BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফিরে দেখা ২০১৭: শহরে শোরগোল ফেলল যে ঘটনাগুলি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 28, 2017 1:13 pm|    Updated: September 18, 2019 1:55 pm

An Images

কখনও ফুটবল জ্বর তো কখনও আমাজন অভিযানের ঝড়। অনেক ভাঙা-গড়ার পালা পেরিয়ে বছর শেষ করল তিলোত্তমা। ২০১৭-য় কী কী ঘটনা বা স্মৃতির সাক্ষী থাকল এই শহর? কলকাতার অলি-গলি ঘুরে সেই স্মৃতিই টেনে আনল সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল

ক্লিনিক্যাল এস্টাবলিশমেন্ট বিল

স্বাস্থ্য পরিষেবা প্রোমোটিং ব্যবসা নয়। বেসরকারি হাসপাতালের অনিয়ম নিয়ে সরব হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। হাসপাতাল কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসে কড়া বার্তাও দিয়েছিলেন। কিন্তু তাতেও হাল ফেরেনি। রোগীদের অভাব-অভিযোগের ফিরস্তি ক্রমাগত বেড়েই চলেছিল। শেষমেশ বিল করেই বেসরকারি হাসপাতালের বেনিয়মে লাগাম টানলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পেশ হল ঐতিহাসিক ক্লিনিক্যাল এস্টাবলিশমেন্ট বিল। প্রস্তাবিত বিলে জানানো হয়, গাফিলতির কারণে রোগীর মৃত্যু হলে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে হাসপাতালকেই। রোগীর আর্থিক সংস্থান দেখে কখনওই চিকিৎসা চলতে পারে না। দুর্ঘটনা, অ্যাসিড হামলা, ধর্ষণের ক্ষেত্রে রোগীর চিকিৎসায় আগাম টাকাপয়সার কথা ভাবা চলবে না। প্যাকেজের বাইরে বাড়তি টাকা নেওয়া যাবে না। টাকার জন্য মৃতদেহ আটকে রাখাও অপরাধের পর্যায়ভুক্ত হবে। পাশাপাশি গঠন করা হয় স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক কমিশনও।

mamata_web

প্ল্যাস্টিক ডিমের আতঙ্ক

আচমকাই শহরকে গ্রাস করেছিল এই আতঙ্ক। পার্ক সার্কাসের বাজার থেকে ডিম কেনেন গৃহবধূ অনিতা কুমার। সেদ্ধ করতে গিয়ে দেখেন তা প্লাস্টিকের মতো প্রসারণশীল। প্লাস্টিক পোড়া গন্ধও বেরচ্ছে। এরপরই তিনি পুলিশের কাছে অভিযোগ জানান। আটক করা হয়েছে মহম্মদ শামিম আনসারি নামে সেই ডিম বিক্রেতাকে।এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ তলব করে রবীন দেবের ভাইপো ব্যবসায়ী সুমিত দেবকেও। একই সময়ে পরপর একাধিক ঘটনা সামনে আসে। চিনা ষড়যন্ত্রের অভিযোগও ওঠে। শঙ্কিত মধ্যবিত্ত ডিম ছুঁতেও ভয় পাচ্ছিলেন। শেষমেশ আসরে নেমে মুখ্যমন্ত্রীকে আশ্বাস দিতে হয়। উদ্বিগ্ন প্রশাসন বাইরে থেকে আসা ডিমের উপর নজরদারির ব্যবস্থা করে। এরপর বছরের শেষের দিকে ডিমের দাম আকাশ ছোঁয়। তা নিয়েও গোটা শহরে বিস্তর শোরগোল পড়ে।

ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ

তিলোত্তমা ফুটবল পাগল শহর। কিন্তু সব আবেগ তোলা থাকে ক্লাবের খেলার জন্য। আর বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে সমর্থন বলতে ব্রাজিল কিংবা আর্জেন্টিনাকে। নীল জার্সি গায়ে কোনও ভারতীয় বিশ্বকাপের আসর মাতাচ্ছে, এই সেদিনও তা ছিল স্রেফ স্বপ্ন। চলতি বছরে তা বাস্তব হয়েছে। অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপের আয়োজক দেশের অন্যতম শহর হিসেবে কলকাতাতেও বসেছে বিশ্বকাপের আসর। নয়া সাজে সেজে উঠেছিল যুবভারতী। স্টেডিয়ামের সামনে বসে মুখ্যমন্ত্রীর ভাবনাপ্রসূত অপূর্ব এক ভাস্কর্য। তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিস্তর আলোচনাও হয়। সব মিলিয়ে শহরে বসেই বিশ্বকাপের স্বাদ পান শহরবাসী।

ফিরে দেখা ২০১৭: ভাইরাল হয়েছিল যে সব ঘটনা ]

শহরে বিশ্বকাপের সেমি ও ফাইনাল

পড়ে পাওয়া বটে, তবে যাকে বলে একেবারে সোনায় সোহাগা। শহরে বিশ্বকাপের ফাইনাল হবে ঠিক তো ছিলই। এদিকে গুয়াহাটির স্টেডিয়াম খারাপ হওয়ার জন্য সেমিও চলে আসে কলকাতায়। সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। অল্প সময়ের মধ্যেই প্রস্তুতি নেয় কলকাতা। সাম্বার ছন্দে মেতে ওঠার প্রত্যাশায় সেদিন যেন সব পথ গিয়ে মিশেছিল যুবভারতীতেই। পাশাপাশি ফাইনালও হল এ শহরেই। ফিফার মতো আন্তর্জাতিক সংস্থার অনুষ্ঠানে বাংলার উপস্থিতি, আন্তর্জাতিক মঞ্চে শহরের জন্যও ভাল বিজ্ঞাপন হয়েই থাকল।

মিলনমেলা থেকে সরল বইমেলা

ইঙ্গিত গতবছরের বইমেলার সময়ই মিলেছিল। মিলনমেলা থেকে সরতে পারে বইমেলা। এবছর তা সত্যি হল। মিলনমেলা সংস্কারের কারণে বইমেলা এবছর সেন্ট্রাল পার্ক চত্বরে। যদিও বইপ্রেমীদের মধ্যে এ নিয়ে মৃদু অসন্তোষ এখনও আছে। একে তো অবস্থানগত দূরত্ব। অন্যদিকে স্থান সংকুলান নিয়েও ভাবনা। প্রশাসনের তরফে জানানো হয়, জায়গা কিঞ্চিত কম হলেও মেলা যাতে সুষ্ঠুভাবে হয়, তার সবরকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। লিটিল ম্যাগাজিন মেলাও এবার রবীন্দ্রসদন চত্বর থেকে সরে যায় সল্টলেকের রবীন্দ্র ওকাকুরা ভবনে। তা নিয়েও জোর সমালোচনা চলে শহরে।

ফিরে দেখা ২০১৭: বছর জুড়ে যে সব ঘটনার ঘনঘটা ]

মোহনবাগান মাঠে আমাজন অভিযান পোস্টার লঞ্চ

জায়ান্ট সাইজ পোস্টার বলাই যায়। বাংলা ছবি যেমন গণ্ডি কেটে বেরতে পেরছে আমাজনে, পোস্টারেও থাকল তেমনি ছাপ। মোহানবাগান মাঠ প্রায় ঢাকা দিল দেবের আমাজন অভিযান-এর পোস্টার। যা টেক্কা দিল বাহুবলীর পোস্টারকেও।পোস্টারটি লম্বালম্বি রাখলে উচ্চতা ৩২০ ফুট, আর চওড়ায় ১৯০ ফুট৷ শুনতে অবাক লাগতেই পারে৷ কিন্তু এ পোস্টারটি উচ্চতায় ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, কুতুব মিনার এমনকী স্ট্যাচু অফ লিবার্টিকেও (৯৩ মিটার) পিছনে ফেলে দিয়েছে৷ হ্যাঁ, এত বড় সত্যিকেই চাক্ষুস করলেন সিনেপ্রেমীরা৷

ইডেনে কপিল-সৌরভ-ধোনি

বহু ঐতিহাসিক মুহূর্তের সাক্ষী থেকেছে ইডেন। নানা ঘটনা ঘটেছে ক্রিকেটের এই মক্কায়। তবে চলতি বছরে এক কিংবদন্তি ফ্রেম মিলল ইডেনের সবুজ গালিচায়। যখন একযোগে ধরা দিলেন কপিল দেব, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও মহেন্দ্র সিং ধোনি। ভারতীয় ক্রিকেটের তিন প্রজন্মের তিন সেরা অধিনায়ক। সাফল্য, জেদে যাঁরা একে অপরকে টেক্কা দিয়েও এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেটকে। অরিন্দম শীলের পরিচালনায় এক বিজ্ঞাপনের কাজেই তাঁদের একসঙ্গে আসা।প্রাপ্তি শহরবাসীর।

eden

তিন আল কায়দা জঙ্গি ধৃত

খাগড়াগড় বিস্ফোরণ কাণ্ডের পরই রাজ্যে আল কায়েদা মডিউল স্পষ্ট হয়েছিল। চলতি বছরে সন্ত্রাসীদের কোমর ভাঙতে বড় সাফল্য পেল কলকাতা পুলিশের এসটিএফ। গ্রেপ্তার করা হয় তিন আল কায়দা জঙ্গিকে। শহরকে করিডর করে নাশকতা ছড়ানো ও সংগঠনকে মজবুত করার দায়িত্ব ছিল তাদের উপর। তার আগেই পাকড়াও করে পুলিশ। ধৃতদের নাম সামসুদ মিঞা ওরফে তনভির বিশ্বাস ওরফে তুষার বিশ্বাস, রিয়াজুল ইসলাম ওরফে সুমন এবং মনোতোষ দে ওরফে মনাদা। সামসুদ ও রিয়াজুল বাংলাদেশের বাসিন্দা। সামসুদ পেশায় একজন ইঞ্জিনিয়ার। অন্যদিকে মনোতোষ বসিরহাটের বাসিন্দা। প্রথম দুজনই আনসারউল্লা বাংলা টিমের সদস্য বলে জানা গিয়েছে। অন্যজন অস্ত্র কারবারি। আল কায়েদা জঙ্গিকে পাকড়াও কলকাতা পুলিশের বড় সাফল্য।

[  ফিরে দেখা ২০১৭: লেগেছে যে সব কেলেঙ্কারির দাগ ]

জি ডি বিড়লায় যৌন হেনস্তা

বছরশেষের শহর উত্তাল হয় এ ঘটনায়। সামনে আসে জি ডি বিড়লার মতো নামী স্কুলে এক দুধের শিশুর যৌন হেনস্তার ঘটনা। অভিযুক্ত দুই পিটি শিক্ষক। তারাই শিশুটিকে চকোলেটের লোভ দেখিয়ে বাথরুমে নিয়ে গিয়ে তার গোপনাঙ্গে আঙুল দেয়। প্রাথমিক পরীক্ষায় যৌন হেনস্তা প্রমাণিত হয়। পুলিশ গ্রেপ্তার করে অভিযুক্তদের। এদিকে অধ্যক্ষার অপসারণ চেয়ে লাগাতার বিক্ষোভে বসেন অভিভাবকরা। তড়িঘড়ি স্কুলে বসানো হয় সিসিটিভি। ক্রমাগত বিক্ষোভের মুখে অভিভাবকদের দাবি মেনে নেওয়া হয়। সরিয়ে দেওয়া হয় প্রিন্সিপালকে। এদিকে স্কুল খোলা ও না-খোলা নিয়ে অভিভাবকদের মধ্যেই দেখা দেয় দ্বন্দ্ব। শেষমেশ এই ইস্যুতে সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছেন নির্যাতিতার বাবা। অন্যদিকে তদন্তের অগ্রগতি জানতে চেয়ে রিপোর্ট তলব করেছে আদালত।

GD-Birla_web

এর পাশাপাশি এম পি বিড়লা স্কুলেও এক শিশুকে যৌন হেনস্তার অভিযোগ ওঠে। স্বাভাবিকভাবেই নামী দুই স্কুলের এরকম ঘটনা অভিভাবকদের শঙ্কিত করে।

যুবভারতীতে বহুদিন পর ডার্বি

বছরের ফুটবল ভাগ্যে আরও এক সংযোজন। বহুদিন পর ডার্বি এল যুবভারতীতে। নতুন সাজে সেজে ওঠা মাঠ। অন্যদিকে দলবদলের পর নতুন সমীকরণ। মোহনবাগানের এককালের অধিনায়ক কাতসুমি চলে গিয়েছেন লাল হলুদ শিবিরে। অন্যদিকে আই লিগ জয়ী কোচ খালিদ জামিলের নেতৃত্বে নয়া জমানা শুরু হয়েছে ইস্টবেঙ্গলে। ফলে ডার্বি নিয়ে তুমুল উত্তেজনা ছিল শহরের ফুটবলপ্রেমীদের মধ্যে। খালিদ জামিলের তুকতাক নিয়ে দেদার আলোচনা হয় ফুটবলপ্রেমীদের মধ্যে। হাই ভোল্টেজ ম্যাচে অবশ্য সঞ্জয় সেনের কৌশলের কাছে আটকে যান তিনি। জয় পায় মোহনবাগান।

মারমেড বেবি

কোমরের নিচে পায়ের কোনও অস্তিত্ব নেই। যা আছে তা হুবহু মাছের লেজের মতো দেখতে।  ফ্লোরিডা, পেরুর পর কলকাতা।  ফের মাতৃজঠরে জন্ম নিল মৎস্যকন্যার মতো মাছ-মানুষ। বিরলের মধ্যে বিরলতম।  এই ধরনের শিশুরা বেশিক্ষণ বাঁচে না। এই শিশুটি অবশ্য চারঘণ্টা কুড়ি মিনিট বেঁচেছে।  হাজরার চিত্তরঞ্জন সেবাসদনে এই বিস্ময়-শিশু। তৈরি হয় এক ইতিহাস। ‘মারেমড বেবি’-র অভিধানে ঢুকে পড়ে কলকাতা। শহরের ক্ষণজন্মা মৎস্যকন্যার  মা মুসকুরা বিবি।  বাবা বেলাল হোসেন। মেটিয়াবুরুজের রাজাবাগান থানা এলাকার কারবালার বাসিন্দা তাঁরা। সেবাসদনের শিশু বিভাগের প্রধান ডা। সুদীপ সাহা জানিয়েছিলেন, শিশুটি সিরনোমেলিয়া বা মারমেড সিনড্রোমে আক্রান্ত ছিল। এক লাখ শিশু জন্মালে একজনের এমন রোগ হয়। বিশ্বে এখনও পর্যন্ত পাঁচজন শিশু এমন শরীরী গঠন নিয়ে জন্মেছে।

mermaid-baby_web

মারাদোনা মাতালেন কলকাতা

পুজোর পর থেকেই ফুটবলপ্রেমীরা মনে মনে বড়পুজোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। বছরটা বাংলার ফুটবলপ্রেমীদের জন্য সোনায় বাঁধানো। একদিকে অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ। তারপরই মারাদোনা আসার খবর। বারকয়েক দিনক্ষণ পিছিয়েছে। তবে উত্তেজনায় ভাটা পড়েনি। শেষমেশ এলেন ফুটবলের রাজপুত্র। বাংলায় ফুটবলকে প্রমোটও করলেন। দিয়েগোর সঙ্গে দেখা হল শহরের ‘দাদা’ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়েরও। দুই কিংবদন্তির পাশাপাশি আসা শহরবাসীর কাছে এক অনন্য মুহূর্ত উপহার।

maradona_web

তারকাটা অ্যাডমিন গ্রেপ্তার

ট্রোল সংস্কৃতি ক্রমশ মাথাচাড়া দিচ্ছে। বাঁকুড়া মিম থেকে স্পেসিফায়েড তারকাটা-র মতো পেজগুলি রঙ্গ-রসিকতার নামে শালীনতার সীমা ছাড়াচ্ছিল। কখনও মনীষী তো কখনও শিশুদের যৌনতা নিয়ে খোঁচা। মহিলাদের ঋতুস্রাব নিয়েও আক্রমণে বাধ সাধেনি। আঁচড় গিয়ে পড়ে পরোক্ষে নেতাজির গায়েও। তারপরই শহরবাসী নেটদুনিয়ায় গণ প্রতিবাদ জানাতে থাকেন। পুলিশ গ্রেপ্তার করে স্পেসিফায়েড তারকাটা পেজের অ্যাডমিনকে। পদার্থবিদ্যার তৃতীয় বর্ষের ছাত্রের কীর্তি তাজ্জব করে নেটদুনিয়াকে। তবে তাঁর ছবি সমক্ষে প্রকাশ নিয়ে আলোচনায় দ্বিধাভক্ত হয় সোশ্যাল মিডিয়া।

[ ফিরে দেখা ২০১৭: সাড়া ফেলল যে সব নজিরবিহীন ঘটনা ]

আলপনায় রাঙা শহরের রাজপথ

এবছরই এই অভিনব মুহূর্তের সাক্ষী থাকল কলকাতা। মহালয়ার ভোরে শহরের রাজপথ সেজে উঠল রাঙা আলপনায়। অনেকটা বাংলাদেশের বর্ষবরণের আদলেই এই আয়োজন। বাঙালিকে এই শহরের রঙিন রাস্তা উপহার দেওয়ার উদ্যোগের অন্যতম অংশীদার ছিল দক্ষিণের অন্যতম জনপ্রিয় পুজো সমাজসেবী৷ লেক রোডোর প্রায় ১.৪ কিমি রাস্তা সেজে উঠেছিল আলপনার রঙে৷ পরে কলকাতাকে একই কাজে টেক্কা দেয় জেলা। নদিয়া জেলার ফুলিয়ার একটি ক্লাবের উদ্যোগে জেলার রাস্তাও সেজে ওঠে আলপনায়। অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপের সময়ও শহরকে সাজাতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement