BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ধর্ষণ করে মহিলারাও, তাদের সাজা নয় কেন? প্রশ্ন সুপ্রিম কোর্টে

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 12, 2018 6:35 am|    Updated: January 12, 2018 6:35 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চিরাচরিত প্রথা পালটে এবার পুরুষদের যৌন নির্যাতনের কথা সুপ্রিম কোর্টে তুলে ধরলেন এক আইনজীবী। তাঁর বক্তব্য, যৌন নিগ্রহ, পিছু নেওয়ার মতো অপরাধে জড়িত থাকে মেয়েরাও। সেক্ষেত্রে দোষীদের শাস্তি দেওয়া হোক। এই মর্মে শীর্ষ আদালতে একটি জনস্বার্থ মামলা করেন সুপ্রিম কোর্টেরই আইনজীবী ঋষি মালহোত্রা।

[শৈশবের যৌন নির্যাতন, যৌবনকে গ্রাস করতে পারে হতাশায়]

দাখিল করা পিআইএল-এ ওই আইনজীবী বলেন, ধর্ষণ ও যৌন নিগ্রহের মতো অপরাধে মহিলাদের মত পুরুষরাও একইভাবে নির্যাতিত হতে পারেন। সেক্ষেত্রে তাঁদের ন্যায় পাইয়ে দেবে কে? বর্তমান আইনে, যদি কোনও পুরুষ কোনও মহিলার বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও যৌন নিগ্রহের অভিযোগ করেন, তবে সেই মহিলার বিরুদ্ধে কোনও আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয় না। এর কারণ মান্ধাতা আমলের প্রায় ১৫৮ বছরের পুরনো ভারতীয় দণ্ডবিধির বিশ্বাস, মহিলারা এহেন অপরাধ করতে পারেন না। তাই অনেক ক্ষেত্রে আইনের ফাঁক গলে পার পেয়ে যায় অপরাধীরা। উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে সুপ্রিম কোর্ট প্রশ্ন তোলে, ব্যভিচারের সাজা লিঙ্গ নিরপেক্ষ হতে পারে কিনা। সেই বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে এই মামলায়।

আইনজীবী ঋষি মালহোত্রা বলেন, অপরাধের কোনও লিঙ্গ হয় না। তাই আইনও লিঙ্গ নিরপেক্ষ হওয়া উচিত। যে কারণে পুরুষরা অপরাধ করে। একই কারণে মহিলারাও অপরাধে জড়ান। তাই আইনের উচিত অপরাধীদের মধ্যে ভেদাভেদ না করা। তিনি আরও জানান, এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ২২২ জন ভারতীয় পুরুষের মধ্যে ১৬.১ শতাংশকে যৌনতায় লিপ্ত হতে বাধ্য করা হয়েছে। মেয়েদের ধর্ষণ নিয়ে যেমন গবেষণা হয়, পুরুষদের ধর্ষণ নিয়ে তার এক শতাংশও হয় না। কিন্তু বহু সমীক্ষা বলছে, পুরুষরাও ধর্ষণের শিকার হন, আর তার সংখ্যা যতটা মনে করা হয় তার থেকে অনেক বেশি। তাই এ ধরনের অপরাধ লিপিবদ্ধ করতে ও জনসমক্ষে আনতে লিঙ্গ নিরপেক্ষ আইনের প্রয়োজন বলে জানান মামলাকারী।

[এবার কার্টুন দেখানোর নাম করে শিশুকন্যাকে যৌন নির্যাতন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement