BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

উল্টোডাঙায় ছেলেমেয়ের সামনেই শ্লীলতাহানির শিকার মহিলা আইনজীবী, অধরা অভিযুক্তরা

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: November 3, 2019 10:52 am|    Updated: November 3, 2019 3:37 pm

female lawyer from kolkata physical harassed by some local miscreants

ছবি প্রতীকী

সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়: রাতের শহরে ফের ঘটল শ্লীলতাহানির ঘটনা। অভিনেত্রী-মডেল এবং মহিলা বক্সারের পর এবার দুষ্কৃতীরা ছেলেমেয়ের সামনেই শ্লীলতাহানি করল এক মহিলা আইনজীবীর। ঘটনাস্থল উল্টোডাঙার বিধাননগর রোডে। বিরাটির আত্মীয়র বাড়িতে নিমন্ত্রণ খেয়ে ফেরার পথে দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত হলেন ওই মহিলা আইনজীবী।

[আরও পড়ুন: প্রতিবেশীর স্ত্রীকে কুপ্রস্তাব দেওয়ার জেরেই খুন কড়েয়ার ‘কোটিপতি’ অটোচালক]

গত সোমবার, অর্থাৎ কালীপুজোর পরের দিন রাতে ওই আইনজীবী তিন ছেলেমেয়েকে সঙ্গে নিয়ে বিধাননগরের বাড়িতে ফিরছিলেন। বাড়ির গলিতে ঢোকার মুখেই তাঁর গাড়ির সঙ্গে সামান্য ধাক্কা লাগে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা একটি মোটরবাইকের। অভিযোগ, তারই জেরে ওই মোটরবাইকের মালিক কৌশিক দত্ত ওরফে পকাই বন্ধুদের নিয়ে এসে ওই মহিলা আইনজীবীকে জোর করে গাড়ি থেকে নামায়। এরপর প্রকাশ্য রাস্তায় তাঁকে মারধরের পর শ্লীলতাহানি করে। ঘটনাটি জানিয়ে বৃহস্পতিবার ওই মহিলা আইনজীবী উল্টোডাঙা থানায় গিয়ে পকাই-সহ অন্যান্যদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন। জানান কলকাতা পুলিশের যুগ্ম নগরপাল (অপরাধ) মুরলীধর শর্মা এবং ডিসি (ইএসডি) দেবস্মিতা দাসকেও। সব কথা শুনে উল্টোডাঙা থানার পুলিশকে অপরাধীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করার নির্দেশ দেন তাঁরা। এরপর শুক্রবার ওই মহিলা আইনজীবী শিয়ালদহ কোর্টে গিয়ে বিচারকের সামনে বিস্তারিত ঘটনা জানিয়ে গোপন জবানবন্দি দেন। তা সত্ত্বেও উল্টোডাঙা থানার পুলিশ অপরাধীদের গ্রেপ্তার করছে না বলে অভিযোগ।

[আরও পড়ুন:পুলিশের সামনেই বিধিভঙ্গ, রবিবার সকালেও রবীন্দ্র সরোবরে অবাধে ছট পুজো]

এপ্রসঙ্গে ওই মহিলা আইনজীবী বলেন, ‘উল্টোডাঙা থানার পুলিশের একাংশের সঙ্গে অভিযুক্তদের আঁতাত রয়েছে। সেই কারণে তাদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। উলটে তারা মাঝেমধ্যেই আমার বাড়ির সামনে এসে আমার ছেলেমেয়েকে অপহরণের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এই ঘটনায় আমি ভীষণভাবে আতঙ্কিত। সর্বক্ষণ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি আমরা।’ এরপর ওই মহিলা আইনজীবী ঘটনাটি জানান স্থানীয় কাউন্সিলর তথা বরো চেয়ারম্যান অনিন্দ্য রাউতকে। বিষয়টি জেনে অনিন্দ্যবাবু ওই আইনজীবীর বাড়িতে গিয়ে তাঁদের নিরাপত্তা দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে আসেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বিধাননগর রোডেরই বাসিন্দা পকাই। বাগুইআটির চিনার পার্কে একটি পানশালা চালায় সে। বিধাননগর রোডের বাড়ির সামনে পুরসভার রাস্তা দখল করে পকাই একটি মন্দির, একটি জিম ও আইসক্রিম তৈরির কারখানা তৈরি করেছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, ওই মন্দিরের সামনেই রাস্তা আটকে বেআইনিভাবে মন্দির তৈরি করে সে কালীপুজো করছিল। এর ফলে ওই মহিলা আইনজীবী রাস্তা দিয়ে গাড়ি চালিয়ে ঢুকতে সমস্যায় পড়েন। তাতেই গোলমালের সূত্রপাত। পুরো বিষয়টিই ওই আইনজীবীর বাড়ির সামনে থাকা সিসিটিভির ফুটেজে উঠে এসেছে। সেই ফুটেজ থানাতেও জমা দিয়েছেন ওই আইনজীবী। কিন্তু, তারপরও অভিযুক্তরা বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে