২৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে শহরে ডেঙ্গুর বলি আরও এক শিশু। মঙ্গলবার ভোরে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয় ওই শিশুকন্যার। সূত্রের খবর, ওই শিশুর ডেথ সার্টিফিকেটে মৃত্যুর কারণ হিসেবে ডেঙ্গুর উল্লেখ রয়েছে।

জানা গিয়েছে, শ্রীরামপুরের বাসিন্দা সুনিধি শর্মা নামে বছর পাঁচেকের ওই শিশু। কয়েকদিন ধরেই জ্বরে ভুগছিল সে। স্থানীয় চিকিৎসকদের পরামর্শে কাজ না হওয়াও তাকে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল ছোট্ট সুনিধির। মঙ্গলবার ভোর রাতে সেখানেই মৃত্যু হয় ওই শিশুর। জানা গিয়েছে, শিশুর ডেথ সার্টিফিকেটে মৃত্যুর কারণ হিসেবে ডেঙ্গুর উল্লেখ রয়েছে।

হাসপাতালের চিকিৎসকদের কথায়, ডেঙ্গু আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। আগে জ্বর কমে গেলেই মনে করা হত যে বিপদ কেটে গিয়েছে। কিন্তু এখন জ্বর কমে যাওয়ার পরও বিপদ থেকেই যাচ্ছে। বরং জ্বর কমার পরই ঝুঁকি বাড়ছে। তিনি জানান, সোমবার সকালেই জ্বর ছেড়ে ছিল সুনিধির। এরপর মঙ্গলবার সকালে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে ফুটফুটে খুদে।

[আরও পড়ুন: পোশাক বিধি না মানায় প্যান্ট খুলিয়ে ছাত্রীদের শাস্তি, কাঠগড়ায় বোলপুরের স্কুল]

প্রসঙ্গত, সোমবার সকালে পার্ক সার্কাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছিল বছর তিনেকের অহর্ষি ধরের। কয়েকদিন ধরেই জ্বরে ভুগছিল লেকটাউনের বাসিন্দা বছর তিনেকের অহর্ষি ধর। গত সোমবার তাকে পার্ক সার্কাসের ইনস্টিটিউট অফ চাইল্ড হেলথে ভরতি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল তার। অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় তাঁকে আইসিইউ-তে রাখা হয়েছিল। রবিবার গভীর রাতে সেখানেই মৃত্যু হয় অহর্ষির। যদিও খুদের মৃত্যুর জন্য হাসপাতালকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে পরিবারের সদস্যরা।

উল্লেখ্য, পুজোর পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে থাবা বসাতে শুরু করেছিল ডেঙ্গু। লাফিয়ে বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। মৃত্যু হয়েছে বহু মানুষের। ডেঙ্গু নিধনে পুরসভার তরফে বিভিন্ন পদক্ষেপও নেওয়া হয়েছে, কিন্তু তা সত্ত্বেও যেন কিছুতেই রোখা যাচ্ছেনা ডেঙ্গুর দাপট। ক্রমাগত ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এবং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ভয়াবহ আকার ধারণ করছে ডেঙ্গু।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং