২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

সব কিছুতেই যদি নারীর সমান অধিকার থাকে, শাস্তির ক্ষেত্রে কেন নয়?

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 14, 2017 12:33 pm|    Updated: October 9, 2019 6:01 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নারীবাদের জমানা। ঘরে-বাইরে সব কিছুতেই মহিলাদের সমান অধিকারের জন্য সওয়াল করা হয়। লিঙ্গবৈষম্যের বিরুদ্ধে হামেশা আওয়াজ তোলা হয়। তাহলে অপরাধ জগতেই বা কেন মহিলারা নারী হওয়ার সৌজন্যে রেহাই পাবেন? সম্প্রতি এই প্রশ্নই তোলা হল দেশের সর্বোচ্চ আদালতে।

[নাবালিকাদের যৌনচ্ছেদের অভিযোগে গ্রেপ্তার প্রবাসী ভারতীয় চিকিৎসক]

হিমাচল প্রদেশের এক মামলার পরিপ্রেক্ষিতে প্রশ্নটি তোলা হয় বিচারপতি সিক্রি ও অশোক ভূষণের ডিভিশন বেঞ্চে। হিমাচল প্রদেশের রাজ্যের পক্ষ থেকে তোলা একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে এই প্রশ্ন তোলেন বিচারপতিরা। তাঁরা বলেন, যদি সবক্ষেত্রেই মহিলাদের সমান অধিকার পেয়ে থাকেন তাহলে অপরাধের শাস্তির ক্ষেত্রে কেন নয়? কেন সেখানে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কেবলমাত্র মহিলা হওয়ার জন্য তাঁদের রেয়াত করা হবে? অপরাধ তো সবার ক্ষেত্রেই সমান হয়। তাহলে তো শাস্তির পরিমানও সমান হওয়া উচিত।

[বিষাক্ত আফিমের খোসা তুলতে গিয়ে মৃত ৩, আহত আরও ২]

মামলাটি করা হয়েছিল হিমাচল প্রদেশের সরকারের পক্ষ থেকে। হিমাচল প্রদেশ হাই কোর্টের বহু পুরনো একটি রায়কে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে চ্যালেঞ্জ করেছিল সরকার। ২০০০ সালে এক মহিলা তাঁর এক সঙ্গীর সাহায্যে এক ব্যক্তির সর্বস্ব লুঠ করেছিল। ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ওই ব্যক্তির থেকে প্রায় ২৭,০০০ টাকার সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়া হয়। ধরা পড়ার পর ওই মহিলাকে যখন আদালতে তোলা হয়। ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয় তাকে। কিন্তু পরে হিমাচল প্রদেশ হাই কোর্ট সিদ্ধান্ত বদলে মহিলাকে দুই বছরের কারাবাস ও ৩০,০০০ টাকা জরিমানার শাস্তি শোনায়। এই রায়ের পক্ষে হাই কোর্টের যুক্তি ছিল, মহিলার তিনটি সন্তান রয়েছে। যার মধ্যে দু’জনই মানসিক ভারসাম্যহীন। তবে রায়ের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতে আপিল করেছিল হিমাচল প্রদেশ সরকার। যার পরিপ্রেক্ষিতে আদালত জানিয়ে দেয়, নারী-পুরুষের যদি সব কিছুতেই সমান অধিকার থাকে। তাহলে তা অপরাধের শাস্তি বা মাফের ক্ষেত্রেও থাকা উচিত।

[বলিউডের হিরোদেরও টক্কর দিতে পারে ‘চ্যাম্প’ দেবের এই লুক]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement