর, গ্রাম পঞ্চায়েতে বিডিও, পঞ্চায়েত সমিতিতে এসডিও ও জেলা পরিষদে জেলাশাসকদের প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ করা হবে৷ যে পঞ্চায়েতগুলি সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন হয়েছে, সেগুলিতে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে বোর্ড গঠনের কাজ শুরু হবে বলে জানা গিয়েছে৷ পঞ্চায়েত আইন অনুযায়ী, বোর্ড গঠনের প্রথম মিটিংয়ের পাঁচ বছর পূরণ হতেই ওই বোর্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়৷ ফলে, পুরনো বোর্ডগুলির মেয়াদ শেষ হতেই শুরু হয়েছে বোর্ড গঠনের প্রক্রিয়া৷

[বাজপেয়ীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে আক্রান্ত স্বামী অগ্নিবেশ]

এ বারের নির্বাচনে পঞ্চায়েত সমিতির মোট ৯২১৭টি আসনের মধ্যে তৃণমূল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতেছে ৩০৫৯টি আসনে৷ গ্রাম পঞ্চায়েতে মোট ৪৮ হাজার ৬৫০টি আসনের মধ্যে ১৬ হাজার ৮১৪টিতে বিনা লড়াইয়ে জিতেছে শাসকদল। জেলা পরিষদের মোট ৮২৫টির মধ্যে ২০৩টি আসনে কোনও লড়াই হয়নি। পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে বিরোধী দলগুলি মামলা করেছিল। কয়েকটি জনস্বার্থ মামলাও হয় কলকাতা হাই কোর্টে। যা শেষ পর্যন্ত মামলা গড়ায় সুপ্রিম কোর্টে। জেলা পরিষদ, বহু পঞ্চায়েত সমিতি ও গ্রাম পঞ্চায়েতের মামলা শীর্ষ আদালতে ঝুলে। প্রতিটি আসনে ভোট হওয়া গ্রাম পঞ্চায়েত, পঞ্চায়েত সমিতি এবং জেলা পরিষদের বোর্ড গঠনের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। রাজ্যের পঞ্চায়েত সদস্যদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছে। পঞ্চায়েত সদস্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজও প্রায় শেষ৷ আইনগতভাবে যে সমস্ত পঞ্চায়েতে অল্প সংখ্যক প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে এসেছেন, তাঁদের বাইরে রেখে নির্বাচনে জয়ীদের নিয়ে বোর্ড গঠন করা যায়। কিন্তু যেসব ক্ষেত্রে বেশিরভাগ প্রার্থীই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী, সেখানে বোর্ড গঠন করা অসম্ভব। রাজ্যের গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় ৩৪ শতাংশ আসনে শাসকদল তৃণমূল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতেছে। মামলার কারণে এই আসনগুলিতে বোর্ড গঠন সম্ভব নয়। এই কারণে পঞ্চায়েত দপ্তর প্রশাসক নিয়োগ করছে বলে জানিয়েছেন পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়।

[বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি, কেরলে যাচ্ছেন মোদি]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে