BREAKING NEWS

২২  মাঘ  ১৪২৯  সোমবার ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

এবার হাঁটা দেখে রোগ নির্ণয় হবে শহরে

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 20, 2017 9:12 am|    Updated: January 20, 2017 10:08 am

3d-gait-analysis-most-advanced-running-injury-diagnostic-tool

গৌতম ব্রহ্ম: জীবনানন্দ দাস বেঁচে থাকলে হয়তো খুশি হতেন৷ সেই কবে ’৪২ সালে তিনি লিখেছিলেন ‘বনলতা সেন’৷ ‘হাজার বছর ধরে আমি পথ হাঁটিতেছি…’৷

বহু মানুষ সুস্থ থাকার জন্য এখন নিয়ম করে হাঁটেন৷ কিন্তু তাই বলে হাঁটাচলা দেখে রোগনির্ণয়? হাত-পা সঞ্চালনের ভঙ্গিমা দেখে রোগের উৎসমূলে পৌঁছনো? এবার এমনটাই শিখবেন কলকাতার চিকিৎসকরা৷ রক্তচাপ, নাড়ির স্পন্দন, হৃদস্পন্দনের মতো হাঁটাচলাও হয়ে উঠতে চলেছে রোগ নির্ণয়ের অন্যতম মানক৷

কাউন্টডাউন শুরু হচ্ছে আজ শুক্রবার থেকে সায়েন্স সিটিতে শুরু হওয়া ‘ইন্ডিয়ান অ্যাসোসিয়েশন অফ ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন’-এর বার্ষিক সম্মেলন (আইএপিএমআরকন)-২০১৭ ‌থেকে৷ ওখানেই ‘থ্রিডি গেইট অ্যানালাইসিস’ নামে ওই বিশেষ পরীক্ষার উপর বিশদে আলোচনা হবে৷ স্নায়ু ও অস্থিসংক্রান্ত রোগ নির্ণয়ে এই পরীক্ষার কদর বিশ্বজুড়ে৷ খেলোয়াড়দের পুনর্বাসন ও ‘পশ্চার’ ঠিক করতেও এই পরীক্ষা অত্যন্ত কার্যকর৷ বিশ্বকাঁপানো অ্যাথলিটরা নিয়মিত এই পরীক্ষার মুখোমুখি হন৷ ওই পরীক্ষাটি রপ্ত করতে পারলেই রোগীর হাঁটা দেখে ডাক্তাররা পড়ে ফেলতে পারবেন রোগের উৎস ও গভীরতা৷

সমস্যা অন্যত্র৷ ভারতে একমাত্র মুম্বইয়ের কোকিলাবেন হাসপাতালে এই পরীক্ষা হয়৷ এই হাসপাতালেরই শরণাপন্ন হয়েছেন ফিজিক্যাল মেডিসিনের চিকিৎসকরা৷ পিজির ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসক তথা আইএপিএমআরকন-১৭-র আয়োজক সম্পাদক ডা. রাজেশ প্রামাণিক জানালেন, “কোকিলাবেন হাসপাতালের ডা. অভিষেক শ্রীবাস্তব ২০ জানুয়ারি এই ‘থ্রিডি গেইট অ্যানালাইসিস’ শেখাবেন৷ একটি প্রেজেণ্টেশনও দেবেন৷ আশা করছি শীঘ্রই কলকাতায়ও এই পরীক্ষা চালু হবে৷” সম্মেলনের উদ্বোধনে থাকবেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, স্বাস্থ্য দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী শশী পাঁজা প্রমুখ৷ প্রতিবন্ধী শিশুদের নিয়ে এক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবেন সৌরভ-জায়া ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়৷ থাকবেন দেশ-বিদেশ থেকে আসা কয়েকশো খ্যাতনামা চিকিৎসক৷ এ রাজ্যে একমাত্র পিজি হাসপাতালেই ফিজিক্যাল মেডিসিনের আলাদা বিভাগ রয়েছে৷ কোমায় আচ্ছন্ন রোগীদেরও এখানে সুস্হ করে তোলার নজির রয়েছে৷ রয়েছে ৩০ শয্যার একটি অন্তবির্ভাগও৷ জানা গিয়েছে, এই বিভাগেই ‘থ্রিডি গেইট অ্যানালাইসিস’ চালুর পরিকল্পনা রয়েছে চিকিৎসকদের৷ রাজেশবাবু জানিয়েছেন, এই পরীক্ষার জন্য একটি আলাদা ঘর দরকার যেখানে দেওয়াল থেকে বিভিন্ন কোনে আলো বেরোবে৷ সেই আলোয় ক্যামেরাবন্দি হবে রোগীর হাঁটাচলার ত্রিমাত্রিক ফুটেজ৷ হাঁটার সময় কত ডিগ্রি কোণে পা পড়ছে, কতটা জোরে পড়ছে৷ হাতটা কতটা ওঠানামা করছে, সবই ক্যামেরাবন্দি হবে৷ রাজেশবাবু জানালেন, স্ট্রোক হলে বা পথ দুর্ঘটনায় মেরুদণ্ড বা মাথায় আঘাত লাগলে ‘মুভমেণ্ট ডিসঅর্ডার’ হয়৷ তাছাড়া পারকিনসনস বা আর্থারাইটিস হলেও হাঁটাচলা বদলে যায় মানুষের৷ সবটাই ওই বিশেষ পদ্ধতিতে তৈরি ম্যাটে হাঁটিয়ে ধরা সম্ভব৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে