১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৮  রবিবার ১৬ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

মিলছে না অ্যাম্বুল্যান্স! কোভিড রোগীদের হাসপাতালে পৌঁছে দিতে পথে ৩০০ অ্যাপ ক্যাব

Published by: Paramita Paul |    Posted: April 27, 2021 6:43 pm|    Updated: April 27, 2021 7:04 pm

300 App Cab on road to take COVID-19 patients to hospitals in Kolkata | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কবি শক্তি চট্টোপাধ্যায় লিখেছিলেন, “মানুষ বড় কাঁদছে, তুমি মানুষ হয়ে পাশে দাঁড়াও”। আজ এই সংকটের মুহূর্তে সেই মন্ত্রেই দীক্ষিত হয়েছেন কিছু মানুষ। যাঁর যতটা সামর্থ্য, তিনি ঠিক সেভাবেই মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। কলকাতা আবার প্রমাণ করছে, মানবিকতা এখনও বেঁচে আছে। ঠিক যেমন বাম শ্রমিক সংগঠন সিটু সমর্থিত অ্যাপ ক্যাবের (App Cab) অপারেটর অ্যান্ড ড্রাইভার ইউনিয়ন।

কোভিড রোগীদের (Corona Virus) হাসপাতালে নিয়ে যেতে বিপাকে পড়তে হচ্ছে রোগীর পরিবারকে। বারবার ফোন করলেও মিলছে না অ্যাম্বুল্যান্স। গাড়ির ব্যবস্থা যদিওবা হচ্ছে,  চালকরা আকাশছোঁয়া দর হাঁকাচ্ছেন। ফলে হাসপাতালে পৌঁছতে পারছেন না অনেকেই। এই সংকট কাটাতেই রাস্তায় নামল প্রায় ৩০০ অ্যাপ ক্যাব। যাঁরা সুরক্ষাবিধি মেনে রোগীকে পৌঁছে দেবে হাসপাতালে।তার জন্য বিশাল অঙ্কের কোনও অর্থও খরচ করতে হবে না। শুধুমাত্র কলকাতা নয়, ফোন করলে গাড়ি পৌঁছে যাবে জেলাতেও। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল আপাতত তাঁদের পোস্টার। সেখানে রয়েছে চারটি ফোন নম্বরও।

[আরও পড়ুন : রাজভবনে আগুন, নিরাপদেই রয়েছেন সস্ত্রীক রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়]

ওলা বা উবর অ্যাপের (App Cab) মাধ্যমে বুক করা যাবে না গাড়িগুলি। বদলে এই চারটি ফোন নম্বরে–9874404040, 9007774116, 967400858 এবং 9748463237 ফোন করলে গাড়ির ব্যবস্থা করা যাবে। ভাড়া নির্ধারিত হবে অ্যাপ ক্যাবের হারেই। ঘণ্টা প্রতি ভাড়া দিতে হতে পারে। সিটু সমর্থিত অ্যাপ ক্যাবের অপারেটর অ্যান্ড ড্রাইভার ইউনিয়নের এই উদ্যোগকে কুর্নিশ জানিয়েছেন অনেকেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের পোস্টার শেয়ার করেছেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ও।নিজেদের এই উদ্যোগ প্রসঙ্গে অ্যাপ ক্যাবের অপারেটর অ্যান্ড ড্রাইভার ইউনিয়নের সম্পাদক মহম্মদ মুনিম জানালেন, “দিকে দিকে অ্যাম্বুল্যান্সের জন্য হাহাকার। এমন পরিস্থিতিতে মানুষের সাহায্য করার চেষ্টা করলাম। শুধু কলকাতা নয়, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে এই ক্যাবগুলি যাবে। আর তাঁদের চালকদের থেকে ইউনিয়ন কোনও টাকা নেবে না। ভাড়ার টাকা সম্পূর্ণটাই পাবেন চালকরা।” তিনি আরও জানালেন, এটাই প্রথম নয়, গত বছর লকডাউনের সময় রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে মানুষ যখন আটকে পড়েছিলেন, তখন তাঁদের বাড়ি পৌঁছে দিতেও কাজ করেছিল এই ইউনিয়ন।
অতিমারীর এই মারাত্মক সংকটকালে তাঁদের এই উদ্যোগকে কুর্নিশ জানিয়েছে আপামর জনতা। এই চালকরাই প্রমাণ করছেন, “সকলের তরে সকলে আমরা, প্রত্যেকে আমরা পরের তরে।”

[আরও পড়ুন : ফের অমানবিক ঘটনা শহরে, কোভিডে মৃতকে বাড়ির সামনে ফেলে ‘চম্পট’ অ্যাম্বুল্যান্স চালকের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement